২১০০ কিমি গতির বিমান সাড়ে তিন ঘণ্টায় যাবে লন্ডন থেকে নিউইয়র্ক!
jugantor
২১০০ কিমি গতির বিমান সাড়ে তিন ঘণ্টায় যাবে লন্ডন থেকে নিউইয়র্ক!

  অনলাইন ডেস্ক  

০১ আগস্ট ২০২২, ১৪:৫১:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

আকাশপথে লন্ডন ও নিউইয়র্কের দূরত্ব ৫ হাজার ৫৫৯ কিলোমিটার। বর্তমানে এই দূরত্ব অতিক্রম করতে সাত থেকে সাড়ে আট ঘণ্টা পর্যন্ত সময় লাগে। খবর দি ইন্ডিপেনডেন্টের।

কিন্তু বুম সুপারসনিক সংস্থা লন্ডন থেকে নিউইয়র্ক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর সময় কমিয়ে অর্ধেকে আনছে!

এই সংস্থা এমন একটি বিমানের নকশা তৈরি করেছে, যা মাত্র সাড়ে তিন ঘণ্টায় ব্রিটেন থেকে সোজা আমেরিকায় পৌঁছে দেবে যাত্রীদের।

সংস্থাটি এই বিমানটির নাম রেখেছে ‘ওভারচার’। বিশ্বের দ্রুততম বিমান ‘৭৪৭’, ‘কনকর্ড’-কেও গতিবেগের নিরিখে ছাপিয়ে গেছে এই বিমানটি।

বুম সুপারসনিক সংস্থার কর্মীরা মজার ছলে বলেছেন, ‘কনকর্ড ও ৭৪৭ বিমান দুটির সন্তান হলে তা ওভারচার হতো।’ অনেকে আবার এই বিমানকে ‘সন অব কনকর্ড’ হিসাবে উল্লেখ করেছেন।

ওভারচারের স্বাভাবিক গতিবেগ স্থলভাগের ওপর ঘণ্টায় ২০৯২ কিলোমিটার হলেও জলভাগের ওপর এই বিমানটি ঘণ্টায় ১২৩৯ কিলোমিটার বেগে যেতে পারে।

বুম সুপারসনিক সংস্থার দাবি, মোট ৫১ বার নকশা পরিবর্তন করার পর এই বিমানটির ২৬ মিলিয়ন ঘণ্টাব্যাপী সিমুলেশন টেস্ট এবং পাঁচটি উইন্ড টানেল টেস্ট করা হয়েছে।

২০২৬ সাল থেকে এই বিমানটি উড্ডনের প্রক্রিয়া শুরু হবে। ২০২৯ সালে প্রথম যাত্রী নিয়ে ওড়া শুরু করবে ওভারচার— এমনই পরিকল্পনা রয়েছে সংস্থার।

৬০ হাজার ফুট উচ্চতা পর্যন্ত এই বিমানটি ৬০ থেকে ৮০ যাত্রী নিয়ে উড়তে সক্ষম।

২১০০ কিমি গতির বিমান সাড়ে তিন ঘণ্টায় যাবে লন্ডন থেকে নিউইয়র্ক!

 অনলাইন ডেস্ক 
০১ আগস্ট ২০২২, ০২:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আকাশপথে লন্ডন ও নিউইয়র্কের দূরত্ব ৫ হাজার ৫৫৯ কিলোমিটার। বর্তমানে এই দূরত্ব অতিক্রম করতে সাত থেকে সাড়ে আট ঘণ্টা পর্যন্ত সময় লাগে। খবর দি ইন্ডিপেনডেন্টের।

কিন্তু বুম সুপারসনিক সংস্থা লন্ডন থেকে নিউইয়র্ক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর সময় কমিয়ে অর্ধেকে আনছে!

এই সংস্থা এমন একটি বিমানের নকশা তৈরি করেছে, যা মাত্র সাড়ে তিন ঘণ্টায় ব্রিটেন থেকে সোজা আমেরিকায় পৌঁছে দেবে যাত্রীদের।

সংস্থাটি এই বিমানটির নাম রেখেছে ‘ওভারচার’। বিশ্বের দ্রুততম বিমান ‘৭৪৭’, ‘কনকর্ড’-কেও গতিবেগের নিরিখে ছাপিয়ে গেছে এই বিমানটি।

বুম সুপারসনিক সংস্থার কর্মীরা মজার ছলে বলেছেন, ‘কনকর্ড ও ৭৪৭ বিমান দুটির সন্তান হলে তা ওভারচার হতো।’ অনেকে আবার এই বিমানকে ‘সন অব কনকর্ড’ হিসাবে উল্লেখ করেছেন।

ওভারচারের স্বাভাবিক গতিবেগ স্থলভাগের ওপর ঘণ্টায় ২০৯২ কিলোমিটার হলেও জলভাগের ওপর এই বিমানটি ঘণ্টায় ১২৩৯ কিলোমিটার বেগে যেতে পারে।

বুম সুপারসনিক সংস্থার দাবি, মোট ৫১ বার নকশা পরিবর্তন করার পর এই বিমানটির ২৬ মিলিয়ন ঘণ্টাব্যাপী সিমুলেশন টেস্ট এবং পাঁচটি উইন্ড টানেল টেস্ট করা হয়েছে।

২০২৬ সাল থেকে এই বিমানটি উড্ডনের প্রক্রিয়া শুরু হবে। ২০২৯ সালে প্রথম যাত্রী নিয়ে ওড়া শুরু করবে ওভারচার— এমনই পরিকল্পনা রয়েছে সংস্থার।

৬০ হাজার ফুট উচ্চতা পর্যন্ত এই বিমানটি ৬০ থেকে ৮০ যাত্রী নিয়ে উড়তে সক্ষম।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন