শতবর্ষের মধ্যে সর্বোচ্চ স্তরে নদীর পানি, চীনে রেকর্ড বন্যা
jugantor
শতবর্ষের মধ্যে সর্বোচ্চ স্তরে নদীর পানি, চীনে রেকর্ড বন্যা

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৩ জুন ২০২২, ১৭:২৩:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারি বর্ষণে চীনের পার্ল নদীর পানি গত একশ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ স্তরে প্রবাহিত হওয়ায় দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে দেখা দিয়েছে রেকর্ড বন্যা। বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এই অঞ্চলের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা থেকে কয়েক লাখ মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বন্যা কবলিত এলাকার মধ্যে রয়েছে নচীনের প্রযুক্তির রাজধানী শেনজেনের আবাসস্থল গুয়াংডং প্রদেশ।

চীনের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় বুধবার পার্ল নদীর অববাহিকায় সর্বোচ্চ বন্যা সতর্কতা জারি করে জানিয়েছে, নদীর একটি স্থানে পানির স্তর ‘ঐতিহাসিক রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে’। বন্যায় প্রাদেশিক রাজধানী গুয়াংজু প্রভাবিত হবে বলেও জানিয়েছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

গুয়াংজুয়ের উত্তরে শাওগুয়ান শহরের প্রধান রাস্তাও পানিতে তলিয়ে গেছে। কিছু এলাকায় পানি গাড়ির ছাদ পর্যন্ত পৌঁছেছে।

বন্যার কর্দমাক্ত পানিতে দোকান ও বাসভবন প্লাবিত হয়েছে। স্থানীয়দের ধ্বংসাবশেষ সরিয়ে নিতে দেখা গেছে।

নিম্নাঞ্চলীয় পার্ল নদীর ব-দ্বীপ গুয়াংঝো এবং শেনজেনের অর্থনৈতিক চালিকা শক্তি।অন্যান্য শিল্পসহ বেশ কয়েকটি ছোট কিন্তু ঘনবসতিপূর্ণ শহরও এই নদীর তীরে অবস্থিত।

চীনা কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত এই বছরের চরম বন্যা পরিস্থিতিকে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত করেনি।

কিছু স্থানীয় গণমাধ্যম এই বন্যাকে ‘এক শতাব্দীতে একবারের বন্যা’ বলে অভিহিত করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পানির স্তর ১৯৩১ সালে রেকর্ড করা সর্বোচ্চ স্তরকে ছাড়িয়ে গেছে এবং বর্তমান পরিস্থিতি ১৯১৫ সালে ওই অঞ্চলের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির কাছাকাছি পৌঁছেছে।

শতবর্ষের মধ্যে সর্বোচ্চ স্তরে নদীর পানি, চীনে রেকর্ড বন্যা

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৩ জুন ২০২২, ০৫:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারি বর্ষণে চীনের পার্ল নদীর পানি গত একশ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ স্তরে প্রবাহিত হওয়ায় দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে দেখা দিয়েছে রেকর্ড বন্যা।  বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এই অঞ্চলের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা থেকে কয়েক লাখ মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বন্যা কবলিত এলাকার মধ্যে রয়েছে নচীনের প্রযুক্তির রাজধানী শেনজেনের আবাসস্থল গুয়াংডং প্রদেশ।

চীনের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় বুধবার পার্ল নদীর অববাহিকায় সর্বোচ্চ বন্যা সতর্কতা জারি করে জানিয়েছে, নদীর একটি স্থানে পানির স্তর ‘ঐতিহাসিক রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে’। বন্যায় প্রাদেশিক রাজধানী গুয়াংজু প্রভাবিত হবে বলেও জানিয়েছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়। 

গুয়াংজুয়ের উত্তরে শাওগুয়ান শহরের প্রধান রাস্তাও পানিতে তলিয়ে গেছে।  কিছু এলাকায় পানি গাড়ির ছাদ পর্যন্ত পৌঁছেছে।

বন্যার কর্দমাক্ত পানিতে দোকান ও বাসভবন প্লাবিত হয়েছে। স্থানীয়দের  ধ্বংসাবশেষ সরিয়ে নিতে দেখা গেছে।

নিম্নাঞ্চলীয় পার্ল নদীর ব-দ্বীপ গুয়াংঝো এবং শেনজেনের অর্থনৈতিক চালিকা শক্তি। অন্যান্য শিল্পসহ বেশ কয়েকটি ছোট কিন্তু ঘনবসতিপূর্ণ শহরও এই নদীর তীরে অবস্থিত।

চীনা কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত এই বছরের চরম বন্যা পরিস্থিতিকে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত করেনি।

কিছু স্থানীয় গণমাধ্যম এই বন্যাকে ‘এক শতাব্দীতে একবারের বন্যা’ বলে অভিহিত করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পানির স্তর ১৯৩১ সালে রেকর্ড করা সর্বোচ্চ স্তরকে ছাড়িয়ে গেছে এবং বর্তমান পরিস্থিতি ১৯১৫  সালে ওই অঞ্চলের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির কাছাকাছি পৌঁছেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন