‘রুশ সেনাদের উপস্থিতি গ্যারান্টি দিচ্ছে যে...’
jugantor
‘রুশ সেনাদের উপস্থিতি গ্যারান্টি দিচ্ছে যে...’

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৯ আগস্ট ২০২২, ১৬:৪৩:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ বলেছেন, ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলের জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক কেন্দ্রে রুশ সেনাদের উপস্থিতি গ্যারান্টি সেখানে কোনো চেরনোবিলের মতো দৃশ্যপট সৃষ্টি হবে না। বার্তা সংস্থা রয়টার্স শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এর আগে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইভান নেচায়েভ বৃহস্পতিবার বলেছিলেন, জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক কেন্দ্রের আশেপাশের এলাকাকে সামরিক মুক্ত করার জন্য জাতিসংঘের দেওয়া প্রস্তাব ‘অগ্রহণযোগ্য’।

ইউরোপের বৃহত্তম এই পারমাণবিক কেন্দ্র ইউক্রেন আগ্রাসনের প্রথম দিকে চলতি বছরের মার্চেই দখলে নিয়েছিল রাশিয়া।

ওই পারমাণবিক স্থাপনা ঘিরে উভয়পক্ষের সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে। এ নিয়ে বিভিন্ন দেশের নেতারা সতর্ক করেছেন।

সম্প্রতি ইউক্রেন সফররত তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান ও জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসও এ নিয়ে সতর্কবার্তা উচ্চারণ করেন।

বৃহস্পতিবার ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় শহর লেভিভে জেলেনস্কির সঙ্গে বৈঠক করেন এরদোগান ও আন্তোনিও গুতেরেস।

বৈঠক শেষে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, আমরা উদ্বিগ্ন। আমরা আরেকটি চেরনোবিল চাই না। আমরা এর একটা সমাধানের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আমরা আমাদের ইউক্রেনীয় বন্ধুদের পাশে আছি।

‘রুশ সেনাদের উপস্থিতি গ্যারান্টি দিচ্ছে যে...’

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ আগস্ট ২০২২, ০৪:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ বলেছেন, ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলের জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক কেন্দ্রে রুশ সেনাদের উপস্থিতি গ্যারান্টি সেখানে কোনো চেরনোবিলের মতো দৃশ্যপট সৃষ্টি হবে না। বার্তা সংস্থা রয়টার্স শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। 

এর আগে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইভান নেচায়েভ বৃহস্পতিবার বলেছিলেন, জাপোরিঝিয়া পারমাণবিক কেন্দ্রের আশেপাশের এলাকাকে সামরিক মুক্ত করার জন্য জাতিসংঘের দেওয়া প্রস্তাব ‘অগ্রহণযোগ্য’।

ইউরোপের বৃহত্তম এই পারমাণবিক কেন্দ্র ইউক্রেন আগ্রাসনের প্রথম দিকে চলতি বছরের মার্চেই দখলে নিয়েছিল রাশিয়া। 

ওই পারমাণবিক স্থাপনা ঘিরে উভয়পক্ষের সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে। এ নিয়ে বিভিন্ন দেশের নেতারা সতর্ক করেছেন।

সম্প্রতি ইউক্রেন সফররত তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান ও জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসও এ নিয়ে সতর্কবার্তা উচ্চারণ করেন।

বৃহস্পতিবার ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় শহর লেভিভে জেলেনস্কির সঙ্গে বৈঠক করেন এরদোগান ও আন্তোনিও গুতেরেস।

বৈঠক শেষে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেন, আমরা উদ্বিগ্ন। আমরা আরেকটি চেরনোবিল চাই না। আমরা এর একটা সমাধানের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আমরা আমাদের ইউক্রেনীয় বন্ধুদের পাশে আছি।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা

আরও খবর