আল্লাহ কারাবাখে শহিদদের জান্নাতবাসী করুন: আজারি প্রেসিডেন্ট
jugantor
আল্লাহ কারাবাখে শহিদদের জান্নাতবাসী করুন: আজারি প্রেসিডেন্ট

  অনলাইন ডেস্ক  

০৯ নভেম্বর ২০২১, ১৩:১৯:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

কারাবাখ বিজয়ের বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে সোমবার আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ যুদ্ধে শহিদদের প্রতি সম্মান এবং দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

কারাবাখের শুশা অঞ্চলে জিদির দুজু এলাকায় বিজয়ের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে যুদ্ধে শহিদদের স্মরণে তিনি এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। খবর আনাদোলুর।

এ সময় তিনি শহিদদের জন্য প্রার্থনা করে বলেন, আল্লাহ যেন তাদের সবাইকে জান্নাতবাসী করেন।

এ উপলক্ষ্যে সোমবার আজারবাইজানে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়। দেশবাসী বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে কারাবাখে তাদের বিজয় দিবসটি উদযাপন করে।

ছয় সপ্তাহের যুদ্ধে প্রতিবেশী আর্মেনিয়াকে ২০২০ সালের ৮ নভেম্বর পরাজিত করে ৩০ বছর পর কারাবাখ অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে আজারবাইজান।

২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে নাগোরনো-কারাবাখ নিয়ে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে ওই ছয় সপ্তাহব্যাপী যুদ্ধ চলে। পরে রাশিয়ার মধ্যস্থতায় দেশ দুটি শান্তিচুক্তিতে আসে।

যুদ্ধে আজারবাইজানের সেনাবাহিনী ১৯৯০-এর দশকে আর্মেনিয়ার দখলে যাওয়া বেশ কিছু ভূখণ্ড পুনরুদ্ধার করে।

এতে অত্যাধুনিক ড্রোনসহ সামরিক সহায়তা দিয়ে সাহায্য করে তুরস্ক। এ জন্য আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এর জবাবে এরদোগান বলেছেন, তুরস্ক আর আজারবাইজান দুই দেশ হলেও এক জাতি। আমরা মনেপ্রাণে এক। আমরা একে অপরের ভাই।

আজারবাইজানের পাশাপাশি আঙ্কারায়ও কারাবাখ যুদ্ধ জয়ের প্রথম বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠান হয়। এতে উপস্থিত হন তুরস্কে নিয়োজিত আজারবাইজানের রাষ্ট্রদূত রাশেদ মাম্মাদভ।

তার্কিস-আজারবাইজানি ফ্রেন্ডশিপ কো-অপারেশন অ্যান্ড সলিডারিটি ফাউন্ডেশনসহ আরও কয়েকটি সংস্থা তুরস্কে কারাবাখ বিজয়ের এ বর্ষপূর্তি উদযাপন করে।

এতে আজারবাইজানের রাষ্ট্রদূত রাশেদ মাম্মাদভ বলেন, কারাবাখ যুদ্ধে আমাদের যত ধরনের সহযোগিতার প্রয়োজন ছিল, সবই করেছে তুরস্ক। এ জন্য আমরা তুর্কি ভাইবোনদের কাছে কৃতজ্ঞ। এ বিজয় কেবল আজারবাইজানের নয়, তুরস্কেরও বিজয়।

আল্লাহ কারাবাখে শহিদদের জান্নাতবাসী করুন: আজারি প্রেসিডেন্ট

 অনলাইন ডেস্ক 
০৯ নভেম্বর ২০২১, ০১:১৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কারাবাখ বিজয়ের বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে সোমবার আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ যুদ্ধে শহিদদের প্রতি সম্মান এবং দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।
    
কারাবাখের শুশা অঞ্চলে জিদির দুজু এলাকায় বিজয়ের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে যুদ্ধে শহিদদের স্মরণে তিনি এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। খবর আনাদোলুর।

এ সময় তিনি শহিদদের জন্য প্রার্থনা করে বলেন, আল্লাহ যেন তাদের সবাইকে জান্নাতবাসী করেন।

এ উপলক্ষ্যে সোমবার আজারবাইজানে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়। দেশবাসী বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে কারাবাখে তাদের বিজয় দিবসটি উদযাপন করে।

ছয় সপ্তাহের যুদ্ধে প্রতিবেশী আর্মেনিয়াকে ২০২০ সালের ৮ নভেম্বর পরাজিত করে ৩০ বছর পর কারাবাখ অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করে আজারবাইজান।

২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে নাগোরনো-কারাবাখ নিয়ে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে ওই ছয় সপ্তাহব্যাপী যুদ্ধ চলে। পরে রাশিয়ার মধ্যস্থতায় দেশ দুটি শান্তিচুক্তিতে আসে।

যুদ্ধে আজারবাইজানের সেনাবাহিনী ১৯৯০-এর দশকে আর্মেনিয়ার দখলে যাওয়া বেশ কিছু ভূখণ্ড পুনরুদ্ধার করে।  

এতে অত্যাধুনিক ড্রোনসহ সামরিক সহায়তা দিয়ে সাহায্য করে তুরস্ক। এ জন্য আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এর জবাবে এরদোগান বলেছেন, তুরস্ক আর আজারবাইজান দুই দেশ হলেও এক জাতি। আমরা মনেপ্রাণে এক। আমরা একে অপরের ভাই।

আজারবাইজানের পাশাপাশি আঙ্কারায়ও কারাবাখ যুদ্ধ জয়ের প্রথম বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠান হয়। এতে উপস্থিত হন তুরস্কে নিয়োজিত আজারবাইজানের রাষ্ট্রদূত রাশেদ মাম্মাদভ।

তার্কিস-আজারবাইজানি ফ্রেন্ডশিপ কো-অপারেশন অ্যান্ড সলিডারিটি ফাউন্ডেশনসহ আরও কয়েকটি সংস্থা তুরস্কে কারাবাখ বিজয়ের এ বর্ষপূর্তি উদযাপন করে।

এতে আজারবাইজানের রাষ্ট্রদূত রাশেদ মাম্মাদভ বলেন, কারাবাখ যুদ্ধে আমাদের যত ধরনের সহযোগিতার প্রয়োজন ছিল, সবই করেছে তুরস্ক। এ জন্য আমরা তুর্কি ভাইবোনদের কাছে কৃতজ্ঞ। এ বিজয় কেবল আজারবাইজানের নয়, তুরস্কেরও বিজয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাত