জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে নতুন যে কৌশল নিল মিসর
jugantor
জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে নতুন যে কৌশল নিল মিসর

  অনলাইন ডেস্ক  

১৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:৪৫:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

মিসরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসি কয়েকদিন আগে মন্তব্য করেন, মিসরের সমস্যাগুলোর অন্যতম বড় কারণ হলো জনসংখ্যা।

মিসর মূলত চাইছে দেশটিতে জনসংখ্যা বৃদ্ধির বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে। আর এজন্য নতুন একটি কৌশল প্রয়োগ করতে যাচ্ছে নীল নদের দেশটি।

নতুন কৌশলটি হলো, তিনবারের বেশি মা হওয়ার পর সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করা কোনো নারী মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন না। দেশটির সংসদে রোববার শ্রম আইনে থাকা এ বিষয়টি সংশোধন করা হয়।

এর ফলে কর্মজীবী নারীরা চাইলেও চতুর্থবার মা হতে পারবেন না বা বিষয়টি তাদের জন্য অনেক কঠিন হয়ে যাবে।

তাছাড়া সন্তান জন্ম নেয়ার পর বাবাদের সাতদিনের পিতৃত্বকালীন ছুটি দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছিল। কিন্তু এই প্রস্তাবটি গৃহীত হয়নি।

মিসরের গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, কর্মজীবী নারীরা তাদের পুরো চাকরি জীবনে সব মিলিয়ে ৪ মাস বেতনসহ মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন।

এদিকে মিসরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসি ২০২১ সালের ২২ ডিসেম্বর সরাসরি দেশটির জন্মহার নিয়ে কথা বলেন। তিনি মন্তব্য করেন, প্রত্যেক পরিবারের বোঝা উচিত তারা কিভাবে তাদের সন্তানদের দেখভালো করবেন।

ওইদিনই সিসি ঘোষণা দেন, নববিবাহিতরা সরকারের কাছ থেকে বিনামূল্যে রেশন সুবিধা পাবেন না। সিসির এমন ঘোষণা মিসরে ব্যপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছিল। বিশেষ করে গরিব জনগণের মধ্যে।

সূত্র : দ্য নিউ আরব

জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে নতুন যে কৌশল নিল মিসর

 অনলাইন ডেস্ক 
১৮ জানুয়ারি ২০২২, ০৬:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মিসরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসি কয়েকদিন আগে মন্তব্য করেন, মিসরের সমস্যাগুলোর অন্যতম বড় কারণ হলো জনসংখ্যা।

মিসর মূলত চাইছে দেশটিতে জনসংখ্যা বৃদ্ধির বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে। আর এজন্য নতুন একটি কৌশল প্রয়োগ করতে যাচ্ছে নীল নদের দেশটি। 

নতুন কৌশলটি হলো, তিনবারের বেশি মা হওয়ার পর সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করা কোনো নারী মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন না। দেশটির সংসদে রোববার শ্রম আইনে থাকা এ বিষয়টি সংশোধন করা হয়। 

এর ফলে কর্মজীবী নারীরা চাইলেও চতুর্থবার মা হতে পারবেন না বা বিষয়টি তাদের জন্য অনেক কঠিন হয়ে যাবে।

তাছাড়া সন্তান জন্ম নেয়ার পর বাবাদের সাতদিনের পিতৃত্বকালীন ছুটি দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছিল। কিন্তু এই প্রস্তাবটি গৃহীত হয়নি। 

মিসরের গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, কর্মজীবী নারীরা তাদের পুরো চাকরি জীবনে সব মিলিয়ে ৪ মাস বেতনসহ মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন।

এদিকে মিসরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসি ২০২১ সালের ২২ ডিসেম্বর সরাসরি দেশটির জন্মহার নিয়ে কথা বলেন। তিনি মন্তব্য করেন, প্রত্যেক পরিবারের বোঝা উচিত তারা কিভাবে তাদের সন্তানদের দেখভালো করবেন। 

ওইদিনই সিসি ঘোষণা দেন, নববিবাহিতরা সরকারের কাছ থেকে বিনামূল্যে রেশন সুবিধা পাবেন না। সিসির এমন ঘোষণা মিসরে ব্যপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছিল। বিশেষ করে গরিব জনগণের মধ্যে। 

সূত্র : দ্য নিউ আরব

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন