বিয়েবাড়ির বাজনায় মুরগির মৃত্যু, পুলিশে অভিযোগ!
jugantor
বিয়েবাড়ির বাজনায় মুরগির মৃত্যু, পুলিশে অভিযোগ!

  অনলাইন ডেস্ক  

২৫ নভেম্বর ২০২১, ১০:০২:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

বিয়েতে উচ্চশব্দে গানবাজনা নিয়ে প্রতিবেশীরা প্রায়ই অভিযোগ করে থাকেন। কিন্তু এসব অভিযোগকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে মাঝরাত অবধি বিয়ে বাড়িতে বাজতে থাকে উচ্চশব্দে বাজনা। অসুবিধা হলেও দুয়েক দিনের ব্যাপার মনে করে প্রতিবেশীরা বিষয়টি মেনেই নেন।

কিন্তু এই গানবাজনার কারণে মুরগির মৃত্যু হওয়ায় শেষমেষ পুলিশে অভিযোগ করে বসলেন এক যুবক। বুধবার গালফ নিউজ এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ উড়িষ্যার বাসিন্দা রঞ্জিত কুমার পারিদা জানান, স্থানীয় সময় রোববার মাঝরাতে পাশের বিয়ে বাড়িতে ‘কান ফাটানো’ শব্দে গান বাজতে শুরু করে।

বার্তা সংস্থা এএফপিকে তিনি বলেন, প্রচণ্ড জোরে শব্দ হওয়ায় তার পোল্ট্রি ফার্মের মুরগিগুলো আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। তিনি বিয়ে বাড়িতে গিয়ে শব্দ একটু কমিয়ে দিতে অনুরোধ করেন। কিন্তু তারা সেই অনুরোধে কান তো দেয়ই না, উল্টো বরের বন্ধু তাকে ধমক দেন।পরে প্রচণ্ড আওয়াজে তার পোল্ট্রি ফার্মের ৬৩ মুরগি একসঙ্গে মারা যায়।

এক প্রাণী চিকিৎসক তাকে জানিয়েছেন, প্রচণ্ড শব্দের ফলেমুরগিগুলো হার্ট অ্যার্টাকে মারা যায়। এ ঘটনার পর রঞ্জিত বিয়ে বাড়িতে গিয়ে ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। কিন্তু তারা সেই দাবি না মানায় পুলিশে গিয়ে অভিযোগ করেন রঞ্জিত।

অবশ্য শেষমেষ অবশ্য পুলিশি হস্তক্ষেপে বিষয়টি সুরাহা হয়। বরের বাড়ির সদস্যরা রঞ্জিতকে ক্ষতিপূরণ দিতে রাজি হন।

বিয়েবাড়ির বাজনায় মুরগির মৃত্যু, পুলিশে অভিযোগ!

 অনলাইন ডেস্ক 
২৫ নভেম্বর ২০২১, ১০:০২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বিয়েতে উচ্চশব্দে গানবাজনা নিয়ে প্রতিবেশীরা প্রায়ই অভিযোগ করে থাকেন। কিন্তু এসব অভিযোগকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে মাঝরাত অবধি বিয়ে বাড়িতে বাজতে থাকে উচ্চশব্দে বাজনা। অসুবিধা হলেও দুয়েক দিনের ব্যাপার মনে করে প্রতিবেশীরা বিষয়টি মেনেই নেন।

কিন্তু এই গানবাজনার কারণে মুরগির মৃত্যু হওয়ায় শেষমেষ পুলিশে অভিযোগ করে বসলেন এক যুবক। বুধবার গালফ নিউজ এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ উড়িষ্যার বাসিন্দা রঞ্জিত কুমার পারিদা জানান, স্থানীয় সময় রোববার মাঝরাতে পাশের বিয়ে বাড়িতে ‘কান ফাটানো’ শব্দে গান বাজতে শুরু করে। 

বার্তা সংস্থা এএফপিকে তিনি বলেন, প্রচণ্ড জোরে শব্দ হওয়ায় তার পোল্ট্রি ফার্মের মুরগিগুলো আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। তিনি বিয়ে বাড়িতে গিয়ে শব্দ একটু কমিয়ে দিতে অনুরোধ করেন। কিন্তু তারা সেই অনুরোধে কান তো দেয়ই না, উল্টো বরের বন্ধু তাকে ধমক দেন। পরে প্রচণ্ড আওয়াজে তার পোল্ট্রি ফার্মের ৬৩ মুরগি একসঙ্গে মারা যায়।

এক প্রাণী চিকিৎসক তাকে জানিয়েছেন, প্রচণ্ড শব্দের ফলে মুরগিগুলো হার্ট অ্যার্টাকে মারা যায়। এ ঘটনার পর রঞ্জিত বিয়ে বাড়িতে গিয়ে ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। কিন্তু তারা সেই দাবি না মানায় পুলিশে গিয়ে অভিযোগ করেন রঞ্জিত।

অবশ্য শেষমেষ অবশ্য পুলিশি হস্তক্ষেপে বিষয়টি সুরাহা হয়। বরের বাড়ির সদস্যরা রঞ্জিতকে ক্ষতিপূরণ দিতে রাজি হন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন