দীর্ঘদিন পর প্রকাশ্যে এসে যে ‘হুঁশিয়ারি’ দিলেন আখুন্দজাদা
jugantor
দীর্ঘদিন পর প্রকাশ্যে এসে যে ‘হুঁশিয়ারি’ দিলেন আখুন্দজাদা

  যুগান্তর ডেস্ক  

০১ জুলাই ২০২২, ২১:১১:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘদিন পর জনসম্মুখে এসেছেন আড়ালে থাকা তালেবানের শীর্ষ নেতা হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা। শুক্রবার আফগানিস্তানের রাজধানীতে আলেমদের একটি বড় সমাবেশে উপস্থিত হন তিনি।

এ সময় ওই সমাবেশে তিনি ঘণ্টাব্যাপী বক্তব্য রাখেন। তার ওই বক্তব্য রাষ্ট্রীয় রেডিও সম্প্রচারিত হয়েছে।

এ সময় তিনি আফগানিস্তানের ব্যাপারে নাক গলানো নিয়ে বহির্বিশ্বের প্রতি কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, কেন বিশ্ব আমাদের ব্যাপারে মাথা ঘামায়? তার বলে, 'কেন তোমরা এটা করো না, কেন করো না?' কেন বিশ্ব আমাদের কাজে হস্তক্ষেপ করে?

আখুন্দজাদা বলেন, তালেবান আফগানিস্তানের জন্য জয়লাভ করেছে, তবে এই বিষয়টি ‘ওলামা’ বা ধর্মীয় ব্যক্তিত্বরা নতুন শাসকদের কীভাবে শরিয়া আইন সঠিকভাবে প্রয়োগ করা যায় সে বিষয়ে পরামর্শ দেওয়ার উপর নির্ভর করে।

তিনি বলেন, শরিয়া ব্যবস্থা দুটি অংশের অধীনে– আলেম এবং শাসক। যদি আলেমরা কর্তৃপক্ষকে ভালো করার পরামর্শ না দেন বা শাসকরা আলেমদের জন্য দ্বাররুদ্ধ করে দেন, তাহলে আমাদের ইসলামিক ব্যবস্থা থাকবে না।

অমুসলিম দেশগুলো সব সময় একটি বিশুদ্ধ ইসলামী রাষ্ট্রের বিরোধিতা করবে, তাই বিশ্বস্তদের তারা যা চায় তা পেতে কষ্ট সহ্য করতে হয়েছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রতিযোগিতা করতে হবে, কষ্ট সহ্য করতে হবে... বর্তমান বিশ্ব সহজে মেনে নেবে না ইসলামি ব্যবস্থা বাস্তবায়ন করা।

এই সমাবেশে কোনো নারী আলেম যোগ দেননি। তবে একটি তালেবান সূত্র চলতি সপ্তাহে এএফপিকে বলেছে, মেয়েদের শিক্ষার মতো কণ্টকাকীর্ণ বিষয়গুলো নিয়ে এই সমাবেশে আলোচনা হবে।

বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া তিন দিনের সমাবেশে তিন হাজারেও বেশি আলেম কাবুলে জড়ো হয়েছেন। ওই সমাবেশে আখুন্দজাদার উপস্থিতি নিয়ে কয়েকদিন ধরে গুজব শোনা যাচ্ছিল। যদিও ওই সমাবেশে গণমাধ্যমের উপস্থিতি নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এর আগে তালেবান দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতা দখলের মাস দুয়েক পর গত বছরের অক্টোবরে প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে এসেছিলেন আখুন্দজাদা। সে সময় কান্দাহারে দারুল উলুম হাকিমা মাদ্রাসা পরিদর্শন করেন তালেবানের শীর্ষ নেতা।

তবে গত বছরের আগস্টে তালেবান দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় আসার পর আখুন্দজাদার কোনো ছবি বা ভিডিও ধারণ করা হয়নি। ওই সময়ও রেডিওতে তার বক্তব্য প্রচারিত হয়েছিল।

গত ১৫ আগস্ট তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে। এরপর থেকে সংগঠনটির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের দেখা মিললেও সর্বোচ্চ নেতা (সুপ্রিম লিডার) আখুন্দজাদা পর্দার আড়ালেই ছিলেন। জনসম্মুখে খুব একটা আসার নজির নেই তার।

দীর্ঘদিন পর প্রকাশ্যে এসে যে ‘হুঁশিয়ারি’ দিলেন আখুন্দজাদা

 যুগান্তর ডেস্ক 
০১ জুলাই ২০২২, ০৯:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘদিন পর জনসম্মুখে এসেছেন আড়ালে থাকা তালেবানের শীর্ষ নেতা হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা। শুক্রবার আফগানিস্তানের রাজধানীতে আলেমদের একটি বড় সমাবেশে উপস্থিত হন তিনি।  

এ সময় ওই সমাবেশে তিনি ঘণ্টাব্যাপী বক্তব্য রাখেন।  তার ওই বক্তব্য রাষ্ট্রীয় রেডিও সম্প্রচারিত হয়েছে।

এ সময় তিনি আফগানিস্তানের ব্যাপারে নাক গলানো নিয়ে বহির্বিশ্বের প্রতি কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, কেন বিশ্ব আমাদের ব্যাপারে মাথা ঘামায়? তার বলে, 'কেন তোমরা এটা করো না, কেন করো না?' কেন বিশ্ব আমাদের কাজে হস্তক্ষেপ করে?

আখুন্দজাদা বলেন, তালেবান আফগানিস্তানের জন্য জয়লাভ করেছে, তবে এই বিষয়টি ‘ওলামা’ বা ধর্মীয় ব্যক্তিত্বরা নতুন শাসকদের কীভাবে শরিয়া আইন সঠিকভাবে প্রয়োগ করা যায় সে বিষয়ে পরামর্শ দেওয়ার উপর নির্ভর করে।

তিনি বলেন, শরিয়া ব্যবস্থা দুটি অংশের অধীনে– আলেম এবং শাসক। যদি আলেমরা কর্তৃপক্ষকে ভালো করার পরামর্শ না দেন বা শাসকরা আলেমদের জন্য দ্বাররুদ্ধ করে দেন, তাহলে আমাদের ইসলামিক ব্যবস্থা থাকবে না।

অমুসলিম দেশগুলো সব সময় একটি বিশুদ্ধ ইসলামী রাষ্ট্রের বিরোধিতা করবে, তাই বিশ্বস্তদের তারা যা চায় তা পেতে কষ্ট সহ্য করতে হয়েছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন,  প্রতিযোগিতা করতে হবে, কষ্ট সহ্য করতে হবে... বর্তমান বিশ্ব সহজে মেনে নেবে না ইসলামি ব্যবস্থা বাস্তবায়ন করা।

এই সমাবেশে কোনো নারী আলেম যোগ  দেননি। তবে একটি তালেবান সূত্র চলতি সপ্তাহে এএফপিকে বলেছে, মেয়েদের শিক্ষার মতো কণ্টকাকীর্ণ বিষয়গুলো নিয়ে এই সমাবেশে আলোচনা হবে। 

বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া তিন দিনের সমাবেশে তিন হাজারেও বেশি আলেম কাবুলে জড়ো হয়েছেন। ওই সমাবেশে আখুন্দজাদার উপস্থিতি নিয়ে কয়েকদিন ধরে গুজব শোনা যাচ্ছিল। যদিও ওই সমাবেশে গণমাধ্যমের উপস্থিতি নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এর আগে তালেবান দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতা দখলের মাস দুয়েক পর গত বছরের অক্টোবরে প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে এসেছিলেন আখুন্দজাদা। সে সময় কান্দাহারে দারুল উলুম হাকিমা মাদ্রাসা পরিদর্শন করেন তালেবানের শীর্ষ নেতা।

তবে গত বছরের আগস্টে তালেবান দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় আসার পর আখুন্দজাদার কোনো ছবি বা ভিডিও ধারণ করা হয়নি। ওই সময়ও রেডিওতে তার বক্তব্য প্রচারিত হয়েছিল। 

গত ১৫ আগস্ট তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে। এরপর থেকে সংগঠনটির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের দেখা মিললেও সর্বোচ্চ নেতা (সুপ্রিম লিডার) আখুন্দজাদা পর্দার আড়ালেই ছিলেন। জনসম্মুখে খুব একটা আসার নজির নেই তার।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আফগানিস্তানে তালেবানের পুনরুত্থান