'ফিলিস্তিনি নারী চিকিৎসাকর্মীকে হত্যা ইসরাইলের স্পষ্ট যুদ্ধাপরাধ'

  যুগান্তর ডেস্ক ০২ জুন ২০১৮, ০৯:৫৭ | অনলাইন সংস্করণ

রাজন
ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে নিহত ফিলিস্তিনি প্যারামেডিক রাজন আল নাজ্জার-ফিলিস্তিন ক্রনিকলস

একুশ বছর বয়সী ফিলিস্তিনি নার্স রাজন আল নাজ্জার কেবল ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে আহত বিক্ষোভকারীদের চিকিৎসা দিতে গিয়েছিলেন। কিন্তু ইহুদিবাদী ইসরাইলের স্নাইপাররা এতটুকু সহ্য করতে পারেনি।

শুক্রবার ফিলিস্তিনিদের ভিটেমাটিতে ফেরার বিক্ষোভে আহতদের সাহায্য করতে এগিয়ে গেল তার বুকে গুলি করলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন।

ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারা বলেন, চিকিৎসাকর্মী নাজ্জারকে হত্যা যুদ্ধাপরাধ ছাড়া আর কিছু না। ইসরাইলকে জবাবদিহিতার আওতায় নিয়ে আসতে তারা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন।

নাজ্জারকে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনা আন্তর্জাতিক সকল চুক্তি ও কনভেনশনের স্পষ্ট লঙ্ঘন। কারণ এসব আইনে চিকিৎসাকর্মীদের বিশেষ সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাওয়াদ আওয়াদ বলেন, নারী চিকিৎসাকর্মী আল নাজ্জারকে ইসরাইলি সেনারা ইচ্ছাকৃতভাবে গুলি করে হত্যা করেছে। এটা স্পষ্ট যুদ্ধাপরাধ।

শুক্রবার গাজা উপত্যকায় ফিলিস্তিনিদের বসতবাড়িতে ফেরার দশম সাপ্তাহিক বিক্ষোভে আল নাজ্জারকে গুলি করলেও এ বিষয়ে কোনো বক্তব্য নেই ইসরাইলি সেনাবাহিনীর।

তাকে যখন গুলি করে হত্যা করা হয়, তখন তার পরনে সাদা ইউনিফর্ম ছিল। এতে অন্য বিক্ষোভকারীদের থেকে তাকে আলাদাভাবে শনাক্ত করা সম্ভব ছিল।

এছাড়া তিনি যখন এক আহতকে চিকিৎসা দিতে যাচ্ছিলেন, তখন হাত উপড়ে উঠিয়ে রেখেছিলেন। যাতে চিকিৎসাকর্মী হিসেবে তাকে সবার থেকে আলাদা করা সম্ভব হয়।

কিন্তু ইসরাইলি স্নাইপাররা তার বুকে গুলি করলে তিনি নিহত হন।

ফিলিস্তিনি বিচারমন্ত্রী আলী আবু দিয়াক বলেন, দখলদার বাহিনী এক মেডিকেলকর্মীকে হত্যা করে ঘৃণ্য অপরাধ করেছে।

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতকে ইসরাইলি নৃশংসতাকে নথিভুক্ত করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ইহুদিবাদী রাষ্ট্রটির নেতা, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সেনাবাহিনীর মধ্যে যারা মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছে, তাদের বিচাররের আওতায় আনতে হবে।

আন্তর্জাতিক মানবিক আইনে সংঘাতপূর্ণ এলাকায় যারা মানুষের জীবন বাঁচাতে কাজ করেন, তাদের বিশেষ সুরক্ষা দেয়া হয়েছে।

১৯৪৯ সালের চতুর্থ জেনেভা কনভেনশনের ২৪ অনুচ্ছেদে আহত কিংবা অসুস্থদের উদ্ধার করে তাদের নিয়ে গিয়ে চিকিৎসায় কাজ করা মেডিকেলকর্মীদের বিশেষ সুরক্ষা দেয়া হয়েছে।

অধিকৃত গাজা উপত্যকা নিয়ন্ত্রণকারী আল ফাতাহ পার্টির মুখপাত্র ওসামা আল কাসেমি বলেন, এটা ভয়ঙ্কর অপরাধ। ইচ্ছাকৃতভাবে ফিলিস্তিনিদের এই হত্যা ফ্যাসিস্ট মানসিকতারই প্রতিফলন।-খবর আরটির।

ঘটনাপ্রবাহ : ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার বিক্ষোভ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter