এক মাস পর জনসম্মুখে কিম জং উন
jugantor
এক মাস পর জনসম্মুখে কিম জং উন

  অনলাইন ডেস্ক  

১৬ নভেম্বর ২০২১, ২০:২৭:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

এক মাসেরও বেশি সময় পরজনসম্মুখে আসলেনউত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। চীন সীমান্তের কাছে নব নির্মিত একটি শহর পরিদর্শনে যান আলোচিত এই নেতা।

উত্তর কোরিয়ার উত্তরাঞ্চলের আলপাইন শহর বাণিজ্যিক শহরে ঢেলে সাজানো হচ্ছে।কর্মকর্তারা এটিকে বলছেন, ‘সমাজতান্ত্রিক ইউটোপিয়া’। এই শহরে নতুন অ্যাপার্টমেন্ট, হোটেল, রিসোর্টসহ বাণিজ্যিক, সাংস্কৃতিক ও চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা থাকবে ।

কিম জং-উনের পরিবার শহরটিকে একটি পবিত্র পর্বত হিসেবে মনে করে। এটি তার পরিবারের শিকড় বলে দাবি করা হয়। ২০১৮ সাল থেকে এখন পর্যন্ত একাধিকবার পর্বতটি পরিদর্শন করেছেন কিম জং-উন।

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম কেসিএনএ-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনা মহামারি ও আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার কারণে শহরটি ঢেলে সাজানোর কাজ থেমে যায়। এ বছরই কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে। মূলত এটির ডিজাইন এবং তৃতীয় ও শেষ ধাপের কাজ দেখতেই কিম জং উন সেখানে যান।

তবে কবে কিম শহর পরিদর্শনে বের হয়েছেন তা স্পষ্ট করেনি কেসিএনএ। ৩৫ দিন আগে কিম জং উন এক প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম প্রদর্শন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রেখেছিলেন। ২০১৪ সালের পর এবারই দীর্ঘদিন ধরে গোপনীয়তা রক্ষা করে চলেন এই নেতা। প্রায়ই হদিস না মেলা কিম জং উনের স্বাস্থ্যের বিষয়টি নিয়ে নানা আলোচনার জন্ম দেয়।

এক মাস পর জনসম্মুখে কিম জং উন

 অনলাইন ডেস্ক 
১৬ নভেম্বর ২০২১, ০৮:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

এক মাসেরও বেশি সময় পর জনসম্মুখে আসলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। চীন সীমান্তের কাছে নব নির্মিত একটি শহর পরিদর্শনে যান আলোচিত এই নেতা।

উত্তর কোরিয়ার উত্তরাঞ্চলের আলপাইন শহর বাণিজ্যিক শহরে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। কর্মকর্তারা এটিকে বলছেন, ‘সমাজতান্ত্রিক ইউটোপিয়া’। এই শহরে নতুন অ্যাপার্টমেন্ট, হোটেল, রিসোর্টসহ বাণিজ্যিক, সাংস্কৃতিক ও চিকিৎসার যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা থাকবে । 

কিম জং-উনের পরিবার শহরটিকে একটি পবিত্র পর্বত হিসেবে মনে করে। এটি তার পরিবারের শিকড় বলে দাবি করা হয়। ২০১৮ সাল থেকে এখন পর্যন্ত একাধিকবার পর্বতটি পরিদর্শন করেছেন কিম জং-উন।

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম কেসিএনএ-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনা মহামারি ও আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার কারণে শহরটি ঢেলে সাজানোর কাজ থেমে যায়। এ বছরই কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে। মূলত এটির ডিজাইন এবং তৃতীয় ও শেষ ধাপের কাজ দেখতেই কিম জং উন সেখানে যান।

তবে কবে কিম শহর পরিদর্শনে বের হয়েছেন তা স্পষ্ট করেনি কেসিএনএ। ৩৫ দিন আগে কিম জং উন এক প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম প্রদর্শন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রেখেছিলেন। ২০১৪ সালের পর এবারই দীর্ঘদিন ধরে গোপনীয়তা রক্ষা করে চলেন এই নেতা। প্রায়ই হদিস না মেলা কিম জং উনের স্বাস্থ্যের বিষয়টি নিয়ে নানা আলোচনার জন্ম দেয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন