সহকর্মীদের গুলি করায় পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিচ্ছেন না নার্সরা
jugantor
সহকর্মীদের গুলি করায় পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিচ্ছেন না নার্সরা

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:৪৩:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

সহকর্মীদের গুলি করায় পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিচ্ছেন না নার্সরা

সহকর্মী নার্সদের ওপর গুলি চালানোয় পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছেন ইসোয়াতিনির নার্সরা। আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশটিতে গত জুন থেকে বিক্ষোভ চলছে।

গত বুধবার গণতন্ত্রপন্থীদের বিক্ষোভের সময় সহকর্মী নার্সদের ওপর পুলিশ গুলি চালিয়েছে অভিযোগ উঠেছে। সরকার দাবি করে আসছে নিরাপত্তা বাহিনী তাজা গুলি ব্যবহার করেনি। এবার তারা সব ধরণের বিক্ষোভই নিষিদ্ধ করে দিয়েছে।

দ্য সোয়াজি নিউজ টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ভিডিও শেয়ার করা হয়েছে। এতে দেখা গেছে, দেশের দক্ষিণাঞ্চলের নাহলানগো হেলথ সেন্টারের নার্সরা বিক্ষোভ করছেন। তিনটি হাসপাতালের নার্সরা বিক্ষোভ করছেন বলে শুক্রবার জানা গেছে।

এই সপ্তাহের আগের দিকে স্বাস্থ্যকর্মীসহ সরকারি সেক্টরের কর্মীরা জীবনমানের উন্নয়নের দাবির আবেদনপত্র পার্লামেন্টে জমা দিতে যান।

সোয়াজিল্যান্ড ডেমোক্র্যাটিক নার্সেস ইউনিয়ন (এসডিএনইউ) বলেছে, সেখানে এসব কর্মীদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। ইউনিয়নের দাবি সেদিন পুলিশ ও সেনাবাহিনী গুলি চালালে ৩০ নার্স আহত এবং এক তরুণ পথচারী নিহত হয়।

নিরাপত্তা বাহিনীকে ‘রক্তখেকোদের বংশধর’ উল্লেখ করে এসডিএনইউ সব নার্সকে ‘গুলিবিদ্ধ নার্সদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে পুলিশ সদস্যদের সেবা না দেওয়ার’ আহ্বান জানিয়েছে।

আফ্রিকার সর্বশেষ চরম রাজতন্ত্র ইসোয়াতিনির পুরনো নাম সোয়াজিল্যান্ড। গত জুন থেকে সেই দেশে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। বিক্ষোভের কারণে এই সপ্তাহে ফেসবুকের মতো বেশ কিছু ইন্টারনেট সার্ভিস সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়।

সহকর্মীদের গুলি করায় পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিচ্ছেন না নার্সরা

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:৪৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সহকর্মীদের গুলি করায় পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিচ্ছেন না নার্সরা
ছবি: সংগৃহীত

সহকর্মী নার্সদের ওপর গুলি চালানোয় পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছেন ইসোয়াতিনির নার্সরা। আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশটিতে গত জুন থেকে বিক্ষোভ চলছে। 

গত বুধবার গণতন্ত্রপন্থীদের বিক্ষোভের সময় সহকর্মী নার্সদের ওপর পুলিশ গুলি চালিয়েছে অভিযোগ উঠেছে।  সরকার দাবি করে আসছে নিরাপত্তা বাহিনী তাজা গুলি ব্যবহার করেনি। এবার তারা সব ধরণের বিক্ষোভই নিষিদ্ধ করে দিয়েছে।

দ্য সোয়াজি নিউজ টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ভিডিও শেয়ার করা হয়েছে। এতে দেখা গেছে, দেশের দক্ষিণাঞ্চলের নাহলানগো হেলথ সেন্টারের নার্সরা বিক্ষোভ করছেন। তিনটি হাসপাতালের নার্সরা বিক্ষোভ করছেন বলে শুক্রবার জানা গেছে। 

এই সপ্তাহের আগের দিকে স্বাস্থ্যকর্মীসহ সরকারি সেক্টরের কর্মীরা জীবনমানের উন্নয়নের দাবির আবেদনপত্র পার্লামেন্টে জমা দিতে যান। 

সোয়াজিল্যান্ড ডেমোক্র্যাটিক নার্সেস ইউনিয়ন (এসডিএনইউ) বলেছে, সেখানে এসব কর্মীদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। ইউনিয়নের দাবি সেদিন পুলিশ ও সেনাবাহিনী গুলি চালালে ৩০ নার্স আহত এবং এক তরুণ পথচারী নিহত হয়।

নিরাপত্তা বাহিনীকে ‘রক্তখেকোদের বংশধর’ উল্লেখ করে এসডিএনইউ সব নার্সকে ‘গুলিবিদ্ধ নার্সদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে পুলিশ সদস্যদের সেবা না দেওয়ার’ আহ্বান জানিয়েছে।

আফ্রিকার সর্বশেষ চরম রাজতন্ত্র ইসোয়াতিনির পুরনো নাম সোয়াজিল্যান্ড। গত জুন থেকে সেই দেশে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। বিক্ষোভের কারণে এই সপ্তাহে ফেসবুকের মতো বেশ কিছু ইন্টারনেট সার্ভিস সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন