১৪ বছর জেল খাটার পর বন্দিকে নির্দোষ ঘোষণা
jugantor
১৪ বছর জেল খাটার পর বন্দিকে নির্দোষ ঘোষণা
আফগান নাগরিকের আটক আদেশ অবৈধ: মার্কিন আদালত

  অনলাইন ডেস্ক  

২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৯:২১:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

কুখ্যাত গুয়ান্তানামো বে কারাগার ১৪ বছর জেল খাটার পর আফগানিস্তানের এক নাগরিকের আটকাদেশ অবৈধ ঘোষণা করেছে মার্কিন ফেডারেল আদালত।

আমেরিকার জেলা জজ আদালতের বিচারক অমিত মেহতা শুনানিতে বলেছেন, আফগান নাগরিক আব্দুল্লাহ হারুন গুল যেহেতু আল-কায়েদা সন্ত্রাসীগোষ্ঠীর কোনো অংশ ছিলেন না, সে কারণে আমেরিকা তাকে গুয়ান্তানামো কারাগারে বন্দি রাখতে পারে না। খবর নিউইয়র্ক টাইমসের।

আবদুল্লাহ হারুন গুলকে ২০০৭ সালের জুরে আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় জালালাবাদ শহর থেকে সন্ত্রাসী বলে আটক করা হয়। কিন্তু আল-কায়েদা অথবা এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কোনো গোষ্ঠীর সঙ্গে আব্দুল্লাহ হারুন গুলের কোনো সম্পর্ক পাওয়া যায়নি।

এই কারণে মার্কিন বিচারক অমিত মেহেতা আফগান এ নাগরিকের আটকাদেশকে অবৈধ ঘোষণা করেছে।

তবে খুব শিগগিরই আব্দুল্লাহ হারুন গুল মুক্তি পাচ্ছেন না। আফগান বন্দির আইনজীবী জানিয়েছেন, আদালতের এই রুলিংয়ের অর্থ হচ্ছে শুধুই আবদুল্লাহ হারুন গুলের আটকাদেশকে অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

আইনজীবী তারা প্লোচোকি বলেন, মার্কিন সরকারের উচিত আদালতের এই রুলিংকে আমলে নিয়ে তা বাস্তবায়নে সহযোগিতা করা, তাকে অবশ্যই মুক্তি দেয়া উচিত।
তারা প্লোচোকি বলেন, আদালতের এই রুলিংয়ের মধ্য দিয়ে আইনের শাসনের ঐতিহাসিক বিজয় হয়েছে। এই রুলিংয়ের মাধ্যমে একথাও পরিষ্কার করে দেয়া হয়েছে যে, ন্যাশনাল সিকিউরিটি আইনের নামে মার্কিন সরকার যা করেছে তার মধ্যে অনেক বাড়াবাড়ি ছিল।

১৪ বছর জেল খাটার পর বন্দিকে নির্দোষ ঘোষণা

আফগান নাগরিকের আটক আদেশ অবৈধ: মার্কিন আদালত
 অনলাইন ডেস্ক 
২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৯:২১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুখ্যাত গুয়ান্তানামো বে কারাগার ১৪ বছর জেল খাটার পর আফগানিস্তানের এক নাগরিকের আটকাদেশ অবৈধ ঘোষণা করেছে মার্কিন ফেডারেল আদালত।

আমেরিকার জেলা জজ আদালতের বিচারক অমিত মেহতা শুনানিতে বলেছেন, আফগান নাগরিক আব্দুল্লাহ হারুন গুল যেহেতু আল-কায়েদা সন্ত্রাসীগোষ্ঠীর কোনো অংশ ছিলেন না, সে কারণে আমেরিকা তাকে গুয়ান্তানামো কারাগারে বন্দি রাখতে পারে না। খবর নিউইয়র্ক টাইমসের।

আবদুল্লাহ হারুন গুলকে ২০০৭ সালের জুরে আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় জালালাবাদ শহর থেকে সন্ত্রাসী বলে আটক করা হয়। কিন্তু আল-কায়েদা অথবা এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কোনো গোষ্ঠীর সঙ্গে আব্দুল্লাহ হারুন গুলের কোনো সম্পর্ক পাওয়া যায়নি।

এই কারণে মার্কিন বিচারক অমিত মেহেতা আফগান এ নাগরিকের আটকাদেশকে অবৈধ ঘোষণা করেছে।

তবে খুব শিগগিরই আব্দুল্লাহ হারুন গুল মুক্তি পাচ্ছেন না। আফগান বন্দির আইনজীবী জানিয়েছেন, আদালতের এই রুলিংয়ের অর্থ হচ্ছে শুধুই আবদুল্লাহ হারুন গুলের আটকাদেশকে অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

আইনজীবী তারা প্লোচোকি বলেন, মার্কিন সরকারের উচিত আদালতের এই রুলিংকে আমলে নিয়ে তা বাস্তবায়নে সহযোগিতা করা, তাকে অবশ্যই মুক্তি দেয়া উচিত।
তারা প্লোচোকি বলেন, আদালতের এই রুলিংয়ের মধ্য দিয়ে আইনের শাসনের ঐতিহাসিক বিজয় হয়েছে। এই রুলিংয়ের মাধ্যমে একথাও পরিষ্কার করে দেয়া হয়েছে যে, ন্যাশনাল সিকিউরিটি আইনের নামে মার্কিন সরকার যা করেছে তার মধ্যে অনেক বাড়াবাড়ি ছিল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন