যে কারণে মেয়েকে গুলি করে করে হত্যা করলেন বাবা!
jugantor
যে কারণে মেয়েকে গুলি করে করে হত্যা করলেন বাবা!

  যুগান্তর ডেস্ক  

০২ জুলাই ২০২২, ২২:৪৭:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করার ‘অপরাধে’ নিজের কিশোরী মেয়ে বুকে শটগ্যান ঠেকিয়ে গুলি করে হত্যা করেছেন এক ব্যক্তি। ইরানে এই ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনাকে অনার-কিলিং বা পরিবারের সম্মান রক্ষার্থে হত্যার ঘটনা হিসেবে দেখছেন দেশটির নারী অধিকার কর্মীরা। তারা জানান, ইরানের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর নুরাবাদে একজন যুবকের সঙ্গে দেখা করার ১৬ বছর বয়সী ওই কিশোরীকে গুলি করে হত্যা করেন বাবা।

বাবার সঙ্গে কথা কাটাকাটির পর মেয়েটি তার নানির বাড়িতে পালিয়ে যায়। সেখানেই বাবা উপস্থিত হয়ে মেয়েটিকে হত্যা করেন।

স্থানীয় রোকনা নিউজ ওয়েবসাইটকে মেয়েটির বাবা বলেন, আমি সত্যিই আমার মেয়েকে ইচ্ছা করে হত্যা করিনি। আমি অনিচ্ছাকৃতভাবে গুলি করেছি। আমি শটগান নিয়ে সেখানে গিয়েছিলাম শুধুমাত্র তাকে ভয় দেখানোর জন্য।

৪৩ বছর বয়সী বাবাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি তার অপরাধ স্বীকার করেছেন বলে রোকনার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ইরানে, একজন বাবা তার সন্তানকে হত্যা করলে তার মৃত্যুদণ্ড হয় না বলে এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ইরানে অনার কিলিংয়ের কোনো সঠিক পরিসংখ্যান নেই। তবে সংবাদ সংস্থা আইএসএনএ’র অনুমান প্রতি বছর দেশটিতে ৩৭৫ থেকে ৪৫০টির মতো অনার কিলিং এর ঘটনা ঘটে; যা দেশটির মোট হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পঞ্চমাংশ।

যে কারণে মেয়েকে গুলি করে করে হত্যা করলেন বাবা!

 যুগান্তর ডেস্ক 
০২ জুলাই ২০২২, ১০:৪৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করার ‘অপরাধে’ নিজের কিশোরী মেয়ে বুকে শটগ্যান ঠেকিয়ে গুলি করে হত্যা করেছেন এক ব্যক্তি। ইরানে এই ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনাকে অনার-কিলিং বা পরিবারের সম্মান রক্ষার্থে হত্যার ঘটনা হিসেবে দেখছেন দেশটির নারী অধিকার কর্মীরা। তারা জানান, ইরানের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর নুরাবাদে একজন যুবকের সঙ্গে দেখা করার ১৬ বছর বয়সী ওই কিশোরীকে গুলি করে হত্যা করেন বাবা।

বাবার সঙ্গে কথা কাটাকাটির পর মেয়েটি তার নানির বাড়িতে পালিয়ে যায়। সেখানেই বাবা উপস্থিত হয়ে মেয়েটিকে হত্যা করেন।

স্থানীয় রোকনা নিউজ ওয়েবসাইটকে মেয়েটির বাবা বলেন, আমি সত্যিই আমার মেয়েকে ইচ্ছা করে হত্যা করিনি। আমি অনিচ্ছাকৃতভাবে গুলি করেছি। আমি  শটগান নিয়ে সেখানে গিয়েছিলাম শুধুমাত্র তাকে ভয় দেখানোর জন্য।

৪৩ বছর বয়সী বাবাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি তার অপরাধ স্বীকার করেছেন বলে রোকনার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ইরানে, একজন বাবা তার সন্তানকে হত্যা করলে তার মৃত্যুদণ্ড হয় না বলে এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ইরানে অনার কিলিংয়ের কোনো সঠিক পরিসংখ্যান নেই। তবে সংবাদ সংস্থা আইএসএনএ’র অনুমান প্রতি বছর দেশটিতে ৩৭৫ থেকে ৪৫০টির মতো অনার কিলিং এর ঘটনা ঘটে; যা দেশটির মোট হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পঞ্চমাংশ। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন