ফাঁসির লাইভ দেখাতে চান আদালত!
jugantor
ফাঁসির লাইভ দেখাতে চান আদালত!

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৮ জুলাই ২০২২, ২১:৪৪:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহপাঠীকে হত্যা করেছিলেন এক তরুণ। অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় সেই তরুণের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। শুধু আদেশ দিয়েই ক্ষান্ত হননি; ফাঁসির লাইভ দেখাতে পার্লামেন্টের দারস্থও হয়েছেন আদালত।

মিশরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ইন্ডিপেনডেন্ট এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিশরের মানসৌরা বিশ্ববিদ্যালয়ে একই সঙ্গে পড়াশোনা করতেন মোহাম্মদ আদেল (২১) ও নায়েরা আশরাফ। আদেল নায়েরাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। নায়েরা সেই প্রস্তাব নাকচ করে দিলে তাকে হত্যা করেন আদেল।

দোষী প্রমাণিত হওয়ায় আদালত গত ২৮ জুন তার মৃত্যুদণ্ডের দেয়। এরপর আদেলের মৃত্যুদণ্ড টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করার জন্য দেশটির পার্লামেন্টের কাছে আবেদন করেছে মানসৌরা আদালত। দেশের তরুণ প্রজন্মকে আগামী দিনে এই কাজ থেকে বিরত রাখাই আদালতের লক্ষ্য বলে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।


ফাঁসির লাইভ দেখাতে চান আদালত!

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৮ জুলাই ২০২২, ০৯:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহপাঠীকে হত্যা করেছিলেন এক তরুণ।  অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় সেই তরুণের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। শুধু আদেশ দিয়েই ক্ষান্ত হননি; ফাঁসির লাইভ দেখাতে পার্লামেন্টের দারস্থও হয়েছেন আদালত। 

মিশরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ইন্ডিপেনডেন্ট এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিশরের মানসৌরা বিশ্ববিদ্যালয়ে একই সঙ্গে পড়াশোনা করতেন মোহাম্মদ আদেল (২১) ও নায়েরা আশরাফ। আদেল নায়েরাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। নায়েরা সেই প্রস্তাব নাকচ করে দিলে তাকে হত্যা করেন আদেল। 

দোষী প্রমাণিত হওয়ায় আদালত গত ২৮ জুন তার মৃত্যুদণ্ডের দেয়। এরপর আদেলের মৃত্যুদণ্ড টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করার জন্য দেশটির পার্লামেন্টের কাছে আবেদন করেছে মানসৌরা আদালত।  দেশের তরুণ প্রজন্মকে আগামী দিনে এই কাজ থেকে বিরত রাখাই আদালতের লক্ষ্য বলে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। 


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন