‘সাফল্য না পাওয়ায় চাকরি হারিয়েছেন সিনিয়র রুশ কমান্ডাররা’
jugantor
‘সাফল্য না পাওয়ায় চাকরি হারিয়েছেন সিনিয়র রুশ কমান্ডাররা’

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ মে ২০২২, ২২:৫৮:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, যে সকল কমান্ডাররা যুদ্ধক্ষেত্রে প্রত্যাশা অনুযায়ী সাফল্য এনে দিতে পারেননি তাদের বরখাস্ত করেছে রাশিয়া।

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় তাদের দেওয়া তথ্যে বলেছে, লেফটেনেন্ট জেনারেল সেরহি কিসেল, যিনি এলিট ফাস্ট গার্ডকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। কারণ তিনি খারকিভ দখল করতে ব্যর্থ হয়েছেন।

রাশিয়ার সেনাপ্রধান জেনারেল ভেলারি গেরাসিমোভের ওপর প্রেসিডেন্ট পুতিনের আগের মতো বিশ্বাস আছে কিনা সেটি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

তবে তারা জানিয়েছে, সেনাপ্রধান হয়ত এখনো তার স্বপদে বহাল আছেন।

ব্রিটিশ গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, রাশিয়ার সেনাবাহিনী ও প্রক্রিয়ায় অন্যের ওপর দোষ চাপানো এবং বলির পাঠা বানানোর বিষয়টি খুব সম্ভবত প্রচলিত।

এদিকে রাশিয়ার যুদ্ধ জাহাজ মস্কভা ডুবে যাওয়ার কারণেই জাহাজটির কমান্ডার ভাইস অ্যাডমিরাল ইগোর ওসপিভোভকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্য।

সূত্র: সিএনএন

‘সাফল্য না পাওয়ায় চাকরি হারিয়েছেন সিনিয়র রুশ কমান্ডাররা’

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ মে ২০২২, ১০:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, যে সকল কমান্ডাররা যুদ্ধক্ষেত্রে প্রত্যাশা অনুযায়ী সাফল্য এনে দিতে পারেননি তাদের বরখাস্ত করেছে রাশিয়া। 

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় তাদের দেওয়া তথ্যে বলেছে, লেফটেনেন্ট জেনারেল সেরহি কিসেল, যিনি এলিট ফাস্ট গার্ডকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। কারণ তিনি খারকিভ দখল করতে ব্যর্থ হয়েছেন।

রাশিয়ার সেনাপ্রধান জেনারেল ভেলারি গেরাসিমোভের ওপর প্রেসিডেন্ট পুতিনের আগের মতো বিশ্বাস আছে কিনা সেটি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। 

তবে তারা জানিয়েছে, সেনাপ্রধান হয়ত এখনো তার স্বপদে বহাল আছেন।

ব্রিটিশ গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, রাশিয়ার সেনাবাহিনী ও প্রক্রিয়ায় অন্যের ওপর দোষ চাপানো এবং বলির পাঠা বানানোর বিষয়টি খুব সম্ভবত প্রচলিত। 

এদিকে রাশিয়ার যুদ্ধ জাহাজ মস্কভা ডুবে যাওয়ার কারণেই জাহাজটির কমান্ডার ভাইস অ্যাডমিরাল ইগোর ওসপিভোভকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্য। 

সূত্র: সিএনএন

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা