রাশিয়ায় ভয়াবহ খনি দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫২
jugantor
রাশিয়ায় ভয়াবহ খনি দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫২

  অনলাইন ডেস্ক  

২৬ নভেম্বর ২০২১, ২০:৫৬:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার খুজবাস এলাকার ছোট শহর বেলোভোর লিস্টভিয়াজনায়া-তে কয়লা খনি দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫২ জনে দাঁড়িয়েছে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার ভেন্টিলেশন শ্যাফটে কয়লাতে আগুন লেগে ঘটনার সূত্রপাত হয়। পরে সাইবেরিয়া অঞ্চলের খনিটি ধোঁয়ায় ভরে যায় এবং ১১ জনের মৃত্যু হয়।

রাশিয়ার খুজবাস এলাকা সাইবেরিয়ায় অবস্থিত। রাজধানী মস্কো থেকে এটা ৩ হাজার কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত। অঞ্চলটি বিপুল পরিমাণ কয়লা মজুতের জন্য পরিচিত।

দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ৪৯ জনকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাদের কয়েকজনের ধোঁয়ায় বিষক্রিয়া হয়েছে। এরমধ্যে ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল।

কিন্তু প্রাথমিক ঘটনার পর কয়েক ডজন খনি শ্রমিক বের হতে পারেননি। তাদের উদ্ধারে অভিযান শুরু হলেও বিপজ্জনক মাত্রায় মিথেন শনাক্ত হওয়ার পর উদ্ধার কাজ স্থগিত করতে হয়। ফলে বিস্ফোরণের আশঙ্কা দেখা দেয়। তবে, উদ্ধারকারীদের একটি দল তখনো খনি থেকে বেরিয়ে আসতে ব্যর্থ হয়। পরে ৩ উদ্ধারকারীর মরদেহ পাওয়া যায়। ফলে, গতকাল রাত পর্যন্ত সরকারিভাবে মৃতের সংখ্যা ১৪ জন বলে জানানো হয়।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে বেশ কয়েকটি সূত্র রাশিয়ার গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, কোনো জীবিত শ্রমিককে খুঁজে পাওয়া যায়নি এবং মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫০ ছাড়িয়েছে। তাদের মধ্যে মোট ৬ জন উদ্ধারকারী।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিরাপত্তা ব্যর্থতার অভিযোগে খনি পরিচালকসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

২০১৬ সালে রাশিয়ান কর্তৃপক্ষ দেশের ৫৮টি কয়লা খনির নিরাপত্তা মূল্যায়ন করে এবং ৩৪ শতাংশ খনিকে অনিরাপদ বলে ঘোষণা করে। তবে, সেই তালিকায় লিস্টভিয়াজনায়া খনি অন্তর্ভুক্ত ছিল না বলে একাধিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এই দুর্ঘটনাকে 'দুঃখজনক ঘটনা' হিসেবে অভিহিত করেছেন।

রাশিয়ায় ভয়াবহ খনি দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫২

 অনলাইন ডেস্ক 
২৬ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার খুজবাস এলাকার ছোট শহর বেলোভোর লিস্টভিয়াজনায়া-তে কয়লা খনি দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫২ জনে দাঁড়িয়েছে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার ভেন্টিলেশন শ্যাফটে কয়লাতে আগুন লেগে ঘটনার সূত্রপাত হয়। পরে সাইবেরিয়া অঞ্চলের খনিটি ধোঁয়ায় ভরে যায় এবং ১১ জনের মৃত্যু হয়।

রাশিয়ার খুজবাস এলাকা সাইবেরিয়ায় অবস্থিত। রাজধানী মস্কো থেকে এটা ৩ হাজার কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত। অঞ্চলটি বিপুল পরিমাণ কয়লা মজুতের জন্য পরিচিত।

দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ৪৯ জনকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাদের কয়েকজনের ধোঁয়ায় বিষক্রিয়া হয়েছে। এরমধ্যে ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল।

কিন্তু প্রাথমিক ঘটনার পর কয়েক ডজন খনি শ্রমিক বের হতে পারেননি। তাদের উদ্ধারে অভিযান শুরু হলেও বিপজ্জনক মাত্রায় মিথেন শনাক্ত হওয়ার পর উদ্ধার কাজ স্থগিত করতে হয়। ফলে বিস্ফোরণের আশঙ্কা দেখা দেয়। তবে, উদ্ধারকারীদের একটি দল তখনো খনি থেকে বেরিয়ে আসতে ব্যর্থ হয়। পরে ৩ উদ্ধারকারীর মরদেহ পাওয়া যায়। ফলে, গতকাল রাত পর্যন্ত সরকারিভাবে মৃতের সংখ্যা ১৪ জন বলে জানানো হয়।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাতে বেশ কয়েকটি সূত্র রাশিয়ার গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, কোনো জীবিত শ্রমিককে খুঁজে পাওয়া যায়নি এবং মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫০ ছাড়িয়েছে। তাদের মধ্যে মোট ৬ জন উদ্ধারকারী।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিরাপত্তা ব্যর্থতার অভিযোগে খনি পরিচালকসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

২০১৬ সালে রাশিয়ান কর্তৃপক্ষ দেশের ৫৮টি কয়লা খনির নিরাপত্তা মূল্যায়ন করে এবং ৩৪ শতাংশ খনিকে অনিরাপদ বলে ঘোষণা করে। তবে, সেই তালিকায় লিস্টভিয়াজনায়া খনি অন্তর্ভুক্ত ছিল না বলে একাধিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে। 

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এই দুর্ঘটনাকে 'দুঃখজনক ঘটনা' হিসেবে অভিহিত করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন