জান্তার ওপর ‘হামলার পরিকল্পনাকারী’ গ্রেফতার
jugantor
জান্তার ওপর ‘হামলার পরিকল্পনাকারী’ গ্রেফতার

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৯ নভেম্বর ২০২১, ২১:৫৪:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

মিয়ানমারের ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসি দলের সাবেক আইনপ্রণেতা উ ফিও জেয়া থাও (৪০) গ্রেফতার করেছে দেশটির জান্তা সরকার। রাজধানী ইয়াঙ্গুনের উপকণ্ঠে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে শুক্রবার জান্তার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

তাকে সামরিক বাহিনী ও কর্মকর্তাদের ওপর চালানো একাধিক হামলার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে মনে করা হয়। গত আগস্টে কমিউটার ট্রেনে হামলার ঘটনায়ও তার সংশ্লিষ্টতা ছিল। ওই হামলায় পাঁচজন নিহত হন।

প্রায় মাসব্যাপী অভিযানের পর ৪০ বছর বসয়ী ওই সাবেক আইনপ্রণেতাকে গ্রেফতার করা হয়।

সাম্প্রতিক সময়ে ইয়াঙ্গুনে জান্তা সেনাদের ওপর চালানো বেশ কয়েকটি হামলা এবং স্থানীয় বেসামরিক নাগরিকদের জান্তার বিরুদ্ধে উসকে দেওয়ার অভিযোগও আছে তার বিরুদ্ধে।

আইনপ্রণেতা ছাড়াও সংগীত শিল্পী হিসেবেও জেয়া থাও পরিচিত। আক্রমণাত্মক গানের কারণে আগের জান্তা সরকারও তার ওপর নাখোশ ছিল। সেই বিরূপ মনোভাবের জের ধরে ২০০৮ সালে তাকে কারাদণ্ডও দেওয়া হয়। তবে এবার তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়, তিনি বেআইনি একটি সংস্থার সদস্য ও তার কাছে বিদেশি মুদ্রা ছিল। ২০১৫ সালে সুচির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) থেকে পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হন তিনি ।

জান্তার ওপর ‘হামলার পরিকল্পনাকারী’ গ্রেফতার

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ নভেম্বর ২০২১, ০৯:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মিয়ানমারের ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসি দলের সাবেক আইনপ্রণেতা উ ফিও জেয়া থাও (৪০) গ্রেফতার করেছে দেশটির জান্তা সরকার। রাজধানী ইয়াঙ্গুনের উপকণ্ঠে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে শুক্রবার জান্তার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।  

তাকে সামরিক বাহিনী ও কর্মকর্তাদের ওপর চালানো একাধিক হামলার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে মনে করা হয়। গত আগস্টে কমিউটার ট্রেনে হামলার ঘটনায়ও তার সংশ্লিষ্টতা ছিল। ওই হামলায় পাঁচজন নিহত হন।

প্রায় মাসব্যাপী অভিযানের পর ৪০ বছর বসয়ী ওই সাবেক আইনপ্রণেতাকে গ্রেফতার করা হয়। 

সাম্প্রতিক সময়ে ইয়াঙ্গুনে জান্তা সেনাদের ওপর চালানো বেশ কয়েকটি হামলা এবং স্থানীয় বেসামরিক নাগরিকদের জান্তার বিরুদ্ধে উসকে দেওয়ার অভিযোগও আছে তার বিরুদ্ধে। 

আইনপ্রণেতা ছাড়াও সংগীত শিল্পী হিসেবেও জেয়া থাও পরিচিত। আক্রমণাত্মক গানের কারণে আগের জান্তা সরকারও তার ওপর নাখোশ ছিল। সেই বিরূপ মনোভাবের জের ধরে ২০০৮ সালে তাকে কারাদণ্ডও দেওয়া হয়। তবে এবার তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়, তিনি বেআইনি একটি সংস্থার সদস্য ও তার কাছে বিদেশি মুদ্রা ছিল। ২০১৫ সালে সুচির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) থেকে পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হন  তিনি ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন