নাজিব রাজাকের তিন অ্যাপার্টমেন্টে তল্লাশি

৭২ ব্যাগ গহনা, ২৮৪ বাক্স ভর্তি নামিদামি ব্র্যান্ডের হাতব্যাগ, দামি ঘড়ি এবং বিপুল পরিমাণ রিঙ্গিত ও মার্কিন ডলার জব্দ

  যুগান্তর ডেস্ক ১৯ মে ২০১৮, ০৪:৩৫ | অনলাইন সংস্করণ

রাজাক
ছবি: এএফপি

মালয়েশিয়ার সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের মালিকানাধীন তিনটি অ্যাপার্টমেন্টে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা, গহনা এবং বহু দামি হ্যান্ডব্যাগ জব্দ করেছে দেশটির পুলিশ।

জব্দ করা মালামালের মধ্যে রয়েছে ২৮৪টি বাক্স ভর্তি বিভিন্ন নামিদামি ব্র্যান্ডের হাতব্যাগ, ৭২ ব্যাগ গহনা, অনেকগুলো দামি ঘড়ি এবং বিপুল পরিমাণ মালয়েশীয় মুদ্রা রিঙ্গিত ও মার্কিন ডলার। খবর বিবিসি ও এএফপির।

জাতীয় নির্বাচনে পরাজয়ের এক সপ্তাহ পর গত বুধবার রাত থেকে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, পুত্রজায়ায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন এবং নাজিব পরিবারের মালিকানায় থাকা চারটি আবাসিক ভবনে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার ভোররাতের দিকে রাজধানী কুয়ালালামপুরের জালান রাজা চুলা নামের একটি আবাসিক এলাকার কমপ্লেক্সে ওই অভিযান চালানো হয়। রাষ্ট্রীয় উন্নয়ন তহবিল ওয়ানএমডিবি দুর্নীতি সংশ্লিষ্ট চলমান তদন্তের অংশ হিসেবে এ তল্লাশি চালানো হয় বলে জানায় পুলিশ।

তবে কোনো ধরনের পরোয়ানা ছাড়া নাজিব পরিবারকে হেনস্তা করতে এই অভিযান পরিচালিত হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তার আইনজীবী।

আইনজীবীর ভাষ্য, ‘যেসব জিনিস জব্দ করা হচ্ছে সেগুলো হয়তো তেমন মূল্যবান কিছু নয়। কিন্তু যেভাবে সেটা প্রচার করা হচ্ছে তাতে সবার মনে আমার মক্কেলকে নিয়ে নেতিবাচক ছবি তৈরি হচ্ছে।’

২০০৯ সালে গঠিত রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগ তহবিল ‘ওয়ান মালয়েশিয়া ডেভেলপমেন্ট বরহাদ’ (ওয়ানএমডিবি) থেকে ৭০ কোটি ডলার আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে নাজিবের বিরুদ্ধে। ওয়ানএমডিবি দুর্নীতি কেলেঙ্কারিই চলতি মাসে অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে নাজিবের জোটের ভরাডুবির প্রধান কারণ বলে মনে করা হচ্ছে।

অবশ্য এমন অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছেন নাজিব রাজাক। নাজিবের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালে তদন্ত শুরু হয়। কিন্তু তিনি মাঝপথে তদন্ত থামিয়ে দেন।

পরে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন কর্তৃপক্ষ নাজিবকে অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয়। যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্তত ছয়টি দেশে তার বিরুদ্ধে এখনও দুর্নীতি তদন্ত চলছে।

মালয়েশিয়ার নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণের পরই মাহাথির মোহাম্মদ নাজিবের বিরুদ্ধে আবারও দুর্নীতি তদন্ত শুরুর ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, তার বিশ্বাস আত্মসাৎ হওয়া অর্থ ফিরিয়ে আনা সম্ভব।

নাজিব রাজাক এবং তার স্ত্রীর বিদেশ সফরে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি নাজিবের অফিস, ব্যক্তিগত বাসভবন এবং তার বেশ কিছু অ্যাপার্টমেন্টে অভিযান চালানো হচ্ছে।

শুক্রবার মালয়েশিয়ার দুর্নীতি দমন পুলিশের প্রধান অমর সিং বলেন, অভিযানে তারা ২৮৪টি বাক্স ভর্তি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের দামি হ্যান্ডব্যাগ জব্দ করেছেন।

তিনি বলেন, আমাদের কর্মকর্তারা এসব ব্যাগ পরীক্ষা করে দেখেছেন। ৭২টি ব্যাগের ভেতর থেকে গহনা, দামি ঘড়ি এবং বিপুল পরিমাণ মালয়েশিয়ার রিঙ্গিত ও মার্কিন ডলার জব্দ করা হয়েছে। তবে ঠিক কি পরিমাণ গহনা উদ্ধার করা হয়েছে তা এখনই বলা সম্ভব নয় বলে উল্লেখ করে অমর সিং বলেন, আমরা বাক্স ভর্তি গহনা জব্দ করেছি। তাই এটা বলতে পারি যে, পরিমাণটা অনেক বেশি।

ওয়ানএমডিবি কেলেঙ্কারিতে নাম জড়িয়ে পড়ার পর নাজিবকে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছিলেন মাহাথির।

কিন্তু নাজিব সরে না দাঁড়ানোয় তাকে ক্ষমতা থেকে টেনেহিঁচড়ে নামাতেই ১৫ বছর পর রাজনীতিতে ফেরেন মাহাথির। এক সময়ের চরম প্রতিদ্বন্দ্বী আনোয়ার ইব্রাহিমের সঙ্গে জোট বেঁধে নির্বাচনে জিতে ৯২ বছর বয়সে আবারও প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন।

নির্বাচনে হারের পর ছুটি কাটানোর কথা বলে স্ত্রীসহ দেশত্যাগের উদ্যোগ নিয়েছিলেন নাজিব। কিন্তু গত শনিবার তার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। নাজিব রাজাকের মালিকানাধীন স্থাপনা থেকে গহনা ও বৈদেশিক মুদ্রা জব্দ করা হয়।

ঘটনাপ্রবাহ : মালয়েশিয়ায় নির্বাচন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter