‘রাশিয়া একা না’
jugantor
‘রাশিয়া একা না’

  অনলাইন ডেস্ক  

২২ জুন ২০২২, ২০:০১:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বৃহস্পতিবার অর্থনৈতিক জোট ব্রিকসের সামিটে যোগ দেবেন।

চীনের আয়োজন করা এ সামিটে পুতিন যোগ দেবেন ভার্চ্যুয়ালি।

এর মাধ্যমে ইউক্রেনে হামলা করার পর প্রথমবারের মতো বড় অর্থনৈতিক দেশগুলোর নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি।

পুতিনের জন্য এ বিষয়টি হবে একটি অভিবাদনমূলক ছবি। চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিংপিং, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট বোলসোনারো এবং দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট কাইরিল রামাপোসার সঙ্গে একই স্ক্রিনে দেখা যাবে পুতিনের ছবি।

ইউক্রেনে হামলা করার পর নিষেধাজ্ঞায় জর্জরিত ‘রাশিয়া যে একা না’ এই ছবিটি তারই ইঙ্গিত।
এর মাধ্যমে এটিও প্রমাণ হবে চীন এবং রাশিয়ার বন্ধণ কত দৃঢ়। ইউক্রেনে হামলা করার কয়েক সপ্তাহ আগেও রাশিয়া-চীন ঘোষণা দেয় তাদের বন্ধুত্ব হলো ‘সীমাহীন’।

নয়া দিল্লির পলিসি রিসার্চ সেন্টারের ফেলো সুশান্ত সিং বলেছেন, ব্রিকসের এ সামিটে যোগ দেওয়ার বিষয়টিই পুতিনের জন্য অনেক বড় পাওনা।

কারণ বিশ্লেষণ করে সুশান্ত সিং বলেন, আমরা বড় কয়েকটি অর্থনৈতিক রাষ্ট্রের কথা বলছি যেগুলোর নেতারা পুতিনের সঙ্গে একইসঙ্গে সামনে আসতে প্রস্তুত, যদিও এটি শুধুমাত্র একটি ভার্চ্যুয়াল প্লাটফর্মে।

কিন্তু বিষয়টি হলো পুতিন আমন্ত্রিত। সে একা না। তাকে দূরে সরিয়ে দেওয়া হয়নি। আর এটি হলো সাধারণ বৈঠক, যেটি প্রতিবছর হয় এবং এখনো হচ্ছে। এটাই পুতিনের জন্য অনেক বড় পাওনা, যোগ করেন সুশান্ত সিং।

সূত্র: সিএনএন

‘রাশিয়া একা না’

 অনলাইন ডেস্ক 
২২ জুন ২০২২, ০৮:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বৃহস্পতিবার অর্থনৈতিক জোট ব্রিকসের সামিটে যোগ দেবেন।

চীনের আয়োজন করা এ সামিটে পুতিন যোগ দেবেন ভার্চ্যুয়ালি। 

এর মাধ্যমে ইউক্রেনে হামলা করার পর প্রথমবারের মতো বড় অর্থনৈতিক দেশগুলোর নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি। 

পুতিনের জন্য এ বিষয়টি হবে একটি অভিবাদনমূলক ছবি। চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিংপিং, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট বোলসোনারো এবং দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট কাইরিল রামাপোসার সঙ্গে একই স্ক্রিনে দেখা যাবে পুতিনের ছবি।

ইউক্রেনে হামলা করার পর নিষেধাজ্ঞায় জর্জরিত ‘রাশিয়া যে একা না’ এই ছবিটি তারই ইঙ্গিত।
এর মাধ্যমে এটিও প্রমাণ হবে চীন এবং রাশিয়ার বন্ধণ কত দৃঢ়। ইউক্রেনে হামলা করার কয়েক সপ্তাহ আগেও রাশিয়া-চীন ঘোষণা দেয় তাদের বন্ধুত্ব হলো ‘সীমাহীন’।

নয়া দিল্লির পলিসি রিসার্চ সেন্টারের ফেলো সুশান্ত সিং বলেছেন, ব্রিকসের এ সামিটে যোগ দেওয়ার বিষয়টিই পুতিনের জন্য অনেক বড় পাওনা। 

কারণ বিশ্লেষণ করে সুশান্ত সিং বলেন, আমরা বড় কয়েকটি অর্থনৈতিক রাষ্ট্রের কথা বলছি যেগুলোর নেতারা পুতিনের সঙ্গে একইসঙ্গে সামনে আসতে প্রস্তুত, যদিও এটি শুধুমাত্র একটি ভার্চ্যুয়াল প্লাটফর্মে।

কিন্তু বিষয়টি হলো পুতিন আমন্ত্রিত। সে একা না। তাকে দূরে সরিয়ে দেওয়া হয়নি। আর এটি হলো সাধারণ বৈঠক,  যেটি প্রতিবছর হয় এবং এখনো হচ্ছে। এটাই পুতিনের জন্য অনেক বড় পাওনা, যোগ করেন সুশান্ত সিং। 

সূত্র: সিএনএন

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা

আরও খবর