সেভারোদোনেৎস্কের দখল নেওয়া রুশদের জন্য কেন গুরুত্বপূর্ণ?
jugantor
সেভারোদোনেৎস্কের দখল নেওয়া রুশদের জন্য কেন গুরুত্বপূর্ণ?

  অনলাইন ডেস্ক  

২৩ মে ২০২২, ২২:৫৬:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার সেনাদের নজর এখন সেভারোদোনেৎস্কের দিকে। শহরটি দখল করতে এর চারপাশ ঘিরে ধরেছে রুশ বাহিনী।

যুদ্ধ শুরু হওয়ার আগে এ শহরটিতে প্রায় ১ লাখ মানুষ বাস করতেন।

সেভারোদোনেৎস্ক শহরটি অবস্থিত পশ্চিম দোনবাসের লুহানেস্কে। এই দোনবাসেই এখন পূর্ণ মনোযোগ দিয়েছে রাশিয়া।

ধারণা করা হচ্ছে সেভারোদোনেৎস্ককেও হয়ত মারিউপোলের মতো ভাগ্য বরণ করতে হবে। মারিউপোলকেও রুশ বাহিনী প্রথমে ঘিরে ধরেছিল এরপর অব্যহত বোমা হামলা চালায়।

বোমার সঙ্গে গোলাবর্ষণ করে পুরো শহরটি দখল করে এরপর ক্ষান্ত হয়েছে রাশিয়ার সেনারা।

কেন রাশিয়া ছোট শহর সেভারোদোনেৎস্ক দখল করতে চাইছে? কেন শহরটি গুরুত্বপূর্ণ।

গুরুত্বের দিক দিয়ে সেভারোদোনেৎস্ক অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যদি রাশিয়ার হাতে সেভারোদোনেৎস্কের পতন হয় তাহলে পুরো লুহানেস্কের দখল তাদের হাতে চলে আসবে।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় গত সপ্তাহে জানিয়েছে, তারা পুরো লুহানেস্কই নিজেদের দখলে নেবে।

এদিকে দোনবাস অঞ্চলটি গঠিত লুহানেস্ক ও দোনেৎস্ককে নিয়ে। অনেকের বিশ্বাস রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন দোনবাসের বেশিরভাগ অঞ্চল দখল করার বিষয়টিকে যুদ্ধে বিজয় হিসেবে ধরবেন।

সূত্র: বিবিসি

সেভারোদোনেৎস্কের দখল নেওয়া রুশদের জন্য কেন গুরুত্বপূর্ণ?

 অনলাইন ডেস্ক 
২৩ মে ২০২২, ১০:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার সেনাদের নজর এখন সেভারোদোনেৎস্কের দিকে। শহরটি দখল করতে এর চারপাশ ঘিরে ধরেছে রুশ বাহিনী।

যুদ্ধ শুরু হওয়ার আগে এ শহরটিতে প্রায় ১ লাখ মানুষ বাস করতেন।

সেভারোদোনেৎস্ক শহরটি অবস্থিত পশ্চিম দোনবাসের লুহানেস্কে। এই দোনবাসেই এখন পূর্ণ মনোযোগ দিয়েছে রাশিয়া।

ধারণা করা হচ্ছে সেভারোদোনেৎস্ককেও হয়ত মারিউপোলের মতো ভাগ্য বরণ করতে হবে। মারিউপোলকেও রুশ বাহিনী প্রথমে ঘিরে ধরেছিল এরপর অব্যহত বোমা হামলা চালায়। 

বোমার সঙ্গে গোলাবর্ষণ করে পুরো শহরটি দখল করে এরপর ক্ষান্ত হয়েছে রাশিয়ার সেনারা।

কেন রাশিয়া ছোট শহর সেভারোদোনেৎস্ক দখল করতে চাইছে? কেন শহরটি গুরুত্বপূর্ণ।

গুরুত্বের দিক দিয়ে সেভারোদোনেৎস্ক অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যদি রাশিয়ার হাতে সেভারোদোনেৎস্কের পতন হয় তাহলে পুরো লুহানেস্কের দখল তাদের হাতে চলে আসবে। 

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় গত সপ্তাহে জানিয়েছে, তারা পুরো লুহানেস্কই নিজেদের দখলে নেবে। 

এদিকে দোনবাস অঞ্চলটি গঠিত লুহানেস্ক ও দোনেৎস্ককে নিয়ে। অনেকের বিশ্বাস রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন দোনবাসের বেশিরভাগ অঞ্চল দখল করার বিষয়টিকে যুদ্ধে বিজয় হিসেবে ধরবেন। 

সূত্র: বিবিসি 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা