পুতিন-এরদোগান বৈঠকে কি সিদ্ধান্ত নিলেন
jugantor
পুতিন-এরদোগান বৈঠকে কি সিদ্ধান্ত নিলেন

  অনলাইন ডেস্ক  

০৬ আগস্ট ২০২২, ১৯:২৯:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে শুক্রবার দেখা করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিস্যেপ তাইয়েপ এরদোগান।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, পুতিন-এরদোগান সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা যোগাযোগ, কৃষি, অর্থ এবং অবকাঠামো খাতে সহযোগিতামূলক সম্পর্ক বৃদ্ধি করবেন।

চার ঘণ্টা দুইজন বৈঠক করার পর একটি বিবৃতিতে এমনটি বলা হয়।

তাছাড়া তুরস্ক ও জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় যে শস্য চুক্তি হয়েছে সেটিও যেন পুরোপুরি কার্যকর হয় এবং রাশিয়ার কৃষি পণ্য ও সার ও কাঁচা মাল যেন তাদের উৎপাদন কাজের জন্য ঠিক মতো পৌঁছায় সে বিষয়ে কাজ করার জন্য একমত হয়েছেন তারা।

তাছাড়া আরেকটি বড় সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পুতিন-এরদোগান। সেটি হলো রাশিয়ার মূদ্রা রুবল দিয়ে রাশিয়ার কাছ থেকে কিছু গ্যাস কিনবে তুরস্ক। বৈঠক শেষে রাশিয়ার ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী আলেক্সান্ডার নোভাক এ তথ্য জানান।

সংবাদ সংস্থা আরটি জানিয়েছে, পুতিন এরদোগানকে বলেছেন রাশিয়া তুরস্কে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ ছাড়া সব ধরনের জ্বালানি পাঠায়, যার মধ্যে রয়েছে তেল, গ্যাস ও কয়লা।

এদিকে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিস্যেপ তাইয়েপ এরদোগান সিরিয়ায় সামরিক অভিযান পরিচালনা করতে চান। এজন্য রাশিয়ার পুতিনের কাছে ‘সবুজ সংকেতের’ জন্য গিয়েছিলেন তিনি। পুতিন এ ব্যাপারে কি বলেছেন সেটি নিশ্চিত নয়।

তবে রাশিয়ার পক্ষ থেকে শুক্রবারও তুরস্কের প্রতি আহ্বান জানানো হয় তারা যেন সিরিয়ায় কোনো অভিযান না চালায়। কারণ এতে করে সিরিয়ায় অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে।

সূত্র: রয়টার্স

পুতিন-এরদোগান বৈঠকে কি সিদ্ধান্ত নিলেন

 অনলাইন ডেস্ক 
০৬ আগস্ট ২০২২, ০৭:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে শুক্রবার দেখা করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিস্যেপ তাইয়েপ এরদোগান। 

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, পুতিন-এরদোগান সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা যোগাযোগ, কৃষি, অর্থ এবং অবকাঠামো খাতে সহযোগিতামূলক সম্পর্ক বৃদ্ধি করবেন। 

চার ঘণ্টা দুইজন বৈঠক করার পর একটি বিবৃতিতে এমনটি বলা হয়। 

তাছাড়া তুরস্ক ও জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় যে শস্য চুক্তি হয়েছে সেটিও যেন পুরোপুরি কার্যকর হয় এবং রাশিয়ার কৃষি পণ্য ও সার ও কাঁচা মাল যেন তাদের উৎপাদন কাজের জন্য ঠিক মতো পৌঁছায় সে বিষয়ে কাজ করার জন্য একমত হয়েছেন তারা।

তাছাড়া আরেকটি বড় সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পুতিন-এরদোগান। সেটি হলো রাশিয়ার মূদ্রা রুবল দিয়ে রাশিয়ার কাছ থেকে কিছু গ্যাস কিনবে তুরস্ক। বৈঠক শেষে রাশিয়ার ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী আলেক্সান্ডার নোভাক এ তথ্য জানান।

সংবাদ সংস্থা আরটি জানিয়েছে, পুতিন এরদোগানকে বলেছেন রাশিয়া তুরস্কে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ ছাড়া সব ধরনের জ্বালানি পাঠায়, যার মধ্যে রয়েছে তেল, গ্যাস ও কয়লা। 

এদিকে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিস্যেপ তাইয়েপ এরদোগান সিরিয়ায় সামরিক অভিযান পরিচালনা করতে চান। এজন্য রাশিয়ার পুতিনের কাছে ‘সবুজ সংকেতের’ জন্য গিয়েছিলেন তিনি। পুতিন এ ব্যাপারে কি বলেছেন সেটি নিশ্চিত নয়। 

তবে রাশিয়ার পক্ষ থেকে শুক্রবারও তুরস্কের প্রতি আহ্বান জানানো হয় তারা যেন সিরিয়ায় কোনো অভিযান না চালায়। কারণ এতে করে সিরিয়ায় অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে।

সূত্র: রয়টার্স

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা