সেই বিষয়টি নিয়ে রুশ কমান্ডাররা ‘বেশ চিন্তিত’
jugantor
সেই বিষয়টি নিয়ে রুশ কমান্ডাররা ‘বেশ চিন্তিত’

  অনলাইন ডেস্ক  

১৭ আগস্ট ২০২২, ২২:৫৩:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় তাদের গোয়েন্দাদের বরাতে বুধবার জানিয়েছে, ক্রিমিয়া উপদ্বীপের নিরাপত্তা নিয়ে ‘বেশ চিন্তিত’ হয়ে পড়েছেন রুশ কমান্ডাররা।

ক্রিমিয়া উপদ্বীপে এক সপ্তাহ আগে সাকি বিমান ঘাঁটি ও গত মঙ্গলবার বেশ কয়েকটি স্থানে বিস্ফোরণের পর এমন তথ্য জানাল যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দারা।

টুইটারে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, রাশিয়া এবং ইউক্রেন দুই দেশের কর্তৃপক্ষই ধানকোইয়ের কাছে একটি অস্ত্রের গুদামে হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। ওই স্থানে বিস্ফোরণে একটি রেল স্টেশন ও বিদ্যুৎ কেন্দ্রও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় আরও বলেছে, রাশিয়ার গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, গাভারদেস্কোয়ে বিমান ঘাঁটি থেকেও ধোঁয়া বের হয়েছে। ধানকোই এবং গাভারদেস্কোয়েতে রাশিয়ার দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিমান ঘাঁটি রয়েছে।

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় আরও বলেছে, এসব ঘটনার কারণ এবং কি পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে সেটি এখনো নিশ্চিত নয়। কিন্তু ক্রিমিয়ার নিরাপত্তা নিয়ে রাশিয়ার কমান্ডাররা খুবই চিন্তিত, যেটি ২০১৪ সালে তারা দখল করেছিল।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

সেই বিষয়টি নিয়ে রুশ কমান্ডাররা ‘বেশ চিন্তিত’

 অনলাইন ডেস্ক 
১৭ আগস্ট ২০২২, ১০:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় তাদের গোয়েন্দাদের বরাতে বুধবার জানিয়েছে, ক্রিমিয়া উপদ্বীপের নিরাপত্তা নিয়ে ‘বেশ চিন্তিত’ হয়ে পড়েছেন রুশ কমান্ডাররা। 

ক্রিমিয়া উপদ্বীপে এক সপ্তাহ আগে সাকি বিমান ঘাঁটি ও গত মঙ্গলবার বেশ কয়েকটি স্থানে বিস্ফোরণের পর এমন তথ্য জানাল যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দারা। 

টুইটারে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, রাশিয়া এবং ইউক্রেন দুই দেশের কর্তৃপক্ষই ধানকোইয়ের কাছে একটি অস্ত্রের গুদামে হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। ওই স্থানে বিস্ফোরণে একটি রেল স্টেশন ও বিদ্যুৎ কেন্দ্রও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় আরও বলেছে, রাশিয়ার গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, গাভারদেস্কোয়ে বিমান ঘাঁটি থেকেও ধোঁয়া বের হয়েছে। ধানকোই এবং গাভারদেস্কোয়েতে রাশিয়ার দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিমান ঘাঁটি রয়েছে।

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় আরও বলেছে, এসব ঘটনার কারণ এবং  কি পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে সেটি এখনো নিশ্চিত নয়। কিন্তু ক্রিমিয়ার নিরাপত্তা নিয়ে রাশিয়ার কমান্ডাররা খুবই চিন্তিত, যেটি ২০১৪ সালে তারা দখল করেছিল। 

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা