ফের কয়লা যুগে প্রবেশ করছে বিশ্ব
jugantor
ফের কয়লা যুগে প্রবেশ করছে বিশ্ব

  যুগান্তর ডেস্ক  

৩১ জুলাই ২০২২, ২২:৫২:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

আন্তর্জাতিক বাজারে বেড়েছে কয়লার দাম। ২০২২ সালে বিশ্বব্যাপী কয়লার চাহিদা আট বিলিয়ন টনে পৌঁছাতে পারে। ২০২৩ সালে এই চাহিদা আরও বাড়বে বলে আন্তর্জাতিক শক্তি সংস্থা (আইইএ) বৃহস্পতিবার প্রকাশিত একটি কয়লা বাজার আপডেট প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

আইইএ’র ওই কয়লা বাজার আপডেট প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমান অর্থনৈতিক এবং বাজারের প্রবণতার উপর ভিত্তি করে, বিশ্বব্যাপী কয়লা ব্যবহার ২০২২ সালে ০.৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে 8 বিলিয়ন টন হবে বলে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। বছরের দ্বিতীয়ার্ধে চীনের অর্থনীতি আশানুরূপ পুনরুদ্ধার করবে...এই বৈশ্বিক সামষ্টিক হার ২০১৩ সালে কয়লার বার্ষিক রেকর্ড চাহিদার সঙ্গে মিলে যাবে এবং পরের বছর ২০২৩ সালে কয়লার চাহিদা সর্বকালের সর্বোচ্চ বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে।

আইইএ’র সংস্থার মতে, প্রাকৃতিক গ্যাসের দাম বৃদ্ধির কারণে কয়লার চাহিদা বাড়ছে। অনেক দেশই ক্রমবর্ধমানভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনে গ্যাসের বদলে কয়লার ওপর নির্ভর করছে। বন্ধ হয়ে যাওয়া কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র পুনরায় চালু করতে বাধ্য হচ্ছে কোনো কোনো দেশ।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায় ইউরোপের প্রধান অর্থনৈতিক শক্তি জার্মানির কথা। রাশিয়ার গ্যাস সরবরাহ নিয়ে অনিশ্চিয়া দেখা দেওয়ার কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের দিকে ঝুঁকছে জার্মানি। দেশটির অর্থমন্ত্রী রোবার্ট হাবেক এই সংকটকে স্মরণকালের অন্যতম আখ্যা দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে তিনি বলেন, রাশিয়া থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের অন্যতম কাঁচামাল গ্যাস রপ্তানি কমিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। সেই সঙ্গে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র ফের সচল করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

ফের কয়লা যুগে প্রবেশ করছে বিশ্ব

 যুগান্তর ডেস্ক 
৩১ জুলাই ২০২২, ১০:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আন্তর্জাতিক বাজারে বেড়েছে কয়লার দাম। ২০২২ সালে বিশ্বব্যাপী কয়লার চাহিদা আট বিলিয়ন টনে পৌঁছাতে পারে। ২০২৩ সালে এই চাহিদা আরও বাড়বে বলে আন্তর্জাতিক শক্তি সংস্থা (আইইএ)  বৃহস্পতিবার প্রকাশিত একটি কয়লা বাজার আপডেট প্রতিবেদনে জানিয়েছে। 

আইইএ’র ওই কয়লা বাজার আপডেট প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমান অর্থনৈতিক এবং বাজারের প্রবণতার উপর ভিত্তি করে, বিশ্বব্যাপী কয়লা ব্যবহার ২০২২ সালে ০.৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে 8 বিলিয়ন টন হবে বলে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। বছরের দ্বিতীয়ার্ধে চীনের অর্থনীতি আশানুরূপ পুনরুদ্ধার করবে...এই বৈশ্বিক সামষ্টিক হার ২০১৩ সালে কয়লার বার্ষিক রেকর্ড চাহিদার সঙ্গে মিলে যাবে এবং পরের বছর ২০২৩ সালে কয়লার চাহিদা সর্বকালের সর্বোচ্চ বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। 

আইইএ’র সংস্থার মতে, প্রাকৃতিক গ্যাসের দাম বৃদ্ধির কারণে কয়লার চাহিদা বাড়ছে। অনেক দেশই ক্রমবর্ধমানভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনে গ্যাসের বদলে কয়লার ওপর নির্ভর করছে। বন্ধ হয়ে যাওয়া কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র পুনরায় চালু করতে বাধ্য হচ্ছে কোনো কোনো দেশ।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায় ইউরোপের প্রধান অর্থনৈতিক শক্তি জার্মানির কথা। রাশিয়ার গ্যাস সরবরাহ নিয়ে অনিশ্চিয়া দেখা দেওয়ার  কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের দিকে ঝুঁকছে জার্মানি। দেশটির অর্থমন্ত্রী রোবার্ট হাবেক এই সংকটকে স্মরণকালের অন্যতম আখ্যা দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে তিনি বলেন, রাশিয়া থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের অন্যতম কাঁচামাল গ্যাস রপ্তানি কমিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। সেই সঙ্গে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র ফের সচল করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর