পুতিনের পারমাণবিক ব্রিফকেস বহনকারী নিজ ফ্ল্যাটে গুলিবিদ্ধ
jugantor
পুতিনের পারমাণবিক ব্রিফকেস বহনকারী নিজ ফ্ল্যাটে গুলিবিদ্ধ

  যুগান্তর ডেস্ক  

২২ জুন ২০২২, ২২:৪৮:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের পারমাণবিক ব্রিফকেস বহনকারী সাবেক কেজিবি কর্মকর্তা কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) ভাদিম জিমিনকে তার নিজ ফ্ল্যাটে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া গেছে।

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর কাছে অবস্থিত ওই ফ্ল্যাটে স্থানীয় সময় সোমবার তাকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মিরর ও ডেইলি সান বুধবার এক প্রতিবেদনে তথ্য জানিয়েছে।

গুরুতর অবস্থায় জিমিনকে স্থানীয় হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করানো হয়েছে বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

রাশিয়ার পরমাণু অস্ত্রসম্ভারের নিয়ন্ত্রণ যে ব্রিফকেস রয়েছে, সেটি বহনের দায়িত্বে ছিলেন ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিসের অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল জিমিন। ওই ব্রিফকেস সবসময় রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গেই থাকে।

জিমিন সাবেক রুশ প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিনের সময়ও এই ভূমিকা পালন করেছিলেন বলে ডেইলি মিরর জানিয়েছে।

বরিস ইয়েলৎসিনের উত্তরসূরি ভ্লাদিমির পুতিনের অধীনেও একই দায়িত্ব অব্যাহত রেখেন জিমিন। তবে সাবেক কেজিবি গুপ্তচর হিসেবে তার সুনির্দিষ্ট ভূমিকা অস্পষ্ট।

ঘটনার সময় ক্রাসনোগোর্কের ওই ফ্ল্যাটে ৫৩ বছরের জিমিনের স্ত্রী ছিলেন না। স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ওই মহিলা এই মুহূর্তে ইউক্রেনে রুশ সেনাবাহিনীর সঙ্গে রয়েছেন। ফ্ল্যাটের বাথরুমে ছিলেন জিমিনের ভাই। তিনিই রক্তাক্ত অবস্থায় জিমিনকে পড়ে থাকতে দেখেন। তাঁর মাথায় বুলেটের ক্ষতচিহ্ন ছিল। জিমিনের পাশেই পড়েছিল একটি রাবার বুলেট ছোড়ার পিস্তল।

এমন সময় এই গুলির ঘটনা ঘটল, যখন ঘুস নেওয়ার অভিযোগে তদন্তের মুখোমুখি হয়েছেন জিমিন। কাস্টমস সার্ভিসে যোগদানের পর এই অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। তিনি ওই ফৌজদারি মামলায় গৃহবন্দী অবস্থায় ছিলেন। যদিও নিজের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগই অস্বীকার করেছেন জিমিন।
তবে কারা তাকে গুলি করল তা জানা যায়নি।

পুতিনের পারমাণবিক ব্রিফকেস বহনকারী নিজ ফ্ল্যাটে গুলিবিদ্ধ

 যুগান্তর ডেস্ক 
২২ জুন ২০২২, ১০:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের  পারমাণবিক ব্রিফকেস বহনকারী সাবেক কেজিবি কর্মকর্তা কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) ভাদিম জিমিনকে তার নিজ ফ্ল্যাটে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া গেছে। 

রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর কাছে অবস্থিত ওই ফ্ল্যাটে স্থানীয় সময় সোমবার তাকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মিরর ও ডেইলি সান বুধবার এক প্রতিবেদনে তথ্য জানিয়েছে। 

গুরুতর অবস্থায় জিমিনকে স্থানীয় হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করানো হয়েছে বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

রাশিয়ার পরমাণু অস্ত্রসম্ভারের নিয়ন্ত্রণ যে ব্রিফকেস রয়েছে, সেটি বহনের দায়িত্বে ছিলেন ফেডারেল সিকিউরিটি সার্ভিসের অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল জিমিন। ওই ব্রিফকেস সবসময় রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গেই থাকে। 

জিমিন সাবেক রুশ প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিনের সময়ও এই ভূমিকা পালন করেছিলেন বলে ডেইলি মিরর জানিয়েছে।

বরিস ইয়েলৎসিনের উত্তরসূরি ভ্লাদিমির পুতিনের অধীনেও একই দায়িত্ব অব্যাহত রেখেন জিমিন।  তবে সাবেক কেজিবি গুপ্তচর হিসেবে তার সুনির্দিষ্ট ভূমিকা অস্পষ্ট।

ঘটনার সময় ক্রাসনোগোর্কের ওই ফ্ল্যাটে ৫৩ বছরের জিমিনের স্ত্রী ছিলেন না। স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ওই মহিলা এই মুহূর্তে ইউক্রেনে রুশ সেনাবাহিনীর সঙ্গে রয়েছেন। ফ্ল্যাটের বাথরুমে ছিলেন জিমিনের ভাই। তিনিই রক্তাক্ত অবস্থায় জিমিনকে পড়ে থাকতে দেখেন। তাঁর মাথায় বুলেটের ক্ষতচিহ্ন ছিল। জিমিনের পাশেই পড়েছিল একটি রাবার বুলেট ছোড়ার পিস্তল।

এমন সময় এই গুলির ঘটনা ঘটল, যখন ঘুস নেওয়ার অভিযোগে তদন্তের মুখোমুখি হয়েছেন জিমিন। কাস্টমস সার্ভিসে যোগদানের পর এই অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। তিনি ওই ফৌজদারি মামলায় গৃহবন্দী অবস্থায় ছিলেন। যদিও নিজের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগই অস্বীকার করেছেন জিমিন। 
তবে কারা তাকে গুলি করল তা জানা যায়নি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা