ক্রিমিয়া ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে রাশিয়ানরা!
jugantor
ক্রিমিয়া ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে রাশিয়ানরা!

  অনলাইন ডেস্ক  

১৬ আগস্ট ২০২২, ২২:৫৪:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার অধিকৃত ক্রিমিয়ার তিনটি আলাদা স্থানে মঙ্গলবার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এর আগের সপ্তাহে ক্রিমিয়ার সাকি বিমান বন্দরে হয়েছিল ভয়াবহ বিস্ফোরণ। কে হামলা করেছে এটি এখনো নিশ্চিত না। তবে ধারণা করা হচ্ছে ইউক্রেন এর পেছনে রয়েছে।

এক সপ্তাহের মধ্যে বেশ কয়েকবার কেঁপে ওঠেছে ক্রিমিয়া। কৃষ্ণ সাগর ঘেরা সমুদ্র সৈকত বেষ্টিত এই ক্রিমিয়া উপদ্বীপটি ২০১৪ সালে ইউক্রেনের কাছ থেকে দখল করে নেয় রাশিয়া। এরপর এখানে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করে রাশিয়ার সরকার। গ্রীষ্মে হাজার হাজার রাশিয়ান এই উপদ্বীপে জড়ো হন।

কিন্তু ক্রিমিয়ায় কয়েকদিনের মধ্যে বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটায় উপদ্বীপটি ছেড়ে অনেকে পালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছে গণমাধ্যম বিবিসি ও দ্য গার্ডিয়ান।

গার্ডিয়ান জানিয়েছে, রাশিয়ার গণমাধ্যমগুলো বলছে ক্রিমিয়া ব্রিজ ব্যবহার করে রেকর্ড সংখ্যক গাড়ি বের হয়ে গেছে। এর মাধ্যমে ধারণা করা যাচ্ছে ২০১৪ সালে উপদ্বীপটি দখল করার পর রাশিয়ার যেসব বাসিন্দা এখানে বসতি গড়েছিলেন তারা পালিয়ে যাচ্ছেন।

আন্তোন গেরাশেঙ্কো নামে একজন ব্যক্তি টুইটে লিখেছেন, রাশিয়ার গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ১৫ আগস্ট ক্রিমিয়া ব্রিজ দিয়ে ৩৮ হাজার ২৯৭টি গাড়ি বের হয়েছে। একদিনে ক্রিমিয়া ব্রিজ ব্যবহার করে সর্বোচ্চ গাড়ি বের হওয়ার রেকর্ড। আমি ভাবছি আজ (১৬ আগস্ট) এই রেকর্ড আবার নতুন করে ভেঙে যাবে কিনা।

অন্যদিকে বিবিসিও একই তথ্য জানিয়েছে।

এদিকে ফেব্রুয়ারির শুরু থেকেই ক্রিমিয়া ব্রিজটিতে হামলা চালানোর হুমকি দিয়ে আসছে ইউক্রেন। যদিও এ সম্ভাবনা কম। কারণ ব্রিজটি কোনো সামরিক স্থাপনা না।

রাশিয়া থেকে ক্রিমিয়ায় সরাসরি সড়ক পথ তৈরি করতে ২০১৮ সালে ক্রিমিয়া ব্রিজটি তৈরি করা হয়।

সূত্র: বিবিসি, দ্য গার্ডিয়ান

ক্রিমিয়া ছেড়ে পালিয়ে যাচ্ছে রাশিয়ানরা!

 অনলাইন ডেস্ক 
১৬ আগস্ট ২০২২, ১০:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার অধিকৃত ক্রিমিয়ার তিনটি আলাদা স্থানে মঙ্গলবার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।  এর আগের সপ্তাহে ক্রিমিয়ার সাকি বিমান বন্দরে হয়েছিল ভয়াবহ বিস্ফোরণ।  কে হামলা করেছে এটি এখনো নিশ্চিত না। তবে ধারণা করা হচ্ছে ইউক্রেন এর পেছনে রয়েছে।

এক সপ্তাহের মধ্যে বেশ কয়েকবার কেঁপে ওঠেছে ক্রিমিয়া। কৃষ্ণ সাগর ঘেরা সমুদ্র সৈকত বেষ্টিত এই ক্রিমিয়া উপদ্বীপটি ২০১৪ সালে ইউক্রেনের কাছ থেকে দখল করে নেয় রাশিয়া। এরপর এখানে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করে রাশিয়ার সরকার।  গ্রীষ্মে হাজার হাজার রাশিয়ান এই উপদ্বীপে জড়ো হন। 

কিন্তু ক্রিমিয়ায় কয়েকদিনের মধ্যে বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটায় উপদ্বীপটি ছেড়ে অনেকে পালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছে গণমাধ্যম বিবিসি ও দ্য গার্ডিয়ান। 

গার্ডিয়ান জানিয়েছে, রাশিয়ার গণমাধ্যমগুলো বলছে ক্রিমিয়া ব্রিজ ব্যবহার করে রেকর্ড সংখ্যক গাড়ি বের হয়ে গেছে। এর মাধ্যমে ধারণা করা যাচ্ছে ২০১৪ সালে উপদ্বীপটি দখল করার পর রাশিয়ার যেসব বাসিন্দা এখানে বসতি গড়েছিলেন তারা পালিয়ে যাচ্ছেন। 

আন্তোন গেরাশেঙ্কো নামে একজন ব্যক্তি টুইটে লিখেছেন, রাশিয়ার গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে,  ১৫ আগস্ট ক্রিমিয়া ব্রিজ দিয়ে ৩৮ হাজার ২৯৭টি গাড়ি বের হয়েছে। একদিনে ক্রিমিয়া ব্রিজ ব্যবহার করে সর্বোচ্চ গাড়ি বের হওয়ার রেকর্ড। আমি ভাবছি আজ (১৬ আগস্ট) এই রেকর্ড আবার নতুন করে ভেঙে যাবে কিনা। 

অন্যদিকে বিবিসিও একই তথ্য জানিয়েছে।

এদিকে ফেব্রুয়ারির শুরু থেকেই ক্রিমিয়া ব্রিজটিতে হামলা চালানোর হুমকি দিয়ে আসছে ইউক্রেন। যদিও এ সম্ভাবনা কম। কারণ ব্রিজটি কোনো সামরিক স্থাপনা না। 
 
রাশিয়া থেকে ক্রিমিয়ায় সরাসরি সড়ক পথ তৈরি করতে ২০১৮ সালে ক্রিমিয়া ব্রিজটি তৈরি করা হয়। 

সূত্র: বিবিসি, দ্য গার্ডিয়ান

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা