কাঁকড়ার দখলে পুরো দ্বীপ, বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে রাস্তাও (ভিডিও)
jugantor
কাঁকড়ার দখলে পুরো দ্বীপ, বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে রাস্তাও (ভিডিও)

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক  

২৪ নভেম্বর ২০২১, ১৫:২৬:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

কাঁকড়ার দখলে পুরো দ্বীপ, বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে রাস্তাও (ভিডিও)

বৃষ্টির মৌসুম শুরু হয়েছে অস্টেলিয়ায়। আর এই মৌসুমে কাঁকড়াদের দখলে চলে যায় দেশটির ক্রিসমাস দ্বীপটি। এ সময়ে দ্বীপের পুরো এলাকাজুড়েই দেখা মেলে লাখ লাখ উজ্জ্বল লাল কাঁকড়া। আর তাদের সংরক্ষণ ও সুরক্ষায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সেখানকার রাস্তাও।

কাঁকড়াদের দলে বড় পুরুষ কাঁকড়া নেতৃত্ব দেয় ও নারী কাঁকড়ারা তা অনুসরণ করে। তারা জঙ্গল থেকে বের হয়ে ভারত মহাসাগরের দিকে স্থানান্তরিত হয়ে পানির কাছাকাছি গিয়ে সঙ্গম করে। এ সময় তারা একসঙ্গে দলবেঁধে শহরের মধ্য দিয়ে যায়। আর রাস্তায় তাদের জন্য করে দেওয়া হয়েছে বিশেষভাবে তৈরি কাঁকড়া সেতু। সেই সেতু অতিক্রম ছাড়াও গন্তব্যে যাওয়ার জন্য তাদের পথের প্রায় সব কিছু ঢেকে দেয়।

এ জন্য তাদের সংরক্ষণ ও সুরক্ষা দিতে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে দেশটি। অস্ট্রেলিয়ান সরকারের মতে, প্রায় ৫ কোটি লাল কাঁকড়া দ্বীপটিতে বাস করে। এটি বিশ্বের একমাত্র জায়গা যেখানে তাদের পাওয়া যায়।

কাকড়াদেঁর এ অভিযানের ঘটনাটি প্রতি বছর ঘটে। এটি চাঁদের পরিক্রমার ওপরে নির্ভর করে। পার্ক অস্ট্রেলিয়ার মতে, অভিযনের ঘটনাটি পৃথিবীর সবচেয়ে অবিশ্বাস্য প্রাকৃতিক প্রক্রিয়াগুলোর মধ্যে একটি।

রঙিন কাঁকড়াদের স্থানান্তরের এ ঘটনাটি সাধারণত অক্টোবর ও নভেম্বরের মধ্যে পড়ে। কাঁকড়াদের উপকূলের দিকে যাত্রায় তাদের রক্ষা করতে পুরো দ্বীপের কয়েক কিলোমিটারজুড়ে অস্থায়ী বাধা, খাড়া চিহ্ন এবং রাস্তা বন্ধ করা হয়।

তথ্যসূত্র: দি ওয়াশিংটন পোস্ট, বিবিসি

কাঁকড়ার দখলে পুরো দ্বীপ, বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে রাস্তাও (ভিডিও)

 আন্তর্জাতিক ডেস্ক 
২৪ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কাঁকড়ার দখলে পুরো দ্বীপ, বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে রাস্তাও (ভিডিও)
ছবি: সংগৃহীত

বৃষ্টির মৌসুম শুরু হয়েছে অস্টেলিয়ায়। আর এই মৌসুমে কাঁকড়াদের দখলে চলে যায় দেশটির ক্রিসমাস দ্বীপটি। এ সময়ে দ্বীপের পুরো এলাকাজুড়েই দেখা মেলে লাখ লাখ উজ্জ্বল লাল কাঁকড়া। আর তাদের সংরক্ষণ ও সুরক্ষায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সেখানকার রাস্তাও।

কাঁকড়াদের দলে বড় পুরুষ কাঁকড়া নেতৃত্ব দেয় ও নারী কাঁকড়ারা তা অনুসরণ করে। তারা জঙ্গল থেকে বের হয়ে ভারত মহাসাগরের দিকে স্থানান্তরিত হয়ে পানির কাছাকাছি গিয়ে সঙ্গম করে। এ সময় তারা একসঙ্গে দলবেঁধে শহরের মধ্য দিয়ে যায়। আর রাস্তায় তাদের জন্য করে দেওয়া হয়েছে বিশেষভাবে তৈরি কাঁকড়া সেতু। সেই সেতু অতিক্রম ছাড়াও গন্তব্যে যাওয়ার জন্য তাদের পথের প্রায় সব কিছু ঢেকে দেয়।

এ জন্য তাদের সংরক্ষণ ও সুরক্ষা দিতে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে দেশটি। অস্ট্রেলিয়ান সরকারের মতে, প্রায় ৫ কোটি লাল কাঁকড়া দ্বীপটিতে বাস করে। এটি বিশ্বের একমাত্র জায়গা যেখানে তাদের পাওয়া যায়।

কাকড়াদেঁর এ অভিযানের ঘটনাটি প্রতি বছর ঘটে। এটি চাঁদের পরিক্রমার ওপরে নির্ভর করে।  পার্ক অস্ট্রেলিয়ার মতে, অভিযনের ঘটনাটি পৃথিবীর সবচেয়ে অবিশ্বাস্য প্রাকৃতিক প্রক্রিয়াগুলোর মধ্যে একটি।

রঙিন কাঁকড়াদের স্থানান্তরের এ ঘটনাটি সাধারণত অক্টোবর ও নভেম্বরের মধ্যে পড়ে। কাঁকড়াদের উপকূলের দিকে যাত্রায় তাদের রক্ষা করতে পুরো দ্বীপের কয়েক কিলোমিটারজুড়ে অস্থায়ী বাধা, খাড়া চিহ্ন এবং রাস্তা বন্ধ করা হয়।

তথ্যসূত্র: দি ওয়াশিংটন পোস্ট, বিবিসি

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন