যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় যে শর্ত ইরানের
jugantor
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় যে শর্ত ইরানের

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ জানুয়ারি ২০২২, ২৩:০০:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় শর্ত দিল ইরান

ভালো কোনো সমঝোতা অর্জনের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পরই কেবল যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যোগাযোগের বর্তমান পদ্ধতিতে পরিবর্তন আসতে পারে বলে জানিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি।

তিনি বলেছেন, বর্তমানে মার্কিন প্রতিনিধিদলের সঙ্গে ইরানের সরাসরি কোনো আলোচনা হচ্ছে না। ভিয়েনায় অবস্থানরত মার্কিন প্রতিনিধিদলের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক পেপারের মাধ্যমে একটা যোগাযোগ রয়েছে। এর চেয়ে বেশি কিছুর প্রয়োজন হয়নি এবং হবেও না।

মঙ্গলবার এক টুইটার বার্তায় এসব কথা বলেন ইরানের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিষদের এ সচিব। খবর ইরনার।

এদিকে মার্কিন প্রতিনিধিরা সমঝোতা ইস্যুতে ইরানের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় বসতে বারবার আগ্রহ দেখাচ্ছে বলে দাবি করেছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আব্দুল্লাহিয়ান।

তিনি বলেন, বাস্তবায়নের গ্যারান্টিযুক্ত একটি ভালো পরমাণু সমঝোতায় পৌঁছার বিষয়টি নিশ্চিত হলে সেক্ষেত্রে ইরান কোনো একটা পর্যায়ে এ নিয়ে সরাসরি আলোচনার বিষয়টি বিবেচনা করবে

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ভিয়েনায় ৪+১ গ্রুপের সঙ্গে সরাসরি আলোচনা হচ্ছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি কোনো আলোচনা নেই। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক কাগজপত্র, ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক উপ-প্রধান এনরিক মোরা এবং পরমাণু সমঝোতায় স্বাক্ষরকারী আরও একটি-দু’টি দেশের মাধ্যমে যোগাযোগ হচ্ছে।

ইরান ও বিশ্বের বড় পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও রাশিয়ার মত দেশগুলোর মধ্যে ২০১৫ সালে হয় পারমাণবিক চুক্তি। এই চুক্তির মাধ্যমে ইরান পরাশক্তিদের কথা দেয় তারা তাদের পারমাণবিক কার্যক্রম কমিয়ে দেবে।

কিন্তু ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেন।

তবে গত বছর থেকে আবার ইরানের সঙ্গে চুক্তি করার চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানও বেশ আগ্রহী নতুন করে চুক্তি করতে। কারণ এতে করে তাদের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা ওঠে যাবে।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় যে শর্ত ইরানের

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় শর্ত দিল ইরান
ইরানের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি।

ভালো কোনো সমঝোতা অর্জনের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পরই কেবল যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যোগাযোগের বর্তমান পদ্ধতিতে পরিবর্তন আসতে পারে বলে জানিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি। 

তিনি বলেছেন, বর্তমানে মার্কিন প্রতিনিধিদলের সঙ্গে ইরানের সরাসরি কোনো আলোচনা হচ্ছে না।  ভিয়েনায় অবস্থানরত মার্কিন প্রতিনিধিদলের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক পেপারের মাধ্যমে একটা যোগাযোগ রয়েছে। এর চেয়ে বেশি কিছুর প্রয়োজন হয়নি এবং হবেও না।

মঙ্গলবার এক টুইটার বার্তায় এসব কথা বলেন ইরানের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিষদের এ সচিব।  খবর ইরনার।  

এদিকে মার্কিন প্রতিনিধিরা সমঝোতা ইস্যুতে ইরানের সঙ্গে সরাসরি আলোচনায় বসতে বারবার আগ্রহ দেখাচ্ছে বলে দাবি করেছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আব্দুল্লাহিয়ান। 

তিনি বলেন, বাস্তবায়নের গ্যারান্টিযুক্ত একটি ভালো পরমাণু সমঝোতায় পৌঁছার বিষয়টি নিশ্চিত হলে সেক্ষেত্রে ইরান কোনো একটা পর্যায়ে এ নিয়ে সরাসরি আলোচনার বিষয়টি বিবেচনা করবে

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ভিয়েনায় ৪+১ গ্রুপের সঙ্গে সরাসরি আলোচনা হচ্ছে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সরাসরি কোনো আলোচনা নেই। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক কাগজপত্র, ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক উপ-প্রধান এনরিক মোরা এবং পরমাণু সমঝোতায় স্বাক্ষরকারী আরও একটি-দু’টি দেশের মাধ্যমে যোগাযোগ হচ্ছে।

ইরান ও বিশ্বের বড় পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও রাশিয়ার মত দেশগুলোর মধ্যে ২০১৫ সালে হয় পারমাণবিক চুক্তি। এই চুক্তির মাধ্যমে ইরান পরাশক্তিদের কথা দেয় তারা তাদের পারমাণবিক কার্যক্রম কমিয়ে দেবে। 

কিন্তু ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেন। 

তবে গত বছর থেকে আবার ইরানের সঙ্গে চুক্তি করার চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানও বেশ আগ্রহী নতুন করে চুক্তি করতে। কারণ এতে করে তাদের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা ওঠে যাবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন