ইউরোপের সর্ববৃহৎ নিউক্লিয়ার প্লান্ট বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি রাশিয়ার
jugantor
ইউরোপের সর্ববৃহৎ নিউক্লিয়ার প্লান্ট বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি রাশিয়ার

  অনলাইন ডেস্ক  

১৮ আগস্ট ২০২২, ১৬:৪৫:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

প্ল্যান্টকে লক্ষ্য করে ইউক্রেনের সেনারা যদি হামলা অব্যাহত রাখে, তাহলে ইউরোপের সর্ববৃহৎ জাপোরিঝিয়া নিউক্লিয়ার প্লান্ট বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে রাশিয়া।

রাশিয়ার রেডিওঅ্যাকটিভ, কেমিক্যাল ও বায়োলজি প্রতিরক্ষা ফোর্সের প্রধান ইগোর কিরিলোভ বৃহস্পতিবার দাবি করেছেন, প্লান্টের ভবনের ব্যাকআপ ব্যবস্থা হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তিনি হুশিয়ারি দিয়েছেন এখানে যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটে তাহলে প্লান্টের রেডিওঅ্যাকটিভ উপাদান পোল্যান্ড, জার্মানি এবং স্লোভেনিয়ায় ছড়িয়ে পড়বে।

রাশিয়া ইউক্রেনে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি কথিত বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে। এর ঠিক পরপরই জাপোরিঝিয়ায় অবস্থিত জাপোরিঝিয়া নিউক্লিয়ার প্লান্টটি দখল করে।

প্লান্টটি রুশ সেনারা দখল করলেও সেখানে কাজ করে আসছেন ইউক্রেনের কর্মকর্তা এবং কর্মচারীরা।

তবে কিছুদিন যাওয়ার পর প্লান্টকে লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণের ঘটনা ঘটে।

রাশিয়া এবং ইউক্রেন দুই দেশই এসব হামলার জন্য একে অপরকে দায়ী করেছে।

ইউক্রেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বৃহস্পতিবার হুশিয়ারি দিয়ে ইউক্রেনীয়দের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন, তারা যেন যে কোনো ধরনের দুর্ঘটনার জন্য প্রস্তুত থাকেন।

তার দাবি, রুশ সেনারা প্লান্টে ট্যাংক দিয়েও হামলা চালাতে পারে। এতে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

ইউরোপের সর্ববৃহৎ নিউক্লিয়ার প্লান্ট বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি রাশিয়ার

 অনলাইন ডেস্ক 
১৮ আগস্ট ২০২২, ০৪:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্ল্যান্টকে লক্ষ্য করে ইউক্রেনের সেনারা যদি হামলা অব্যাহত রাখে, তাহলে ইউরোপের সর্ববৃহৎ জাপোরিঝিয়া নিউক্লিয়ার প্লান্ট বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে রাশিয়া।

রাশিয়ার রেডিওঅ্যাকটিভ, কেমিক্যাল ও বায়োলজি প্রতিরক্ষা ফোর্সের প্রধান ইগোর কিরিলোভ বৃহস্পতিবার দাবি করেছেন, প্লান্টের ভবনের ব্যাকআপ ব্যবস্থা হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তিনি হুশিয়ারি দিয়েছেন এখানে যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটে তাহলে প্লান্টের রেডিওঅ্যাকটিভ উপাদান পোল্যান্ড, জার্মানি এবং স্লোভেনিয়ায় ছড়িয়ে পড়বে।

রাশিয়া ইউক্রেনে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি কথিত বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে। এর ঠিক পরপরই জাপোরিঝিয়ায় অবস্থিত জাপোরিঝিয়া নিউক্লিয়ার প্লান্টটি দখল করে।

প্লান্টটি রুশ সেনারা দখল করলেও সেখানে কাজ করে আসছেন ইউক্রেনের কর্মকর্তা এবং কর্মচারীরা।

তবে কিছুদিন যাওয়ার পর প্লান্টকে লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণের ঘটনা ঘটে।

রাশিয়া এবং ইউক্রেন দুই দেশই এসব হামলার জন্য একে অপরকে দায়ী করেছে।

ইউক্রেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বৃহস্পতিবার হুশিয়ারি দিয়ে ইউক্রেনীয়দের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন, তারা যেন যে কোনো ধরনের দুর্ঘটনার জন্য প্রস্তুত থাকেন। 

তার দাবি, রুশ সেনারা প্লান্টে ট্যাংক দিয়েও হামলা চালাতে পারে। এতে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা