২৪ ঘণ্টার মধ্যে তুরস্ককে সুখবর দিল যুক্তরাষ্ট্র
jugantor
২৪ ঘণ্টার মধ্যে তুরস্ককে সুখবর দিল যুক্তরাষ্ট্র

  অনলাইন ডেস্ক  

২৯ জুন ২০২২, ২২:২৭:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের একজন উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তা বুধবার বলেছেন, তুরস্ককে এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের আপডেট ভার্সন (নতুন সংস্করণ) দেওয়ার বিষয়টিকে সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র।

মঙ্গলবার ফিনল্যান্ড-সুইডেনের ন্যাটো সদস্য হওয়ার বিষয়টির ওপর থেকে নিজেদের ভেটো তুলে নেয় তুরস্ক।

আর ভেটো তুলে নেওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের অত্যাধুনিক এফ-১৬ ফাইটার জেট পাওয়ার ইঙ্গিত পেল তুরস্ক।

গত বছরের অক্টোবর মাসে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে লকহিড-মার্টিনের তৈরি ৪০টি এফ-১৬ ফাইটার বিমান এবং নিজেদের কাছে থাকা বাকি এফ-১৬ বিমানগুলো আধুনিকরণে যন্ত্রাংশ চেয়েছিল তুরস্ক।

কিন্তু ওই সময় যুক্তরাষ্ট্র তুরস্কের এ আহ্বানে সাড়া দেয়নি।

এদিকে ফিনল্যান্ড-সুইডেনের ন্যাটো আবেদনের ওপর থেকে ভেটো সরিয়ে দিয়ে তুরস্ক যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে সুবিধা আদায় করে নিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যদিও তুরস্কের সঙ্গে কোনো প্রকার সমঝোতা হওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

রাশিয়ার এস-৪০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনায় তুরস্কের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র এবং তাদের এফ-৩৫ যুদ্ধবিমানের পোগ্রামের বাইরে রাখে দেশটি।

নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে তুরস্কের অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান প্রয়োজন ছিল। তাছাড়া পুরনো আরও ৮০টি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান আধুনিকীকরণ করা তাদের জন্য অত্যাবশ্যকীয় হয়ে ওঠেছিল।

তুরস্কের কাছে বিমানগুলো বিক্রি করতে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের অনুমোদন প্রয়োজন হবে। বাইডেন প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে এই অনুমোদন দেওয়া হবে।

সূত্র: আল আরাবিয়া

২৪ ঘণ্টার মধ্যে তুরস্ককে সুখবর দিল যুক্তরাষ্ট্র

 অনলাইন ডেস্ক 
২৯ জুন ২০২২, ১০:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাষ্ট্রের একজন উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তা বুধবার বলেছেন, তুরস্ককে এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের আপডেট ভার্সন (নতুন সংস্করণ) দেওয়ার বিষয়টিকে সমর্থন করে যুক্তরাষ্ট্র।

মঙ্গলবার ফিনল্যান্ড-সুইডেনের ন্যাটো সদস্য হওয়ার বিষয়টির ওপর থেকে নিজেদের ভেটো তুলে নেয় তুরস্ক। 

আর ভেটো তুলে নেওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের অত্যাধুনিক এফ-১৬ ফাইটার জেট পাওয়ার ইঙ্গিত পেল তুরস্ক। 

গত বছরের অক্টোবর মাসে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে লকহিড-মার্টিনের তৈরি ৪০টি এফ-১৬ ফাইটার বিমান এবং নিজেদের কাছে থাকা বাকি এফ-১৬ বিমানগুলো আধুনিকরণে যন্ত্রাংশ চেয়েছিল তুরস্ক। 

কিন্তু ওই সময় যুক্তরাষ্ট্র তুরস্কের এ আহ্বানে সাড়া দেয়নি। 

এদিকে ফিনল্যান্ড-সুইডেনের ন্যাটো আবেদনের ওপর থেকে ভেটো সরিয়ে দিয়ে তুরস্ক যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে সুবিধা আদায় করে নিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যদিও তুরস্কের সঙ্গে কোনো প্রকার সমঝোতা হওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

রাশিয়ার এস-৪০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনায় তুরস্কের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র এবং তাদের এফ-৩৫ যুদ্ধবিমানের পোগ্রামের বাইরে রাখে দেশটি। 

নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে তুরস্কের অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান প্রয়োজন ছিল। তাছাড়া পুরনো আরও ৮০টি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান আধুনিকীকরণ করা তাদের জন্য অত্যাবশ্যকীয় হয়ে ওঠেছিল।

তুরস্কের কাছে বিমানগুলো বিক্রি করতে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের অনুমোদন প্রয়োজন হবে। বাইডেন প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে এই অনুমোদন দেওয়া হবে।

সূত্র: আল আরাবিয়া

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা