‘সময় মতো তুরস্ককে আমরা বশে আনব, এটি কাজে দেবে না’
jugantor
‘সময় মতো তুরস্ককে আমরা বশে আনব, এটি কাজে দেবে না’

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ মে ২০২২, ১৯:৪২:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভাসোগলু শুক্রবার বলেছেন, সব ধরনের জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করব, ন্যাটোর নতুন নীতিতে এটি যুক্ত হওয়া উচিত।

রোমানিয়া এবং পোল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এমন কথা বলেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তিনি আরও জানান, ফিনল্যান্ড-সুইডেনের কাছ থেকে বাস্তবসম্মত ও কঠোর পদক্ষেপ চান তারা। তিনি জানিয়েছেন, তারা যদি ন্যাটোতে যোগ দিতে চায় তাহলে জঙ্গীবাদে মদদ দেওয়া বন্ধ করতে হবে।

তার্সিক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দুই দেশের ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে তুরস্কের অবস্থান পরিস্কার ও স্পষ্ট। আমি আশা করি ফিনল্যান্ড-সুইডেন আমাদের বার্তা বুঝতে পারবে।

তিনি আরও বলেন, সময় হলে যে কোনো ভাবে তুরস্ককে আমাদের বশে নিয়ে আসব, আমরা বন্ধু ও মিত্র এগুলো আসলে ঠিক হবে না (কাজে দেবে না)।

তিনি বলেন, এই দেশগুলোকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।

আমরা ফিনল্যান্ড-সুইডেনের নিরাপত্তার উদ্বেগের বিষয়টি বুঝি। কিন্তু সবাইকে তুরস্কের বৈধ নিরাপত্তা উদ্বেগটিও বুঝতে হবে। যোগ করেন তার্কিস মন্ত্রী।

এদিকে অফিসিয়ালি এ মাসের মাঝামাঝি সময়ে ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার আবেদন করে ফিনল্যান্ড ও সুইডেন।

কিন্তু তাদের ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার বিষয়টি আটকে দিয়েছে তুরস্ক।

যদিও বিশেষজ্ঞদের মতে, শেষ পর্যন্ত তুরস্ক ফিনল্যান্ড-সুইডেনের ন্যাটোতে যোগ দেওয়া আটকে রাখতে পারবে না। কিন্তু তুরস্ক দেরি করাতে পারবে এবং নিজেদের দাবি-দাওয়া আদায় করে নিতে পারবে।

তুরস্কের অভিযোগের তীর বিশেষ করে সুইডেনের দিকে। তাদের দাবি সন্ত্রাসী সংগঠন পিকেকে এবং ওয়াইপিজে-কে মদদ দেয় সুইডেন।

তাছাড়া ফিনল্যান্ডও একই কাজ করে।

সূত্র: ডেইলি সাবাহ

‘সময় মতো তুরস্ককে আমরা বশে আনব, এটি কাজে দেবে না’

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ মে ২০২২, ০৭:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভাসোগলু শুক্রবার বলেছেন, সব ধরনের জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করব, ন্যাটোর নতুন নীতিতে এটি যুক্ত হওয়া উচিত।

রোমানিয়া এবং পোল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এমন কথা বলেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। 

তিনি আরও জানান, ফিনল্যান্ড-সুইডেনের কাছ থেকে বাস্তবসম্মত ও কঠোর পদক্ষেপ চান তারা। তিনি জানিয়েছেন, তারা যদি ন্যাটোতে যোগ দিতে চায় তাহলে জঙ্গীবাদে মদদ দেওয়া বন্ধ করতে হবে। 

তার্সিক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দুই দেশের ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে তুরস্কের অবস্থান পরিস্কার ও স্পষ্ট। আমি আশা করি ফিনল্যান্ড-সুইডেন আমাদের বার্তা বুঝতে পারবে। 

তিনি আরও বলেন, সময় হলে যে কোনো ভাবে তুরস্ককে আমাদের বশে নিয়ে আসব, আমরা বন্ধু ও মিত্র এগুলো আসলে ঠিক হবে না (কাজে দেবে না)।

তিনি বলেন, এই দেশগুলোকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।

আমরা ফিনল্যান্ড-সুইডেনের নিরাপত্তার উদ্বেগের বিষয়টি বুঝি। কিন্তু সবাইকে তুরস্কের বৈধ নিরাপত্তা উদ্বেগটিও বুঝতে হবে। যোগ করেন তার্কিস মন্ত্রী। 

এদিকে অফিসিয়ালি এ মাসের মাঝামাঝি সময়ে ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার আবেদন করে ফিনল্যান্ড ও সুইডেন। 

কিন্তু তাদের ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার বিষয়টি আটকে দিয়েছে তুরস্ক। 

যদিও বিশেষজ্ঞদের মতে, শেষ পর্যন্ত তুরস্ক ফিনল্যান্ড-সুইডেনের ন্যাটোতে যোগ দেওয়া আটকে রাখতে পারবে না। কিন্তু তুরস্ক দেরি করাতে পারবে এবং নিজেদের দাবি-দাওয়া আদায় করে নিতে পারবে। 

তুরস্কের অভিযোগের তীর বিশেষ করে সুইডেনের দিকে। তাদের দাবি সন্ত্রাসী সংগঠন পিকেকে এবং ওয়াইপিজে-কে মদদ দেয় সুইডেন।

তাছাড়া ফিনল্যান্ডও একই কাজ করে।

সূত্র: ডেইলি সাবাহ

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা