ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করেছে সুদানের সেনাবাহিনী
jugantor
ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করেছে সুদানের সেনাবাহিনী

  অনলাইন ডেস্ক  

২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৩:১৬:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করেছে সুদানের সেনাবাহিনী

সুদানের সেনাবাহিনী দেশটির বেসামরিক নেতাদের বেছে বেছে গ্রেফতার করছে। সম্প্রতি গ্রেফতার করা হয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওমর এল নাজিব ও সেচমন্ত্রী ইয়াসির আব্বাসকে। গ্রেফতার করা হচ্ছে অধিকারকর্মী ও সাংবাদিকদেরও।

দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সূত্রের বরাতে এ তথ্য জানায় তুরস্কের গণমাধ্যম আনাদোলু।

এদিকে সুদানের প্রফেশনালস অ্যাসোসিয়েশন (এসপিএ) সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, সেনাবাহিনী অধিকারকর্মীদের ধরতে ব্যাপক অভিযান শুরু করেছে।

সূত্রটি নিশ্চিত করেন, সেনাবাহিনী ইতোমধ্যে অধিকাংশ সরকারি কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতার করা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর সাবেক গণমাধ্যম উপদেষ্টা ফায়েজ সেলেইক এবং এসপিএর শীর্ষস্থানীয় নেতা ইসমাইল আল-তাজকে।

সুদানের জার্নালিস্ট নেটওয়ার্ক (এসজিএন) জানিয়েছে, ইতোমধ্যে পাঁচজনের মতো সাংবাদিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। অনেককে নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে তদন্তের জন্য তলব করা হয়েছে।

গত মাসে একটি সেনা অভ্যুত্থান ব্যর্থ হওয়ার পর দেশটির সরকার ও সেনাবাহিনীর মধ্যে তীব্র উত্তেজনা চলছিল।

এর মধ্যে সোমবার সুদানের সেনাবাহিনী দেশটিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে ক্রান্তিকালীন সার্বভৌম পরিষদ ভেঙে দিয়েছে। এ সময় দেশটির প্রধানমন্ত্রী হামদক এবং অন্যান্য মন্ত্রীকে আটক করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সেনা অভ্যুত্থানের বিষয়ে জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান বলেন, গত সপ্তাহে আমরা যেটি প্রত্যক্ষ করেছি, তাতে আসলে দেশ গৃহযুদ্ধের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছিল।

ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করেছে সুদানের সেনাবাহিনী

 অনলাইন ডেস্ক 
২৮ অক্টোবর ২০২১, ০১:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করেছে সুদানের সেনাবাহিনী
ছবি: সংগৃহীত

সুদানের সেনাবাহিনী দেশটির বেসামরিক নেতাদের বেছে বেছে গ্রেফতার করছে। সম্প্রতি গ্রেফতার করা হয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওমর এল নাজিব ও সেচমন্ত্রী ইয়াসির আব্বাসকে। গ্রেফতার করা হচ্ছে অধিকারকর্মী ও সাংবাদিকদেরও।

দেশটির প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সূত্রের বরাতে এ তথ্য জানায় তুরস্কের গণমাধ্যম আনাদোলু।

এদিকে সুদানের প্রফেশনালস অ্যাসোসিয়েশন (এসপিএ) সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, সেনাবাহিনী অধিকারকর্মীদের ধরতে ব্যাপক অভিযান শুরু করেছে।

সূত্রটি নিশ্চিত করেন, সেনাবাহিনী ইতোমধ্যে অধিকাংশ সরকারি কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতার করা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর সাবেক গণমাধ্যম উপদেষ্টা ফায়েজ সেলেইক এবং এসপিএর শীর্ষস্থানীয় নেতা ইসমাইল আল-তাজকে।

সুদানের জার্নালিস্ট নেটওয়ার্ক (এসজিএন) জানিয়েছে, ইতোমধ্যে পাঁচজনের মতো সাংবাদিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। অনেককে নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে তদন্তের জন্য তলব করা হয়েছে।

গত মাসে একটি সেনা অভ্যুত্থান ব্যর্থ হওয়ার পর দেশটির সরকার ও সেনাবাহিনীর মধ্যে তীব্র উত্তেজনা চলছিল।

এর মধ্যে সোমবার সুদানের সেনাবাহিনী দেশটিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে ক্রান্তিকালীন সার্বভৌম পরিষদ ভেঙে দিয়েছে। এ সময় দেশটির প্রধানমন্ত্রী হামদক এবং অন্যান্য মন্ত্রীকে আটক করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সেনা অভ্যুত্থানের বিষয়ে জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান বলেন,  গত সপ্তাহে আমরা যেটি প্রত্যক্ষ করেছি, তাতে আসলে দেশ গৃহযুদ্ধের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছিল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন