পতনের মুখে আফগানিস্তান, ঠেকানোর উপায় জানালেন পাকমন্ত্রী
jugantor
পতনের মুখে আফগানিস্তান, ঠেকানোর উপায় জানালেন পাকমন্ত্রী

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৪ অক্টোবর ২০২১, ২২:৩৫:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

আফগানিস্তান

আন্তর্জাতিক সহায়তা বন্ধ থাকায় আফগানিস্তান এরই মধ্যে দারিদ্র, খরা, বিদ্যুৎ বিভ্রাট ও ব্যর্থ অর্থনৈতিক ব্যবস্থাসহ নানা সমস্যায় ধুঁকছে। এরই মধ্যে আসন্ন শীতকাল দেশটির প্রতিকূল পরিস্থিতির ওপর বাড়তি চাপ ফেলবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আফগানিস্তানের এই বিপর্যয়কর পরিস্থিতি মোকাবেলার ব্যাপারে পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, তালেবানের সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ততাই আফগানিস্তানে মানবিক বিপর্যয় ঠেকানোর একমাত্র উপায়। তিনি বহির্বিশ্বে আটকে থাকা বিলিয়ন ডলারের আফগান সম্পদ ছেড়ে দেওয়ারও আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, আমরা আফগানিস্তানকে আরও বিশৃঙ্খলার দিকে ঠেলে দেব নাকি দেশটিতে স্থিতিশীলতা আনার চেষ্টা করব?

তালেবানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সরাসরি সম্পৃক্ততা দেশটিতে মানবাধিকার রক্ষা এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক ও সাংবিধানিক সরকার গঠনের ব্যাপারে উৎসাহ দেবে বলেও জানান ফাওয়াদ চৌধুরী।

এদিকে, আন্তর্জাতিকসম্প্রদায় কোনো পদক্ষেপ না নিলে আফগানিস্তানে খুব শিগগিরই অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে বলে সতর্ক করেছেন সুইডেনের উন্নয়নমন্ত্রী পার ওলসন ফ্রিদ।এ ব্যাপারে দুবাইতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে তিনি বলেন, দেশটি পতনের দ্বারপ্রান্তে এবং এই পতন আমাদের ধারণার চেয়েও দ্রুত এগিয়ে আসছে।

তিনি আরও বলেন, আফগানিস্তানের অর্থনীতির দ্রুত পতন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে আরও সক্রিয় হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করে দেবে। কিন্তু এরপরও সুইডেন তালেবানকে কোনো আর্থিক সহায়তা করবে না। বরং আফগান নাগরিক সমাজের মাধ্যমেই দেশটিতে মানবিক সহায়তা বাড়াবে সুইডেন।

এদিকে, বেকারত্ব আর ক্ষুধা মোকাবেলায় নতুন প্রকল্প হাতে নিয়েছে আফগানিস্তানের তালেবান সরকার। এই প্রকল্পের আওতায় জনগণকে কাজের বিনিময়ে গম দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তালেবান।

পতনের মুখে আফগানিস্তান, ঠেকানোর উপায় জানালেন পাকমন্ত্রী

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৪ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আফগানিস্তান
ছবি : প্রতীকী

আন্তর্জাতিক সহায়তা বন্ধ থাকায় আফগানিস্তান এরই মধ্যে দারিদ্র, খরা, বিদ্যুৎ বিভ্রাট ও ব্যর্থ অর্থনৈতিক ব্যবস্থাসহ নানা সমস্যায় ধুঁকছে। এরই মধ্যে আসন্ন শীতকাল দেশটির প্রতিকূল পরিস্থিতির ওপর বাড়তি চাপ ফেলবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।  

আফগানিস্তানের এই বিপর্যয়কর পরিস্থিতি মোকাবেলার ব্যাপারে পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, তালেবানের সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ততাই আফগানিস্তানে মানবিক বিপর্যয় ঠেকানোর একমাত্র উপায়।  তিনি বহির্বিশ্বে আটকে থাকা বিলিয়ন ডলারের আফগান সম্পদ ছেড়ে দেওয়ারও আহ্বান জানান।  

তিনি বলেন, আমরা আফগানিস্তানকে আরও বিশৃঙ্খলার দিকে ঠেলে দেব নাকি দেশটিতে স্থিতিশীলতা আনার চেষ্টা করব? 

তালেবানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সরাসরি সম্পৃক্ততা দেশটিতে মানবাধিকার রক্ষা এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক ও সাংবিধানিক সরকার গঠনের ব্যাপারে উৎসাহ দেবে বলেও জানান ফাওয়াদ চৌধুরী।

এদিকে, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কোনো পদক্ষেপ না নিলে আফগানিস্তানে খুব শিগগিরই অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে বলে সতর্ক করেছেন সুইডেনের উন্নয়নমন্ত্রী পার ওলসন ফ্রিদ। এ ব্যাপারে দুবাইতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে তিনি বলেন, দেশটি পতনের দ্বারপ্রান্তে এবং এই পতন আমাদের ধারণার চেয়েও দ্রুত এগিয়ে আসছে।

তিনি আরও বলেন, আফগানিস্তানের অর্থনীতির দ্রুত পতন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে আরও সক্রিয় হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করে দেবে।  কিন্তু এরপরও সুইডেন তালেবানকে কোনো আর্থিক সহায়তা করবে না। বরং আফগান নাগরিক সমাজের মাধ্যমেই দেশটিতে মানবিক সহায়তা বাড়াবে সুইডেন।

এদিকে, বেকারত্ব আর ক্ষুধা মোকাবেলায় নতুন প্রকল্প হাতে নিয়েছে আফগানিস্তানের তালেবান সরকার। এই প্রকল্পের আওতায় জনগণকে কাজের বিনিময়ে গম দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তালেবান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর