রাশিয়া-ইউক্রেনের উত্তেজনার মধ্যে নতুন সিদ্ধান্ত
jugantor
রাশিয়া-ইউক্রেনের উত্তেজনার মধ্যে নতুন সিদ্ধান্ত

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:৫০:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘ আলোচনার পর অস্ত্রবিরতিতে সম্মত হয়েছে রাশিয়া ও ইউক্রেন। বুধবার ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের এলিসি প্রাসাদে এ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। খবর সিএনএনের।

যুদ্ধবিরতির বিষয়ে চারমুখী কথোপকথনের পর এ ঘোষণাটি আসে। এলিসি প্রাসাদের ওই বৈঠকে ছিল ইউক্রেন, রাশিয়া, জার্মানি এবং ফ্রান্সের প্রতিনিধিরা। ২০১৪ সাল থেকে ‘নরমান্ডি গ্রুপ’ নামে পরিচিত এ চারটি দেশ ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চল নিয়ে একটি শান্তিচুক্তিতে পৌঁছানোর ব্যাপারে কাজ করে যাচ্ছে।

এদিকে রাশিয়া ও ইউক্রেনের অস্ত্রবিরতিতে সম্মত হওয়ার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন ফ্রান্সের এক কূটনীতিক। তিনি একে ‘ভালো সংকেত’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর এক সহযোগী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক আগ্রাসনের হুমকি নিয়ে নয়, ২০১৪ সাল থেকে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে চলা বিচ্ছিন্নতাবাদীদের লড়াইয়ের মতো সমস্যার সমাধানের লক্ষ্য নিয়ে প্যারিসে দুপক্ষের মধ্যে আলোচনা হয়।

ম্যাক্রোর এই সহযোগী আরও বলেন, কঠিন আলোচনায় শেষ পর্যন্ত ইতিবাচক কিছু এসেছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা ভালো একটি সংকেত পেয়েছি।

বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে ইউক্রেনের বাহিনীর চলমান সংঘাতের বিষয়ে ২০১৯ সালের পর এই প্রথম একটি যৌথ বিবৃতিতে সই করতে রাজি হলো রাশিয়া ও ইউক্রেন। ফ্রান্স ও জার্মানিও এই যৌথ বিবৃতির অংশ হচ্ছে।

২০১৪ সালে ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপদ্বীপ দখল করে নেয় রাশিয়া। তার পর থেকে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে সরকারি বাহিনী ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মধ্যে লড়াই চলছে।

রাশিয়া-ইউক্রেনের উত্তেজনার মধ্যে নতুন সিদ্ধান্ত

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৭ জানুয়ারি ২০২২, ০১:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘ আলোচনার পর অস্ত্রবিরতিতে সম্মত হয়েছে রাশিয়া ও ইউক্রেন। বুধবার ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের এলিসি প্রাসাদে এ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। খবর সিএনএনের।

যুদ্ধবিরতির বিষয়ে চারমুখী কথোপকথনের পর এ ঘোষণাটি আসে। এলিসি প্রাসাদের ওই বৈঠকে ছিল ইউক্রেন, রাশিয়া, জার্মানি এবং ফ্রান্সের প্রতিনিধিরা। ২০১৪ সাল থেকে ‘নরমান্ডি গ্রুপ’ নামে পরিচিত এ চারটি দেশ ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চল নিয়ে একটি শান্তিচুক্তিতে পৌঁছানোর ব্যাপারে কাজ করে যাচ্ছে।

এদিকে রাশিয়া ও ইউক্রেনের অস্ত্রবিরতিতে সম্মত হওয়ার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন ফ্রান্সের এক কূটনীতিক। তিনি একে ‘ভালো সংকেত’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর এক সহযোগী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক আগ্রাসনের হুমকি নিয়ে নয়, ২০১৪ সাল থেকে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে চলা বিচ্ছিন্নতাবাদীদের লড়াইয়ের মতো সমস্যার সমাধানের লক্ষ্য নিয়ে প্যারিসে দুপক্ষের মধ্যে আলোচনা হয়।

ম্যাক্রোর এই সহযোগী আরও বলেন, কঠিন আলোচনায় শেষ পর্যন্ত ইতিবাচক কিছু এসেছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা ভালো একটি সংকেত পেয়েছি।

বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে ইউক্রেনের বাহিনীর চলমান সংঘাতের বিষয়ে ২০১৯ সালের পর এই প্রথম একটি যৌথ বিবৃতিতে সই করতে রাজি হলো রাশিয়া ও ইউক্রেন। ফ্রান্স ও জার্মানিও এই যৌথ বিবৃতির অংশ হচ্ছে।

২০১৪ সালে ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপদ্বীপ দখল করে নেয় রাশিয়া। তার পর থেকে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে সরকারি বাহিনী ও বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মধ্যে লড়াই চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন