যে কারণে শাহরুখের বাড়িতে গেলেন এনসিবির গোয়েন্দারা
jugantor
যে কারণে শাহরুখের বাড়িতে গেলেন এনসিবির গোয়েন্দারা

  বিনোদন ডেস্ক  

২১ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৫১:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

আরিয়ানকাণ্ডে বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের বাড়ি মান্নাতে তল্লাশি চালিয়েছে ভারতের নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)।

বৃহস্পতিবার দুপুরের এনসিবির ৬ সদস্যের একটি দল মান্নাতে প্রবেশ করলে বাড়ির গেটে সাংবাদিকরা ভিড় জমান। মাত্র ১৫ মিনিট পরেই শাহরুখের বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন তারা।

এ সময় এনসিবির গোয়েন্দাদের ঘিরে ধরেন ভারতের সাংবাদিকরা। কেন, কী উদ্দেশ্যে শাহরুখের বাড়িতে এ অভিযান চলেছে আর ভেতরে কী কী পেলেন— এমন সব প্রশ্নে জর্জরিত হন এনসিবির গোয়েন্দারা।

জবাবে এক গোয়েন্দা বলেন, আনুষ্ঠানিক নোটিশ দেওয়ার জন্য আমরা শাহরুখের বাড়িতে গেছি। আরিয়ান খানের আর কোনো ইলেকট্রনিক যন্ত্র (মোবাইল, ট্যাব, ল্যাপটপ ইত্যাদি) আছে কিনা সেটি জানতে। আর থেকে থাকলে সেগুলো যেন আমাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

আরও এক গোয়েন্দা বলেন, ‘এ ঘটনার তদন্ত চলছে। এনসিবি যখন কোনো ব্যক্তির বাড়িতে যায় তার অর্থ এটি নয় যে, তিনিও সরাসরি ঘটনার সঙ্গে যুক্ত বা তদন্তের আওতায় রয়েছেন। এ ছাড়া বিভিন্ন নিয়মতান্ত্রিক ব্যাপার থাকে।’

শাহরুখকে কী জিজ্ঞেস করা হয়েছে তদন্তের স্বার্থে বলেননি এনসিবির গোয়েন্দারা।

এর আগে আর্থার রোড জেলে শাহরুখের ছেলে আরিয়ান খানের সঙ্গে দেখা করে আসে এনসিবি।

বুধবার আরিয়ানের জামিন বাতিল হয়ে যায়। পর দিন বৃহস্পতিবার সকালে শাহরুখ জেলে তার ছেলের সঙ্গে দেখা করতে গেলেন। জেলে প্রায় ২০ মিনিট সময় কাটান শাহরুখ খান। তবে গণমাধ্যমের সঙ্গে তিনি কোনো কথা বলেননি।

প্রসঙ্গত গত ২ অক্টোবর একটি প্রমোদতরী থেকে আরিয়ানসহ আটজনকে মাদক মামলায় আটক করা হয়। ৩ তারিখে তাকে সরকারিভাবে গ্রেফতার দেখায় মাদক নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো। তার পরে ওই মামলায় আরও অনেককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গত ৮ অক্টোবর আদালতে হাজির করানো হলে আরিয়ানকে জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। এর মধ্যে একাধিকবার তার জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে গেছে। তিনি এখন জেলেই বন্দি। তার কয়েদি নম্বর ‘এন৯৫৬’।

তথ্যসূত্র: এনডিটিভি, ইন্ডিয়া টুডে

যে কারণে শাহরুখের বাড়িতে গেলেন এনসিবির গোয়েন্দারা

 বিনোদন ডেস্ক 
২১ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আরিয়ানকাণ্ডে বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের বাড়ি মান্নাতে তল্লাশি চালিয়েছে ভারতের নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। 

বৃহস্পতিবার দুপুরের এনসিবির ৬ সদস্যের একটি দল মান্নাতে প্রবেশ করলে বাড়ির গেটে সাংবাদিকরা ভিড় জমান। মাত্র ১৫ মিনিট পরেই শাহরুখের বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন তারা। 

এ সময় এনসিবির গোয়েন্দাদের ঘিরে ধরেন ভারতের সাংবাদিকরা। কেন, কী উদ্দেশ্যে শাহরুখের বাড়িতে এ অভিযান চলেছে আর ভেতরে কী কী পেলেন— এমন সব প্রশ্নে জর্জরিত হন এনসিবির গোয়েন্দারা।

জবাবে এক গোয়েন্দা বলেন, আনুষ্ঠানিক নোটিশ দেওয়ার জন্য আমরা শাহরুখের বাড়িতে গেছি। আরিয়ান খানের আর কোনো ইলেকট্রনিক যন্ত্র (মোবাইল, ট্যাব, ল্যাপটপ ইত্যাদি) আছে কিনা সেটি জানতে। আর থেকে থাকলে সেগুলো যেন আমাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

আরও এক গোয়েন্দা বলেন,  ‘এ ঘটনার তদন্ত চলছে। এনসিবি যখন কোনো ব্যক্তির বাড়িতে যায় তার অর্থ এটি নয় যে, তিনিও সরাসরি ঘটনার সঙ্গে যুক্ত বা তদন্তের আওতায় রয়েছেন। এ ছাড়া বিভিন্ন নিয়মতান্ত্রিক ব্যাপার থাকে।’

শাহরুখকে কী জিজ্ঞেস করা হয়েছে তদন্তের স্বার্থে বলেননি এনসিবির গোয়েন্দারা।

এর আগে আর্থার রোড জেলে শাহরুখের ছেলে আরিয়ান খানের সঙ্গে দেখা করে আসে এনসিবি। 

বুধবার আরিয়ানের জামিন বাতিল হয়ে যায়। পর দিন বৃহস্পতিবার সকালে শাহরুখ জেলে তার ছেলের সঙ্গে দেখা করতে গেলেন। জেলে প্রায় ২০ মিনিট সময় কাটান শাহরুখ খান। তবে গণমাধ্যমের সঙ্গে তিনি কোনো কথা বলেননি।

প্রসঙ্গত গত ২ অক্টোবর একটি প্রমোদতরী থেকে আরিয়ানসহ আটজনকে মাদক মামলায় আটক করা হয়। ৩ তারিখে তাকে সরকারিভাবে গ্রেফতার দেখায় মাদক নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো। তার পরে ওই মামলায় আরও অনেককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গত ৮ অক্টোবর আদালতে হাজির করানো হলে আরিয়ানকে জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। এর মধ্যে একাধিকবার তার জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে গেছে। তিনি এখন জেলেই বন্দি। তার কয়েদি নম্বর ‘এন৯৫৬’।

তথ্যসূত্র: এনডিটিভি, ইন্ডিয়া টুডে
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন