যে দেশের সঙ্গে নতুন সম্পর্ক তৈরি করতে যাচ্ছে রাশিয়া
jugantor
যে দেশের সঙ্গে নতুন সম্পর্ক তৈরি করতে যাচ্ছে রাশিয়া

  অনলাইন ডেস্ক  

১৫ আগস্ট ২০২২, ১৭:৪৩:১৬  |  অনলাইন সংস্করণ

যে দেশের সঙ্গে নতুন সম্পর্ক তৈরি করতে যাচ্ছে রাশিয়া

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বাড়াবে মস্কো।

সোমবার পিয়ংইয়ংয়ের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের (কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি) বরাতে এমনটি জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

কোরিয়ার স্বাধীনতা দিবসে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনকে লেখা একটি চিঠিতে পুতিন বলেছেন, দুই দেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে বন্ধন আরও গভীর হবে, যা কোরীয় উপদ্বীপ এবং উত্তর-পূর্ব এশীয় অঞ্চলের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা জোরদার করতে সাহায্য করবে।

পুতিনের চিঠির জবাবে কিমও একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। চিঠিতে কিম বলেছেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জাপানের বিরুদ্ধে বিজয়ের মধ্য দিয়ে রাশিয়া-উত্তর কোরিয়ার বন্ধুত্ব গড়ে উঠেছিল।

এরই মধ্যে দুই দেশের মধ্যে কৌশলগত সহযোগিতা, সমর্থন ও সংহতি এক নতুন মাত্রায় উন্নীত হয়েছে। এর ফলে শত্রুপক্ষের সামরিক বাহিনীর হুমকি ও উসকানিকে ব্যর্থ হতে পারে বলে চিঠিতে উল্লেখ করেছেন কিম। শত্রুপক্ষকে তা অবশ্য স্পষ্ট করেনি কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি। তবে সাধারণত শব্দটি যুক্তরাষ্ট্র ও এর জোটকে নির্দেশ করে থাকে।

২০১৯ সালে পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় যে চুক্তিটি হয়েছিল, তার ওপর ভিত্তি করে মস্কো- পিয়ংইয়ংয়ের মধ্যে সহযোগিতার সম্পর্ক গড়ে উঠবে বলে কিম আশা করেছেন।

সূত্র: আল জাজিরা

যে দেশের সঙ্গে নতুন সম্পর্ক তৈরি করতে যাচ্ছে রাশিয়া

 অনলাইন ডেস্ক 
১৫ আগস্ট ২০২২, ০৫:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
যে দেশের সঙ্গে নতুন সম্পর্ক তৈরি করতে যাচ্ছে রাশিয়া
ছবি: সংগৃহীত

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বাড়াবে মস্কো।

সোমবার পিয়ংইয়ংয়ের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের (কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি) বরাতে এমনটি জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

কোরিয়ার স্বাধীনতা দিবসে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনকে লেখা একটি চিঠিতে পুতিন বলেছেন, দুই দেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে বন্ধন আরও গভীর হবে, যা কোরীয় উপদ্বীপ এবং উত্তর-পূর্ব এশীয় অঞ্চলের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা জোরদার করতে সাহায্য করবে।  

পুতিনের চিঠির জবাবে কিমও একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। চিঠিতে কিম বলেছেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জাপানের বিরুদ্ধে বিজয়ের মধ্য দিয়ে রাশিয়া-উত্তর কোরিয়ার বন্ধুত্ব গড়ে উঠেছিল।  

এরই মধ্যে দুই দেশের মধ্যে কৌশলগত সহযোগিতা, সমর্থন ও সংহতি এক নতুন মাত্রায় উন্নীত হয়েছে। এর ফলে শত্রুপক্ষের সামরিক বাহিনীর হুমকি ও উসকানিকে ব্যর্থ হতে পারে বলে চিঠিতে উল্লেখ করেছেন কিম। শত্রুপক্ষকে তা অবশ্য স্পষ্ট করেনি কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি। তবে সাধারণত শব্দটি যুক্তরাষ্ট্র ও এর জোটকে নির্দেশ করে থাকে।  

২০১৯ সালে পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় যে চুক্তিটি হয়েছিল, তার ওপর ভিত্তি করে মস্কো- পিয়ংইয়ংয়ের মধ্যে সহযোগিতার সম্পর্ক গড়ে উঠবে বলে কিম আশা করেছেন।

সূত্র: আল জাজিরা

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা