দুই বছর পর বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ওড়াতে যাচ্ছে চীন
jugantor
দুই বছর পর বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ওড়াতে যাচ্ছে চীন

  অনলাইন ডেস্ক  

০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২০:৫০:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘ দুই বছর পর বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান ওড়াতে যাচ্ছে চীন। ২০১৯ সালে বড় দুর্ঘটনার পর বিশ্বের একাধিক দেশ এই বিমানের উড্ডয়ন নিষিদ্ধ করে।

চীনের গণমাধ্যমের বরাতে যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম এবিসির খবরে বলা হয়েছে, প্রযুক্তিগত কিছু বিষয় উন্নত করার পর চীনের বিমান নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ওড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তবে যে পাইলটরা এই বিমান চালাবে প্রথমে তাদেরকে প্রশিক্ষণ নিতে হবে।

এবিসির খবরে বলা হয়েছে, চীন হলো সর্বশেষ বড় মার্কেট যেখানে বোয়িং ম্যাক্স ৭৩৭ এর চলাচল অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্র বোয়িংয়ের ফ্লাইটের অনুমোদন দেয়। এরপর চলতি বছরের জানুয়ারিতে ইউরোপীয় ইউনিয়নও ফ্লাইটের অনুমোদন দেয়। পরে ব্রজিল ও কানাডাও এই জাহাজের ফ্লাইটের অনুমোদন দেয়।

২০১৯ সালের মার্চে ইথিওপিয়ান এয়ারলাইনসের ‘বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮’ বিধ্বস্ত হয়ে ১৫৭ আরোহীর সবাই নিহত হন। এর আগে ২০১৮ সালের অক্টোবরে ইন্দোনেশিয়ার লায়ন এয়ারের বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স দুর্ঘটনায় পড়ে নিহত হন ১৮৯ জন।

এরপর বোয়িংয়ের এই মডেলের বিমানের নিরাপত্তা নিয়ে বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ তৈরি হয়। বিভিন্ন দেশে এটির উড্ডয়ন স্থগিত করে। পরে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এই উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জানায়, তারা বিশ্বব্যাপী এই মডেলের ৩৭১টি উড়োজাহাজ তুলে নেবে। দুর্ঘটনার তদন্তকারীরা দুর্ঘটনার জন্য কম্পিউটার বিমানের কম্পিউটার সিস্টেমকে দায়ী করেন।

দুই বছর পর বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ওড়াতে যাচ্ছে চীন

 অনলাইন ডেস্ক 
০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘ দুই বছর পর বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান ওড়াতে যাচ্ছে চীন। ২০১৯ সালে বড় দুর্ঘটনার পর বিশ্বের একাধিক দেশ এই বিমানের উড্ডয়ন নিষিদ্ধ করে।

চীনের গণমাধ্যমের বরাতে যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম এবিসির খবরে বলা হয়েছে, প্রযুক্তিগত কিছু বিষয় উন্নত করার পর চীনের বিমান নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ওড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

তবে যে পাইলটরা এই বিমান চালাবে প্রথমে তাদেরকে প্রশিক্ষণ নিতে হবে। 

এবিসির খবরে বলা হয়েছে, চীন হলো সর্বশেষ বড় মার্কেট যেখানে বোয়িং ম্যাক্স ৭৩৭ এর চলাচল অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্র বোয়িংয়ের ফ্লাইটের অনুমোদন দেয়। এরপর চলতি বছরের জানুয়ারিতে ইউরোপীয় ইউনিয়নও ফ্লাইটের অনুমোদন দেয়। পরে ব্রজিল ও কানাডাও এই জাহাজের ফ্লাইটের অনুমোদন দেয়। 

২০১৯ সালের মার্চে ইথিওপিয়ান এয়ারলাইনসের ‘বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮’ বিধ্বস্ত হয়ে ১৫৭ আরোহীর সবাই নিহত হন। এর আগে ২০১৮ সালের অক্টোবরে ইন্দোনেশিয়ার লায়ন এয়ারের বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স দুর্ঘটনায় পড়ে নিহত হন ১৮৯ জন। 

এরপর বোয়িংয়ের এই মডেলের বিমানের নিরাপত্তা নিয়ে বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ তৈরি হয়। বিভিন্ন দেশে এটির উড্ডয়ন স্থগিত করে। পরে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এই উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জানায়, তারা বিশ্বব্যাপী এই মডেলের ৩৭১টি উড়োজাহাজ তুলে নেবে। দুর্ঘটনার তদন্তকারীরা দুর্ঘটনার জন্য কম্পিউটার বিমানের কম্পিউটার সিস্টেমকে দায়ী করেন। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন