ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এমপিদের তোপ, পুলিশি তদন্ত শুরু
jugantor
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এমপিদের তোপ, পুলিশি তদন্ত শুরু

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৬ জানুয়ারি ২০২২, ২১:৫৬:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

লকডাউনের মধ্যে ১০ ডাউনিং স্ট্রিটে পার্টি করা নিয়ে ব্রিটিশ আইনপ্রণেতাদের প্রশ্নের মুখে পড়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। লন্ডনের মেট্রোপলিটন পুলিশও বিষয়টি নিয়ে নিজস্ব তদন্ত শুরুর ঘোষণা দিয়েছে। মার্কিন সংবাদ মাধ্যম সিএনএন ও ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি বুধবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদেনে জানা গেছে, করোনা লকডাউনের সময় যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের বাড়ি ১০ ডাউনিং স্ট্রিট এবং হোয়াইট হলে বেশ কয়েকটি পার্টি হয়েছে। ২০২০ সালে পার্টিগুলো হলেও গত কয়েকমাসে এই কথা সামনে এসেছে। এই ঘটনার জেরে ঘরে বাইরে চাপের মুখে পড়েছেন বরিস জনসন।

সিভিল সারভেন্ট সু গ্রে বিষয়টি নিয়ে স্বাধীন তদন্ত করছিলেন। মঙ্গলবার তিনি তার তদন্তের প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। এই ব্যাপারে কোনো মতামত জানানোর আগে অনেক এমপিই সু গ্রের প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

ওই প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পরই এমপিদের তোপের মুখে পড়েন বরিস জনসন।

মঙ্গলবার লন্ডনের পুলিশ কমিশনার ক্রেসিডা ডিক সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, গ্রের তদন্ত রিপোর্ট তাদের হাতে এসেছে। এবার পুলিশ নিজেদের মতো করে তদন্ত শুরু করবে। তবে গ্রের তদন্ত রিপোর্টে কী আছে তা জানাননি ক্রেসিডা।

এদিকে পুলিশ তদন্তভার হাতে নেওয়ার পরেই নতুন করে বরিস জনসনের পদত্যাগ দাবি করেছে লেবার পার্টি। তাদের দাবি করোনাবিধি না মানার জন্য যখন দেশের সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে চরম ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছিল, তখন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী সেই নিয়ম ভেঙেছেন। এর জন্য তার বিরুদ্ধেও দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

এদিকে যাই ঘটুক পদত্যাগ করবেন না বলে ফের জানিয়েছেন বরিস জনসন।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এমপিদের তোপ, পুলিশি তদন্ত শুরু

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৬ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লকডাউনের মধ্যে ১০ ডাউনিং স্ট্রিটে পার্টি করা নিয়ে ব্রিটিশ আইনপ্রণেতাদের প্রশ্নের মুখে পড়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। লন্ডনের মেট্রোপলিটন পুলিশও বিষয়টি নিয়ে নিজস্ব তদন্ত শুরুর ঘোষণা দিয়েছে।  মার্কিন সংবাদ মাধ্যম সিএনএন ও ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি বুধবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। 

গণমাধ্যমের প্রতিবেদেনে জানা গেছে, করোনা লকডাউনের সময় যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের বাড়ি ১০ ডাউনিং স্ট্রিট এবং হোয়াইট হলে বেশ কয়েকটি পার্টি হয়েছে। ২০২০ সালে পার্টিগুলো হলেও গত কয়েকমাসে এই কথা সামনে এসেছে। এই ঘটনার জেরে ঘরে বাইরে চাপের মুখে পড়েছেন বরিস জনসন। 

সিভিল সারভেন্ট সু গ্রে বিষয়টি নিয়ে স্বাধীন তদন্ত করছিলেন। মঙ্গলবার তিনি তার তদন্তের প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। এই ব্যাপারে কোনো মতামত জানানোর আগে অনেক এমপিই সু গ্রের প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।

ওই প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পরই এমপিদের তোপের মুখে পড়েন বরিস জনসন।

মঙ্গলবার লন্ডনের পুলিশ কমিশনার ক্রেসিডা ডিক সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, গ্রের তদন্ত রিপোর্ট তাদের হাতে এসেছে। এবার পুলিশ নিজেদের মতো করে তদন্ত শুরু করবে। তবে গ্রের তদন্ত রিপোর্টে কী আছে তা জানাননি ক্রেসিডা।

এদিকে পুলিশ তদন্তভার হাতে নেওয়ার পরেই নতুন করে বরিস জনসনের পদত্যাগ দাবি করেছে লেবার পার্টি। তাদের দাবি করোনাবিধি না মানার জন্য যখন দেশের সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে চরম ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছিল, তখন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী সেই নিয়ম ভেঙেছেন। এর জন্য তার বিরুদ্ধেও দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

এদিকে যাই ঘটুক পদত্যাগ করবেন না বলে ফের জানিয়েছেন বরিস জনসন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন