চলচ্চিত্রের উন্নয়নে যে উদ্যোগ নিল সৌদি সরকার
jugantor
চলচ্চিত্রের উন্নয়নে যে উদ্যোগ নিল সৌদি সরকার

  অনলাইন ডেস্ক  

৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৭:৩৭:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সৌদি আরবের চলচ্চিত্র খাতের উন্নয়নে নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির ফিল্ম কমিশন। রাজধানী রিয়াদে চলচ্চিত্র ক্ষেত্রে উন্নয়নের জন্য সৌদি আরবের ফিল্ম কমিশনের আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব উদ্যোগের কথা প্রকাশ করা হয় বলে আরব নিউজ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

সৌদি আরবের সংস্কৃতিমন্ত্রী ও কমিশনের চেয়ারম্যান যুবরাজ বদর বিন আবদুল্লাহ বিন ফারহানের পৃষ্ঠপোষকতায় ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে সৌদি চলচ্চিত্র খাত উন্নয়নে ছয়টি কৌশল নিয়ে আলোচনা করা হয়। সেসবের মধ্যে রয়েছে, চলচ্চিত্র ক্ষেত্রে মেধার বিকাশ, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, দেশীয় চলচ্চিত্র উন্নয়ন, বিদেশি চলচ্চিত্রের বিকাশ, নিয়ন্ত্রণ কাঠামো ও চলচ্চিত্র বিতরণ এবং প্রদর্শন সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়।

ফিল্ম কমিশন ১৯টি কৌশলগত উদ্যোগ নিয়ে কাজ করবে বলে জানা গেছে। কমিশনের লক্ষ্য সৌদি চলচ্চিত্র সেক্টরে একটি বৃহৎ আন্দোলন তৈরি করা, চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য একটি অবকাঠামো ঠিক করা এবং সৌদি আরবের নিজস্ব কনটেন্টের ওপর জোর দেওয়া।

প্রসঙ্গত, সৌদি আরবে স্থানীয় কনটেন্টের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। স্থানীয় মেধার পৃষ্টপোষকতা করে চলচ্চিত্র শিল্পের উন্নয়নের লক্ষ্যে সংশ্লিষ্টরা আগে থেকে কাজ করছে। সিনেমার কাহিনী ও দৃশ্যপট দিয়ে সৌদি চলচ্চিত্র বিশ্ব দরবারে সুনাম কুড়াবে বলে মনে করেছেন বিশ্বের চলচ্চিত্র পরিবেশকরা।

২০১৬ সালে প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ‘ভিশন ২০৩০’ ঘোষণা করেন। সামাজিক-অর্থনৈতিক সংস্কারের মাধ্যমে দেশকে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে এগিয়ে নেওয়ার গতিপথ নির্ধারণের সেই ঘোষণার আওতায় চলচ্চিত্র শিল্পকেও গুরুত্ব দেওয়া হয়।

চলচ্চিত্রের উন্নয়নে যে উদ্যোগ নিল সৌদি সরকার

 অনলাইন ডেস্ক 
৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৭:৩৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সৌদি আরবের চলচ্চিত্র খাতের উন্নয়নে নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির ফিল্ম কমিশন। রাজধানী রিয়াদে চলচ্চিত্র ক্ষেত্রে উন্নয়নের জন্য সৌদি আরবের ফিল্ম কমিশনের আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব উদ্যোগের কথা প্রকাশ করা হয় বলে আরব নিউজ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে। 

সৌদি আরবের সংস্কৃতিমন্ত্রী ও কমিশনের চেয়ারম্যান যুবরাজ বদর বিন আবদুল্লাহ বিন ফারহানের পৃষ্ঠপোষকতায় ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে সৌদি চলচ্চিত্র খাত উন্নয়নে ছয়টি কৌশল নিয়ে আলোচনা করা হয়। সেসবের মধ্যে রয়েছে, চলচ্চিত্র ক্ষেত্রে মেধার বিকাশ, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, দেশীয় চলচ্চিত্র উন্নয়ন, বিদেশি চলচ্চিত্রের বিকাশ, নিয়ন্ত্রণ কাঠামো ও চলচ্চিত্র বিতরণ এবং প্রদর্শন সংক্রান্ত  বিভিন্ন বিষয়। 

ফিল্ম কমিশন ১৯টি কৌশলগত উদ্যোগ নিয়ে কাজ করবে বলে জানা গেছে। কমিশনের লক্ষ্য সৌদি চলচ্চিত্র সেক্টরে একটি বৃহৎ আন্দোলন তৈরি করা, চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য একটি অবকাঠামো ঠিক করা এবং সৌদি আরবের নিজস্ব কনটেন্টের ওপর  জোর দেওয়া। 

প্রসঙ্গত, সৌদি আরবে স্থানীয় কনটেন্টের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। স্থানীয় মেধার পৃষ্টপোষকতা করে চলচ্চিত্র শিল্পের উন্নয়নের লক্ষ্যে সংশ্লিষ্টরা আগে থেকে কাজ করছে। সিনেমার কাহিনী ও দৃশ্যপট দিয়ে সৌদি চলচ্চিত্র বিশ্ব দরবারে সুনাম কুড়াবে বলে মনে করেছেন বিশ্বের চলচ্চিত্র পরিবেশকরা। 

২০১৬ সালে প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ‘ভিশন ২০৩০’ ঘোষণা করেন। সামাজিক-অর্থনৈতিক সংস্কারের মাধ্যমে দেশকে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে এগিয়ে নেওয়ার গতিপথ নির্ধারণের সেই ঘোষণার আওতায় চলচ্চিত্র শিল্পকেও গুরুত্ব দেওয়া হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন