‘ইউক্রেন যুদ্ধে অন্য দেশও জড়িয়ে যাবে যদি…’
jugantor
‘ইউক্রেন যুদ্ধে অন্য দেশও জড়িয়ে যাবে যদি…’

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৯ মে ২০২২, ২২:২৪:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ইউক্রেন

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের প্রধান আন্দ্রি ইয়ারমাক বলেছেন, ইউক্রেন যুদ্ধে অন্য দেশেরও জড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকবে যদি যুদ্ধ আরও দীর্ঘস্থায়ী হয়। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম এমএসএনবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আন্দ্রি ইয়ারমাক বলেন, প্রথমে এই যুদ্ধ রাশিয়ার সঙ্গে সীমান্ত রয়েছে এমন দেশগুলোকে প্রভাবিত করবে এবং তারপর এই যুদ্ধে আরও অনেক দেশ জড়িয়ে যাবে।

এদিকে, ইউক্রেন রাশিয়ার সঙ্গে আপস করবে না এবং কোনো ভূখণ্ড ছাড়বে না বলে সাফ জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির উপদেষ্টা ওলেক্সি আরেস্টোভিচ।
ওলেক্সি আরেস্টোভিচ বলেন, এ সঙ্কটের সমঝোতার একমাত্র বিকল্প পথ হলো রাশিয়ার আত্মসমর্পণ, সেনা প্রত্যাহার এবং ক্ষতিপূরণ নিয়ে আলোচনা করা। এটি ইউক্রেন সরকারের নীতিগত অবস্থান।

আরেস্টোভিচ বলেন, তিনি বিশ্বাস করেন যে কিছু দেশ মিনস্ক চুক্তির পুনরাবৃত্তি চায়, যা ২০১৪ সাল থেকে ইউক্রেনের দোনবাস অঞ্চলে যুদ্ধ শেষ করতে ব্যর্থ হয়েছিল।

তবে তিনি বলেন, যদিও কিছু দেশ আলোচনার চেষ্টা করবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে ইউক্রেনকে এরই মধ্যে ৪১০ কোটি ডলার সহায়তা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এই যুদ্ধে ইউক্রেনের অনেক শহর ধ্বংস হয়ে গেছে। দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন প্রায় ৬০ লাখ এবং হতাহত হয়েছেন প্রায় ৮ হাজার মানুষ।

‘ইউক্রেন যুদ্ধে অন্য দেশও জড়িয়ে যাবে যদি…’

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ মে ২০২২, ১০:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইউক্রেন
প্রতীকী ছবি

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের প্রধান আন্দ্রি ইয়ারমাক বলেছেন, ইউক্রেন যুদ্ধে অন্য দেশেরও জড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকবে যদি যুদ্ধ আরও দীর্ঘস্থায়ী হয়।  কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম এমএসএনবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আন্দ্রি ইয়ারমাক বলেন, প্রথমে এই যুদ্ধ রাশিয়ার সঙ্গে সীমান্ত রয়েছে এমন দেশগুলোকে প্রভাবিত করবে এবং তারপর এই যুদ্ধে আরও অনেক দেশ জড়িয়ে যাবে। 

এদিকে, ইউক্রেন রাশিয়ার সঙ্গে আপস করবে না এবং কোনো ভূখণ্ড ছাড়বে না বলে সাফ জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির উপদেষ্টা ওলেক্সি আরেস্টোভিচ। 
ওলেক্সি আরেস্টোভিচ বলেন, এ সঙ্কটের সমঝোতার একমাত্র বিকল্প পথ হলো রাশিয়ার আত্মসমর্পণ, সেনা প্রত্যাহার এবং ক্ষতিপূরণ নিয়ে আলোচনা করা। এটি ইউক্রেন সরকারের নীতিগত অবস্থান।

আরেস্টোভিচ বলেন, তিনি বিশ্বাস করেন যে কিছু দেশ মিনস্ক চুক্তির পুনরাবৃত্তি চায়, যা ২০১৪ সাল থেকে ইউক্রেনের দোনবাস অঞ্চলে যুদ্ধ শেষ করতে ব্যর্থ হয়েছিল।

তবে তিনি বলেন, যদিও কিছু দেশ আলোচনার চেষ্টা করবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে ইউক্রেনকে এরই মধ্যে ৪১০ কোটি ডলার সহায়তা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এই যুদ্ধে ইউক্রেনের অনেক শহর ধ্বংস হয়ে গেছে। দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন প্রায় ৬০ লাখ এবং হতাহত হয়েছেন প্রায় ৮ হাজার মানুষ।  

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা