করাচিতে ডাকাত সন্দেহে এক ব্যক্তির শরীরে আগুন দিল জনতা
jugantor
করাচিতে ডাকাত সন্দেহে এক ব্যক্তির শরীরে আগুন দিল জনতা

  যুগান্তর ডেস্ক  

৩০ জুন ২০২২, ১৭:০৯:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানের বন্দরনগরী করাচিতে ডাকাত সন্দেহে এক ব্যক্তিতে গুলি করার পর তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডন এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

পুলিশ জানায়, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোরে করাচির ওরাঙ্গি টাউনের ১১ নম্বর সেক্টরের আলতাফ নগরে আজহার ফারুকের কাছ থেকে তিন ডাকাত নগদ টাকা ও অন্যান্য মূল্যবান জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে।

মাংঘোপীরের এসএইচও ইয়াসিন গুজ্জর জানান,আজহার ফারুক বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে ডাকাতরা তাকে গুলি করে।

তিনি বলেন, এই ঘটনায় এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে পড়েন। ডাকাত দলের দুই জন পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও তারা এক সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে ধরে ফেলেন।

এরপর উত্তেজিত জনতা তাকে মারধর করে, তার দুই পা বেঁধে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এসএইচও ইয়াসিন গুজ্জর আরও বলেন, একটি পুলিশ টহল ঘটনাস্থলে পৌঁছে সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় এবং তাকে আব্বাসি শহীদ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করে।

তিনি বলেন, তারও গুলি লেগেছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

আহত আজহার ফারুককে চিকিৎসার জন্য করাচির সিভিল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

পুলিশ সার্জন ডা. সুমাইয়া সৈয়দ জানান, সাজিদ নামে সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে ১৮ শতাংশ পুড়ে যাওয়া অবস্থায় সিএইচকে বার্নস সেন্টারে নিয়ে আসা হয়।

এই নিয়ে ওরাঙ্গি টাউনে একই ধরনের তিনটি ঘটনা ঘটল। স্থানীয় সময় সোমবার ভোরে পাকিস্তান বাজার থানা এলাকায় এক সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করে উত্তেজিত জনতা। পিরাবাদের আরেকটি ঘটনায়, সন্দেহভাজন বিলাল খান নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করে বিক্ষুব্ধ জনতা।

করাচিতে ডাকাত সন্দেহে এক ব্যক্তির শরীরে আগুন দিল জনতা

 যুগান্তর ডেস্ক 
৩০ জুন ২০২২, ০৫:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানের বন্দরনগরী করাচিতে ডাকাত সন্দেহে এক ব্যক্তিতে গুলি করার পর তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডন এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

পুলিশ জানায়, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোরে করাচির ওরাঙ্গি টাউনের ১১ নম্বর সেক্টরের আলতাফ নগরে আজহার ফারুকের কাছ থেকে তিন ডাকাত নগদ টাকা ও অন্যান্য মূল্যবান জিনিসপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে।

মাংঘোপীরের এসএইচও ইয়াসিন গুজ্জর জানান,আজহার ফারুক বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে ডাকাতরা তাকে গুলি করে।

তিনি বলেন, এই ঘটনায় এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে পড়েন। ডাকাত দলের দুই জন পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও তারা এক সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে ধরে ফেলেন। 

এরপর উত্তেজিত জনতা তাকে মারধর করে, তার দুই পা বেঁধে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এসএইচও ইয়াসিন গুজ্জর আরও বলেন, একটি পুলিশ টহল ঘটনাস্থলে পৌঁছে সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় এবং তাকে আব্বাসি শহীদ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করে।

তিনি বলেন, তারও গুলি লেগেছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

আহত আজহার ফারুককে চিকিৎসার জন্য করাচির সিভিল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

পুলিশ সার্জন ডা. সুমাইয়া সৈয়দ জানান, সাজিদ নামে সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে ১৮ শতাংশ পুড়ে যাওয়া অবস্থায় সিএইচকে বার্নস সেন্টারে নিয়ে আসা হয়।

এই নিয়ে ওরাঙ্গি টাউনে একই ধরনের তিনটি ঘটনা ঘটল। স্থানীয় সময় সোমবার ভোরে পাকিস্তান বাজার থানা এলাকায় এক সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করে উত্তেজিত জনতা। পিরাবাদের আরেকটি ঘটনায়, সন্দেহভাজন বিলাল খান নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করে বিক্ষুব্ধ জনতা।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন