ভারত মহাসাগরে চীন-ইরান-রাশিয়ার যৌথ মহড়া শুরু
jugantor
ভারত মহাসাগরে চীন-ইরান-রাশিয়ার যৌথ মহড়া শুরু

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ জানুয়ারি ২০২২, ২৩:৪১:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরান, রাশিয়া এবং চীন যৌথ নৌ এবং আকাশ মহড়া শুরু করেছে। সামুদ্রিক জলদস্যুতা মোকাবেলায় তিন দেশ মিলে শুক্রবার ভারত মহাসাগরে তারা এই মহড়া শুরু করে।

ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইরনা জানিয়েছে, ২০২২ মেরিন সিকিউরিটি বেল্ট নামের এ মহড়ায় ইরান, রাশিয়া ও চীনের মেরিন এবং এয়ারবোর্ন ইউনিট অংশ নিচ্ছে।

মহড়ার মুখপাত্র রিয়ার এডমিরাল মোস্তফা তাজউদ্দিনি জানান, ইরান, রাশিয়া ও চীনের অংশগ্রহণে এটি তৃতীয় মহড়া এবং ভবিষ্যতেও এমন মহড়া অব্যাহত থাকবে। মহড়ার মূল স্লোগান ‘শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য ঐক্য’ যা সমুদ্রের ১৭ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকাজুড়ে অনুষ্ঠিত হবে।

রিয়ার অ্যাডমিরাল তাজউদ্দিনি জানান, এই মহড়ার লক্ষ্য হচ্ছে আঞ্চলিক নিরাপত্তা জোরদার করা এবং তিন দেশের মধ্যে বহুপক্ষীয় সহযোগিতা প্রতিষ্ঠা করা। এছাড়া, বিশ্ব শান্তি এবং সমুদ্র নিরাপত্তার প্রতি তিন দেশের যৌথ সমর্থনের বিষয়টিও মহড়ার মাধ্যমে তুলে ধরা আরেকটি লক্ষ্য। পাশাপাশি জলদস্যুদের বিরুদ্ধে লড়াই, আন্তর্জাতিক সমুদ্র বাণিজ্যের নিরাপত্তা, সমুদ্র সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা এবং বিভিন্ন ধরনের অভিযান পরিচালনার কৌশলগত অভিজ্ঞতা ও তথ্য বিনিময় করাও এই মহড়ার কয়েকটি লক্ষ্য।

এর আগে বুধবার ইরানের প্রসিডেন্ট রাশিয়া ভ্রমণ করেন। সেখানে তিনি পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ পরবর্তী বলেন, রাশিয়ার সঙ্গে বন্ধন বাড়ানোর ক্ষেত্রে তেহরানের কোনো সীমা নেই।

ভারত মহাসাগরে চীন-ইরান-রাশিয়ার যৌথ মহড়া শুরু

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ জানুয়ারি ২০২২, ১১:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইরান, রাশিয়া এবং চীন যৌথ নৌ এবং আকাশ মহড়া শুরু করেছে। সামুদ্রিক জলদস্যুতা মোকাবেলায় তিন দেশ মিলে শুক্রবার ভারত মহাসাগরে তারা এই মহড়া শুরু করে।

ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইরনা জানিয়েছে, ২০২২ মেরিন সিকিউরিটি বেল্ট নামের এ মহড়ায় ইরান, রাশিয়া ও চীনের মেরিন এবং এয়ারবোর্ন ইউনিট অংশ নিচ্ছে। 

মহড়ার মুখপাত্র রিয়ার এডমিরাল মোস্তফা তাজউদ্দিনি জানান, ইরান, রাশিয়া ও চীনের অংশগ্রহণে এটি  তৃতীয় মহড়া এবং ভবিষ্যতেও এমন মহড়া অব্যাহত থাকবে।  মহড়ার মূল স্লোগান ‘শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য ঐক্য’ যা সমুদ্রের ১৭ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকাজুড়ে অনুষ্ঠিত হবে।

রিয়ার অ্যাডমিরাল তাজউদ্দিনি জানান, এই মহড়ার লক্ষ্য হচ্ছে আঞ্চলিক নিরাপত্তা জোরদার করা এবং তিন দেশের মধ্যে বহুপক্ষীয় সহযোগিতা প্রতিষ্ঠা করা। এছাড়া, বিশ্ব শান্তি এবং সমুদ্র নিরাপত্তার প্রতি তিন দেশের যৌথ সমর্থনের বিষয়টিও মহড়ার মাধ্যমে তুলে ধরা আরেকটি লক্ষ্য। পাশাপাশি জলদস্যুদের বিরুদ্ধে লড়াই, আন্তর্জাতিক সমুদ্র বাণিজ্যের নিরাপত্তা, সমুদ্র সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা এবং বিভিন্ন ধরনের অভিযান পরিচালনার কৌশলগত অভিজ্ঞতা ও তথ্য বিনিময় করাও এই মহড়ার কয়েকটি লক্ষ্য।

এর আগে  বুধবার ইরানের প্রসিডেন্ট রাশিয়া ভ্রমণ করেন। সেখানে তিনি পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ পরবর্তী বলেন, রাশিয়ার সঙ্গে বন্ধন বাড়ানোর ক্ষেত্রে তেহরানের কোনো সীমা নেই।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন