দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার চতুর্থ সংক্রমণ শুরু 
jugantor
দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার চতুর্থ সংক্রমণ শুরু 

  শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে  

০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৩২:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকায় ওমিক্রনের সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার মাধ্যমে দেশটিতে করোনার চতুর্থ সংক্রমণ শুরু হয়েছে। দেশটিতে গত দুই দিনে ২২ হাজার নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার রেকর্ড হয়েছে। এই দুই দিনে মৃত্যু হয়েছে ৬২ জনের। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জো ফাহেলা শুক্রবার সকালে করোনার চতুর্থ সংক্রমণ শুরু হয়েছে বলে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন।

গত সপ্তাহে ওমিক্রন নামের নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের পর এক সপ্তাহের ব্যবধানে গতকাল বৃহস্পতিবার নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে সর্বোচ্চ এগারো হাজার ৫৩৫ জন; যা মোট আক্রান্তের ১১ শতাংশ।

গত দুই মাস ধরে করোনা সংক্রমণের হার ২ শতাংশে নেমে এসেছিল দক্ষিণ আফ্রিকায়; যা গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে ১১ শতাংশে পৌঁছেছে। বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ২৯ লাখ ছাড়িয়েছে। নতুন শনাক্ত হওয়া ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট দেশটির হাউটেং (জোহানেসবার্গ) প্রদেশে সবচেয়ে বেশি আঘাত হেনেছে। ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে শুধুমাত্র জোহানেসবার্গেই ৬ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছেন। নতুন করে সংক্রমণের পরিসংখ্যান অনুযায়ী জোহানেসবার্গে আক্রান্তের হার ৮২ শতাংশ; যেখানে ওয়েস্টার্ন কেপ প্রদেশ ৪ শতাংশ, কোয়াজুলু নাটাল প্রদেশ ৩ শতাংশ, লিম্পুপু প্রদেশ ২ শতাংশ এবং ফ্রি স্টেইট ও ইস্টার্ন কেপ, নদার্ন কেপ ও নর্থ ওয়েস্ট প্রদেশ যথাক্রমে ১ শতাংশ সংক্রমণে স্থির রয়েছে।

এদিকে ওমিক্রন সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আতঙ্কে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। বলতে গেলে বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে।

দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার চতুর্থ সংক্রমণ শুরু 

 শওকত বিন আশরাফ, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে 
০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৩২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দক্ষিণ আফ্রিকায় ওমিক্রনের সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার মাধ্যমে দেশটিতে করোনার চতুর্থ সংক্রমণ শুরু হয়েছে। দেশটিতে গত দুই দিনে ২২ হাজার নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার রেকর্ড হয়েছে। এই দুই দিনে মৃত্যু হয়েছে ৬২ জনের। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জো ফাহেলা শুক্রবার সকালে করোনার চতুর্থ সংক্রমণ শুরু হয়েছে বলে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছেন। 
 
গত সপ্তাহে ওমিক্রন নামের নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের পর এক সপ্তাহের ব্যবধানে গতকাল বৃহস্পতিবার নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে সর্বোচ্চ এগারো হাজার ৫৩৫ জন; যা মোট আক্রান্তের ১১ শতাংশ। 

গত দুই মাস ধরে করোনা সংক্রমণের হার ২ শতাংশে নেমে এসেছিল দক্ষিণ আফ্রিকায়; যা গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে ১১ শতাংশে পৌঁছেছে। বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ২৯ লাখ ছাড়িয়েছে। নতুন শনাক্ত হওয়া ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট দেশটির হাউটেং (জোহানেসবার্গ) প্রদেশে সবচেয়ে বেশি আঘাত হেনেছে। ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে শুধুমাত্র জোহানেসবার্গেই ৬ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছেন। নতুন করে সংক্রমণের পরিসংখ্যান অনুযায়ী জোহানেসবার্গে আক্রান্তের হার ৮২ শতাংশ; যেখানে ওয়েস্টার্ন কেপ প্রদেশ ৪ শতাংশ, কোয়াজুলু নাটাল প্রদেশ ৩ শতাংশ, লিম্পুপু প্রদেশ ২ শতাংশ এবং ফ্রি স্টেইট ও ইস্টার্ন কেপ, নদার্ন কেপ ও নর্থ ওয়েস্ট প্রদেশ যথাক্রমে ১ শতাংশ সংক্রমণে স্থির রয়েছে। 

এদিকে ওমিক্রন সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আতঙ্কে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। বলতে গেলে বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন