কিংবদন্তি নৃত্যশিল্পী বিরজু মহারাজের প্রয়াণ
jugantor
কিংবদন্তি নৃত্যশিল্পী বিরজু মহারাজের প্রয়াণ

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১০:৪৮:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের কিংবদন্তি কত্থক নৃত্যশিল্পী পণ্ডিত বিরজু মহারাজ আর নেই। রোববার রাতে দিল্লিতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। খবর এনডিটিভির।

বিরজু মহারাজ একাধারে নাচ, তবলা ও সংগীতে সমান পারদর্শী ছিলেন। এমনকি তিনি ছবিও আঁকতেন। তিনি ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার পদ্মভূষণ পেয়েছিলেন।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, কিছু দিন ধরে বিরজু মহারাজ কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। তার ডায়ালাইসিস চলছিল। রোববার তিনি নাতির সঙ্গে খেলা করার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তাকে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

১৯৩৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি ভারতের লক্ষ্মৌর মহারাজ পরিবারে জন্ম হয় বিরজু মহারাজের। তার বাবা অচ্চন মহারাজই ছিলেন তার গুরু। আর তার দুই চাচা শম্ভু মহারাজ এবং লচ্চু মহারাজও ছিলেন কত্থক নাচের প্রখ্যাত শিল্পী।

শাস্ত্রীয় সংগীতের একাধিক ধারার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বিরজু মহারাজ। এ ছাড়া সিনেমায় কোরিওগ্রাফারের কাজও করেছেন তিনি। তিনি ঠুমরি, দাদরা, ভজন, গজলের মতো গানও গেয়েছেন।

কিংবদন্তি নৃত্যশিল্পী বিরজু মহারাজের প্রয়াণ

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১০:৪৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের কিংবদন্তি কত্থক নৃত্যশিল্পী পণ্ডিত বিরজু মহারাজ আর নেই। রোববার রাতে দিল্লিতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। খবর এনডিটিভির।

বিরজু মহারাজ একাধারে নাচ, তবলা ও সংগীতে সমান পারদর্শী ছিলেন। এমনকি তিনি ছবিও আঁকতেন। তিনি ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার পদ্মভূষণ পেয়েছিলেন।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, কিছু দিন ধরে বিরজু মহারাজ কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। তার ডায়ালাইসিস চলছিল। রোববার তিনি নাতির সঙ্গে খেলা করার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তাকে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

১৯৩৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি ভারতের লক্ষ্মৌর মহারাজ পরিবারে জন্ম হয় বিরজু মহারাজের। তার বাবা অচ্চন মহারাজই ছিলেন তার গুরু। আর তার দুই চাচা শম্ভু মহারাজ এবং লচ্চু মহারাজও ছিলেন কত্থক নাচের প্রখ্যাত শিল্পী।

শাস্ত্রীয় সংগীতের একাধিক ধারার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বিরজু মহারাজ। এ ছাড়া সিনেমায় কোরিওগ্রাফারের কাজও করেছেন তিনি। তিনি ঠুমরি, দাদরা, ভজন, গজলের মতো গানও গেয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন