কাজাখস্তানে সহিংসতার কারণ জানালেন প্রেসিডেন্ট তোকায়েভ
jugantor
কাজাখস্তানে সহিংসতার কারণ জানালেন প্রেসিডেন্ট তোকায়েভ

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ জানুয়ারি ২০২২, ২২:৪৫:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

কাজাখস্তানের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, জানুয়ারির শুরুতে দেশটিতে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে, ধনী এবং দরিদ্রের মধ্যে ব্যবধানের কারণে।

শুক্রবার বৈশ্বিক ব্যবসায়িক প্রতিনিধিদের সঙ্গেএক বৈঠকে প্রেসিডেন্ট কাসিম জোমার্ট তোকায়েভ বলেন, বছরের পর বছর সমস্যা পুঞ্জীভূত হয়ে এই দাঙ্গা হয়েছে।

কাজাখস্তানের এই প্রেসিডেন্ট বলেন, ধনী এবং দরিদ্রের মধ্যে ব্যবধান একটি অগ্রহণযোগ্য পর্যায়ে পৌঁছেছে।দেশে দাঙ্গা সামাজিক বৈষম্য থেকে উদ্ভূত হয়েছে। আরসন্ত্রাসীরাএবংষড়যন্ত্রকারীরা এই সুযাগ ব্যবহার করেছে।

আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থাগুলির দাবির সত্যতা নিশ্চিত করে প্রেসিডেন্ট তোকায়েভবলেন, ১৬২ ব্যক্তি কাজাখস্তানের অর্ধেক সম্পদের মালিক। এই পরিস্থিতি জরুরিভাবে পরিবর্তন করা দরকার।

প্রেসিডেন্ট তোকায়েভদেশে রাজনৈতিক পরিবর্তনের নীতি অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন,সংস্কারের দিক স্পষ্ট। আমি সমাজের আধুনিকায়ন এবং রাজনৈতিক পরিবর্তনের নীতি অব্যাহত রাখব। এটি হবে সামাজিক ফোকাসসহ একটি বৈচিত্র্যময় অর্থনীতি তথা মুক্ত বাজারে রূপান্তর।

২ জানুয়ারি কাজাখস্তানে মাঙ্গিস্তাউ অঞ্চলের ঝানাওজেন শহরে জ্বালানীর দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়। এই ঘটনা পরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে পরিণত হয়। কাজাখস্তানের পূর্বেররাজধানী এবং বৃহত্তম শহর আলমাতিতে সবচেয়ে সহিংস ঘটনা ঘটে।

প্রেসিডেন্ট তোকায়েভকে সাহায্যের জন্য রাশিয়া আড়াই হাজার সেনা পাঠায়। ধীরে ধীরে দেশের পরিস্থিতি উন্নত হয়।

কাজাখস্তানে সহিংসতার কারণ জানালেন প্রেসিডেন্ট তোকায়েভ

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ জানুয়ারি ২০২২, ১০:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কাজাখস্তানের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, জানুয়ারির শুরুতে দেশটিতে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে, ধনী এবং দরিদ্রের মধ্যে ব্যবধানের কারণে। 

শুক্রবার বৈশ্বিক ব্যবসায়িক প্রতিনিধিদের সঙ্গে এক বৈঠকে প্রেসিডেন্ট কাসিম জোমার্ট তোকায়েভ বলেন, বছরের পর বছর সমস্যা পুঞ্জীভূত হয়ে এই দাঙ্গা হয়েছে। 

কাজাখস্তানের এই প্রেসিডেন্ট বলেন, ধনী এবং দরিদ্রের মধ্যে ব্যবধান একটি অগ্রহণযোগ্য পর্যায়ে পৌঁছেছে। দেশে দাঙ্গা সামাজিক বৈষম্য থেকে উদ্ভূত হয়েছে। আর সন্ত্রাসীরা এবং ষড়যন্ত্রকারীরা এই সুযাগ ব্যবহার করেছে। 

আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থাগুলির দাবির সত্যতা নিশ্চিত করে প্রেসিডেন্ট তোকায়েভ বলেন, ১৬২ ব্যক্তি কাজাখস্তানের অর্ধেক সম্পদের মালিক। এই পরিস্থিতি জরুরিভাবে পরিবর্তন করা দরকার।  

প্রেসিডেন্ট তোকায়েভ দেশে রাজনৈতিক পরিবর্তনের নীতি অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, সংস্কারের দিক স্পষ্ট। আমি সমাজের আধুনিকায়ন এবং রাজনৈতিক পরিবর্তনের নীতি অব্যাহত রাখব। এটি হবে সামাজিক ফোকাসসহ একটি বৈচিত্র্যময় অর্থনীতি তথা মুক্ত বাজারে রূপান্তর। 

২ জানুয়ারি  কাজাখস্তানে মাঙ্গিস্তাউ অঞ্চলের ঝানাওজেন শহরে জ্বালানীর দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়। এই ঘটনা পরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে পরিণত হয়। কাজাখস্তানের পূর্বের রাজধানী এবং বৃহত্তম শহর আলমাতিতে সবচেয়ে সহিংস ঘটনা ঘটে। 

প্রেসিডেন্ট তোকায়েভকে সাহায্যের জন্য রাশিয়া আড়াই হাজার সেনা পাঠায়। ধীরে ধীরে দেশের পরিস্থিতি উন্নত হয়। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর