সিরিয়া থেকে জর্ডানে প্রবেশকালে গুলিতে নিহত ২৭
jugantor
সিরিয়া থেকে জর্ডানে প্রবেশকালে গুলিতে নিহত ২৭

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:৩০:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

সিরিয়া থেকে জর্ডানে প্রবেশকালে দেশটির সেনাবাহিনীর গুলিতে ২৭ জন নিহত হয়েছেন। জর্ডানের সেনাবাহিনী বলছে, নিহতরা চোরাকারবারি। সিরিয়া থেকে তারা বিপুল পরিমাণ মাদক নিয়ে জর্ডানে প্রবেশের চেষ্টা করছিল।

জর্ডানের সেনাবাহিনীর ওয়েবসাইটে বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, সিরিয়া থেকে তারা বেশ কয়েকটি মাদক পাচারের চেষ্টা রুখে দিয়েছেন। অভিযানে তারা বিপুল পরিমাণ মাদক জব্দ করেছেন। ওই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, মাদকগুলো সিরিয়া থেকে আগত ট্রাকে লুকানো ছিল।

এর আগে চলতি মাসে চোরাকারবারিদের সঙ্গে গোলাগুলিতে জর্ডানের একজন সেনা কর্মকর্তা নিহত হন বলে তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল।

এক দশকের বেশি সময় ধরে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার সাড়ে ৬ লাখের বেশি নাগরিক জর্ডানে আশ্রয় নিয়েছে।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে সিরিয়ার সরকারি বাহিনী বিদ্রোহীদের কাছ থেকে জর্ডান সীমান্ত এলাকা পুনর্দখল করে। এরপর অক্টোবর মাসে জর্ডানের বাদশা দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন। এরপর দীর্ঘ ১০ বছরের বেশি সময় বিরতির পর দুই দেশের সীমান্ত চালু করার সিদ্ধান্ত হয়।

যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ায় মাদকের রমরমা কারখানা গড়ে উঠেছে। সিরিয়া সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ক্যাপটাগন এবং অ্যামফেটামিন তৈরি ও বিক্রির হটস্পট হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, মধ্যপ্রাচ্য বিশেষ করে উপসাগরীয় দেশগুলোতে মাদক পাচারের জন্য সিরিয়া এবং লেবানন প্রবেশদ্বার হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

জর্ডানের সরকারি কর্মকর্তাদের অভিযোগ, লেবাননে ইরান সমর্থিত হিজবুল্লাহসহ আর কয়েকটি গোষ্ঠী দক্ষিণ সিরিয়ার অনেক অংশ নিয়ন্ত্রণ করে। তারা মাদক পাচারের মূল হিসেবে কাজ করেন। যদিও হিজবুল্লাহ এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

সিরিয়া থেকে জর্ডানে প্রবেশকালে গুলিতে নিহত ২৭

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ জানুয়ারি ২০২২, ০৬:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিরিয়া থেকে  জর্ডানে প্রবেশকালে দেশটির সেনাবাহিনীর গুলিতে ২৭ জন নিহত হয়েছেন। জর্ডানের সেনাবাহিনী বলছে, নিহতরা চোরাকারবারি। সিরিয়া থেকে তারা বিপুল পরিমাণ মাদক নিয়ে জর্ডানে প্রবেশের চেষ্টা করছিল। 

জর্ডানের সেনাবাহিনীর ওয়েবসাইটে বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, সিরিয়া থেকে তারা বেশ কয়েকটি মাদক পাচারের চেষ্টা রুখে দিয়েছেন।  অভিযানে তারা বিপুল পরিমাণ মাদক জব্দ করেছেন।  ওই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, মাদকগুলো সিরিয়া থেকে আগত ট্রাকে লুকানো ছিল। 

এর আগে চলতি মাসে চোরাকারবারিদের সঙ্গে গোলাগুলিতে জর্ডানের একজন সেনা কর্মকর্তা নিহত হন বলে তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল। 

এক দশকের বেশি সময় ধরে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার সাড়ে ৬ লাখের বেশি নাগরিক জর্ডানে আশ্রয় নিয়েছে। 

গত বছরের সেপ্টেম্বরে সিরিয়ার সরকারি বাহিনী বিদ্রোহীদের কাছ থেকে জর্ডান সীমান্ত এলাকা পুনর্দখল করে। এরপর অক্টোবর মাসে জর্ডানের বাদশা দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন। এরপর দীর্ঘ ১০ বছরের বেশি সময় বিরতির পর দুই দেশের সীমান্ত চালু করার সিদ্ধান্ত হয়। 

যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ায় মাদকের রমরমা কারখানা গড়ে উঠেছে। সিরিয়া সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ক্যাপটাগন এবং অ্যামফেটামিন তৈরি ও বিক্রির হটস্পট হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, মধ্যপ্রাচ্য বিশেষ করে উপসাগরীয় দেশগুলোতে মাদক পাচারের জন্য সিরিয়া এবং লেবানন প্রবেশদ্বার হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। 

জর্ডানের সরকারি কর্মকর্তাদের অভিযোগ, লেবাননে ইরান সমর্থিত হিজবুল্লাহসহ আর কয়েকটি গোষ্ঠী দক্ষিণ সিরিয়ার অনেক অংশ নিয়ন্ত্রণ করে। তারা মাদক পাচারের মূল হিসেবে কাজ করেন। যদিও হিজবুল্লাহ এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন