আরিয়ানের জামিন নিয়ে যা বললেন আদালত
jugantor
আরিয়ানের জামিন নিয়ে যা বললেন আদালত

  অনলাইন ডেস্ক  

০২ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৪২:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

শুধু হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের ওপর ভিত্তি করে কখনই প্রমাণ হয় না আরিয়ান খান ও আরবাজ মার্চেন্টকে নিয়মিত মাদক সরবরাহ করতেন এই মামলায় আর এক অভিযুক্ত অর্চিত কুমার।

শাহরুখপুত্রের বিরুদ্ধে মাদক মামলায় অর্চিতের জামিন মঞ্জুর করে এমনটিই জানিয়েছেন মুম্বাইয়ের মাদকবিরোধী বিশেষ আদালত। খবর এনডিটিভি ও আনন্দবাজার পত্রিকার।

আদালতের এই রায়ের একটি কপি সোমবার প্রকাশিত হয়েছে। মাদক মামলায় আটক আরিয়ান খান ও আরবাজ মার্চেন্টকে জেরা করে উঠে এসেছিল কলেজ পড়ুয়া বছর বাইশের এই অর্চিত কুমারের নাম।

নার্কোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) দাবি, অর্চিতকে গ্রেফতার করে তার কাছ থেকে নিষিদ্ধ মাদক পেয়েছিল।

এনসিবির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, অর্চিত মাদক ব্যবসায় যুক্ত। তিনিই আরিয়ানদের মাদক সরবরাহ করতেন। যে দাবি নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিশেষ আদালত বলেছেন, অর্চিত ও আরিয়ানদের মধ্যে হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের ভিত্তিতে কখনই প্রমাণ হয় না তিনি অভিযুক্তদের মাদক দিতেন।

শনিবার ২২ বছরের অর্চিতকে জামিনের রায় দিতে গিয়ে বিশেষ আদালতের পর্যবেক্ষণ, এনসিবি এমন কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি, যা থেকে বোঝা যায় অভিযুক্ত নিষিদ্ধ মাদক সরবরাহে যুক্ত।

শুধু আরিয়ান খানের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে তার চ্যাট প্রমাণ হিসেবে তুলে ধরেছে এনসিবি। কিন্তু একমাত্র সেই চ্যাটের ওপরে নির্ভর করে এটি কখনই প্রমাণ হয় না তিনি অন্য অভিযুক্তদের মাদক সরবরাহ করতেন।

আদালত বলেছেন, যেহেতু আরিয়ান ও আরবাজ হাইকোর্টে জামিন পেয়ে গেছেন, সেদিক বিচার করে অর্চিতকেও জামিন দেওয়া যেতে পারে।

এদিকে মাদক মামলা ঘিরে এবার নবাব মালিকের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চরমে উঠল বিজেপি নেতা ও মহারাষ্ট্রের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফডনবিসের।

সোমবার সকালে মাদক পাচারে জেলবন্দি জয়দীপ রানা নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে ফডনবিস ও তার স্ত্রীর একটি ছবি পোস্ট করেন এনসিপি নেতা নবাব মালিক।

তার পর ক্ষুব্ধ ফডনবিসও পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন, মালিকের সঙ্গে ‘অন্ধকার জগতের’ যোগাযোগ রয়েছে। তিনি হুশিয়ারি দেন, নবাব মালিক পটকার সলতেতে আগুন দিয়েছেন। অন্যায়ভাবে মাদক-যোগে তাকে ও তার স্ত্রীর নাম জড়িয়েছেন। দীপাবলির পর তিনি বোমাটা ফাটাবেন বলে জানান।

সোমবার সকালে এক সংবাদ সম্মলনে নবাব মালিক বলেন, মাদক পাচারের ঘটনায় আটক জয়দীপ রানার সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে ফডনবিসের। ফডনবিসের স্ত্রীর গাওয়া একটি গানের ভিডিওতে টাকা ঢেলেছিল ওই ব্যক্তি। ফডনবিসের জমানায় অবাধে রাজ্যে মাদক ব্যবসা চলেছে।

আরিয়ানের জামিন নিয়ে যা বললেন আদালত

 অনলাইন ডেস্ক 
০২ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৪২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শুধু হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের ওপর ভিত্তি করে কখনই প্রমাণ হয় না আরিয়ান খান ও আরবাজ মার্চেন্টকে নিয়মিত মাদক সরবরাহ করতেন এই মামলায় আর এক অভিযুক্ত অর্চিত কুমার।

শাহরুখপুত্রের বিরুদ্ধে মাদক মামলায় অর্চিতের জামিন মঞ্জুর করে এমনটিই জানিয়েছেন মুম্বাইয়ের মাদকবিরোধী বিশেষ আদালত। খবর এনডিটিভি ও আনন্দবাজার পত্রিকার।

আদালতের এই রায়ের একটি কপি সোমবার প্রকাশিত হয়েছে। মাদক মামলায় আটক আরিয়ান খান ও আরবাজ মার্চেন্টকে জেরা করে উঠে এসেছিল কলেজ পড়ুয়া বছর বাইশের এই অর্চিত কুমারের নাম।

নার্কোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) দাবি, অর্চিতকে গ্রেফতার করে তার কাছ থেকে নিষিদ্ধ মাদক পেয়েছিল।

এনসিবির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, অর্চিত মাদক ব্যবসায় যুক্ত। তিনিই আরিয়ানদের মাদক সরবরাহ করতেন। যে দাবি নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিশেষ আদালত বলেছেন, অর্চিত ও আরিয়ানদের মধ্যে হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের ভিত্তিতে কখনই প্রমাণ হয় না তিনি অভিযুক্তদের মাদক দিতেন।

শনিবার ২২ বছরের অর্চিতকে জামিনের রায় দিতে গিয়ে বিশেষ আদালতের পর্যবেক্ষণ, এনসিবি এমন কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি, যা থেকে বোঝা যায় অভিযুক্ত নিষিদ্ধ মাদক সরবরাহে যুক্ত।

শুধু আরিয়ান খানের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে তার চ্যাট প্রমাণ হিসেবে তুলে ধরেছে এনসিবি। কিন্তু একমাত্র সেই চ্যাটের ওপরে নির্ভর করে এটি কখনই প্রমাণ হয় না তিনি অন্য অভিযুক্তদের মাদক সরবরাহ করতেন।

আদালত বলেছেন, যেহেতু আরিয়ান ও আরবাজ হাইকোর্টে জামিন পেয়ে গেছেন, সেদিক বিচার করে অর্চিতকেও জামিন দেওয়া যেতে পারে।

এদিকে মাদক মামলা ঘিরে এবার নবাব মালিকের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চরমে উঠল বিজেপি নেতা ও মহারাষ্ট্রের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফডনবিসের।

সোমবার সকালে মাদক পাচারে জেলবন্দি জয়দীপ রানা নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে ফডনবিস ও তার স্ত্রীর একটি ছবি পোস্ট করেন এনসিপি নেতা নবাব মালিক।

তার পর ক্ষুব্ধ ফডনবিসও পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন, মালিকের সঙ্গে ‘অন্ধকার জগতের’ যোগাযোগ রয়েছে। তিনি হুশিয়ারি দেন, নবাব মালিক পটকার সলতেতে আগুন দিয়েছেন। অন্যায়ভাবে মাদক-যোগে তাকে ও তার স্ত্রীর নাম জড়িয়েছেন। দীপাবলির পর তিনি বোমাটা ফাটাবেন বলে জানান।

সোমবার সকালে এক সংবাদ সম্মলনে নবাব মালিক বলেন, মাদক পাচারের ঘটনায় আটক জয়দীপ রানার সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে ফডনবিসের। ফডনবিসের স্ত্রীর গাওয়া একটি গানের ভিডিওতে টাকা ঢেলেছিল ওই ব্যক্তি। ফডনবিসের জমানায় অবাধে রাজ্যে মাদক ব্যবসা চলেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন