ইসরাইলকে এই সময়ে কেন হুমকি দিল হিজবুল্লাহ?
jugantor
ইসরাইলকে এই সময়ে কেন হুমকি দিল হিজবুল্লাহ?

  অনলাইন ডেস্ক  

২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৩৩:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ইসরাইলকে এই সময়ে কেন হুমকি দিল হিজবুল্লাহ?

লেবানন ও ইসরাইলের মধ্যে সম্পর্ক এমনিতেই সংঘাতপূর্ণ।প্রায় সময়ই রকেট হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে দেশ দুটির মধ্যে। সংঘাত-উত্তেজনার মধ্যে ইসরাইলকে বড় ধরনের হুমকি দিলেন লেবাননের প্রতিরোধ সংগঠন হিজবুল্লাহর মহাসচিব।

শুক্রবার ইহুদিবাদী ইসরাইলকে হুমকি দেন হিজবুল্লাহ মহাসচিব সাইয়েদ হাসান নাসরুল্লাহ। খবর আরব নিউজের।

খবরে বলা হয়, যতদিন পর্যন্ত সমুদ্রসীমা নিয়ে বিরোধ শেষ হয়নি সে পর্যন্ত এসব এলাকায় তেল ও গ্যাস অনুসন্ধানে ইসরাইলের অভিযানের বিষয়ে সতর্ক করেছেন হিজবুল্লাহর শীর্ষ এ নেতা। যদি অনুসন্ধান অভিযান চালানো হয় তবে হিজবুল্লাহ পাল্টা ব্যবস্থা নেবে।

সাইয়েদ হাসান নাসরুল্লাহ টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে বলেন, যদি শত্রুরা মনে করে যে তারা এ সমস্যার সমাধানের আগে তাদের ইচ্ছামতো কাজ করতে পারে, তবে তাদের ধারণা ভুল।

‘আমি এ বিষয়ে কোনো পক্ষ নিতে চাই না। কেননা, আমি চাই না আলোচনা আরও জটিল হয়ে যাক। তবে নিশ্চিতভাবে বলতে পারি প্রতিরোধ বাহিনী যখন দেখবে লেবাননের তেল এবং গ্যাস বিতর্কিত এলাকায় ঝুঁকিতে রয়েছে তখন তারা প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে’, যোগ করেন সাইয়েদ হাসান নাসরুল্লাহ।

ভূমধ্যসাগরে অনুসন্ধান অভিযান পরিচালনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ইসরাইলের চুক্তি হওয়ার পর লেবাননের মন্ত্রিসভা জাতিসংঘের স্থায়ী সদস্য এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে কোন এলাকায় অনুসন্ধান অভিযান চালানো হবে তা স্পষ্ট করে জানতে চেয়েছে।

সমুদ্রসীমা নিয়ে ইসরাইল ও লেবাননের মধ্যে দ্বন্দ্ব অনেকদিনের। এ সমস্যা সমাধানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় দুদেশের মধ্যে আলোচনা চলছে।

ইসরাইলকে এই সময়ে কেন হুমকি দিল হিজবুল্লাহ?

 অনলাইন ডেস্ক 
২৩ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইসরাইলকে এই সময়ে কেন হুমকি দিল হিজবুল্লাহ?
ছবি: সংগৃহীত

লেবানন ও ইসরাইলের মধ্যে সম্পর্ক এমনিতেই সংঘাতপূর্ণ।প্রায় সময়ই রকেট হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে দেশ দুটির মধ্যে। সংঘাত-উত্তেজনার মধ্যে ইসরাইলকে বড় ধরনের হুমকি দিলেন লেবাননের প্রতিরোধ সংগঠন হিজবুল্লাহর মহাসচিব।

শুক্রবার ইহুদিবাদী ইসরাইলকে হুমকি দেন হিজবুল্লাহ মহাসচিব সাইয়েদ হাসান নাসরুল্লাহ। খবর আরব নিউজের।

খবরে বলা হয়, যতদিন পর্যন্ত সমুদ্রসীমা নিয়ে বিরোধ শেষ হয়নি সে পর্যন্ত এসব এলাকায় তেল ও গ্যাস অনুসন্ধানে ইসরাইলের অভিযানের বিষয়ে সতর্ক করেছেন হিজবুল্লাহর শীর্ষ এ নেতা। যদি অনুসন্ধান অভিযান চালানো হয় তবে হিজবুল্লাহ পাল্টা ব্যবস্থা নেবে।

সাইয়েদ হাসান নাসরুল্লাহ টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে বলেন, যদি শত্রুরা মনে করে যে তারা এ সমস্যার সমাধানের আগে তাদের ইচ্ছামতো কাজ করতে পারে, তবে তাদের ধারণা ভুল।

‘আমি এ বিষয়ে কোনো পক্ষ নিতে চাই না। কেননা, আমি চাই না আলোচনা আরও জটিল হয়ে যাক। তবে নিশ্চিতভাবে বলতে পারি প্রতিরোধ বাহিনী যখন দেখবে লেবাননের তেল এবং গ্যাস বিতর্কিত এলাকায় ঝুঁকিতে রয়েছে তখন তারা প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে’, যোগ করেন সাইয়েদ হাসান নাসরুল্লাহ।

ভূমধ্যসাগরে অনুসন্ধান অভিযান পরিচালনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ইসরাইলের চুক্তি হওয়ার পর লেবাননের মন্ত্রিসভা জাতিসংঘের স্থায়ী সদস্য এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে কোন এলাকায় অনুসন্ধান অভিযান চালানো হবে তা স্পষ্ট করে জানতে চেয়েছে।

সমুদ্রসীমা নিয়ে ইসরাইল ও লেবাননের মধ্যে দ্বন্দ্ব অনেকদিনের। এ সমস্যা সমাধানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় দুদেশের মধ্যে আলোচনা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন