৮৩ দিন পর পুতিনকে ফোন করলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট
jugantor
৮৩ দিন পর পুতিনকে ফোন করলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট

  অনলাইন ডেস্ক  

১৯ আগস্ট ২০২২, ২১:৩১:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়া

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে শুক্রবার ফোনে কথা বলেছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। খবর রয়টার্সের।

গত ২৮ মে সর্বশেষ পুতিনের সঙ্গে কথা বলেছিলেন ম্যাক্রোঁ। এরপর দীর্ঘ ৮৩ দিন পর তারা দুইজন ফের কথা বললেন।

রাশিয়ার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ইউক্রেন পরিস্থিতি নিয়ে কথা হয়েছে পুতিন-ম্যাক্রোঁর।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, এ ফোন কল নিয়ে রাশিয়ার প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পুতিন ম্যাক্রোঁকে বলেছেন জাপোরিঝিয়া নিউক্লিয়ার প্লান্টে গোলাবর্ষণ করছে ইউক্রেনীয় সেনারা। যার কারণে মারাত্বক বিপর্যয়কর পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, দুই প্রেসিডেন্ট সম্মত হয়েছেন প্লান্টটিতে আন্তর্জাতিক আণবিক সংস্থার একটি দলকে পাঠানো হবে।

রাশিয়ার পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, বিশ্ব বাজারে রাশিয়ার সার ও খাদ্য পণ্য পৌঁছানো বাধাগ্রস্ত হচ্ছে সেটি ম্যাক্রোঁকে বলেছেন পুতিন।

এদিকে রুশ সেনাদের দখলে থাকা জাপোরিঝিয়া নিউক্লিয়ার প্লান্ট নিয়ে উদ্বেগের কথা জানিয়েছে জাতিসংঘ ও ইউক্রেন।

কয়েকদিন ধরে নিউক্লিয়ার প্লান্টটিতে একাধিকবার গোলাবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এর দায় একে অপরের ওপর চাপিয়েছে রাশিয়া-ইউক্রেন।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

৮৩ দিন পর পুতিনকে ফোন করলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট

 অনলাইন ডেস্ক 
১৯ আগস্ট ২০২২, ০৯:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রাশিয়া
ইউক্রেনে কথিত বিশেষ সামরিক অভিযান শুরুর আগে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে দেখা করেছিলেন ফ্রান্সের এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে শুক্রবার ফোনে কথা বলেছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। খবর রয়টার্সের।

গত ২৮ মে সর্বশেষ পুতিনের সঙ্গে কথা বলেছিলেন ম্যাক্রোঁ। এরপর দীর্ঘ ৮৩ দিন পর তারা দুইজন ফের কথা বললেন।

রাশিয়ার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ইউক্রেন পরিস্থিতি নিয়ে কথা হয়েছে পুতিন-ম্যাক্রোঁর। 

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, এ ফোন কল নিয়ে রাশিয়ার প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পুতিন ম্যাক্রোঁকে বলেছেন জাপোরিঝিয়া নিউক্লিয়ার প্লান্টে গোলাবর্ষণ করছে ইউক্রেনীয় সেনারা। যার কারণে মারাত্বক বিপর্যয়কর পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, দুই প্রেসিডেন্ট সম্মত হয়েছেন প্লান্টটিতে আন্তর্জাতিক আণবিক সংস্থার একটি দলকে পাঠানো হবে।

রাশিয়ার পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, বিশ্ব বাজারে রাশিয়ার সার ও খাদ্য পণ্য পৌঁছানো বাধাগ্রস্ত  হচ্ছে সেটি ম্যাক্রোঁকে বলেছেন পুতিন।

এদিকে রুশ সেনাদের দখলে থাকা জাপোরিঝিয়া নিউক্লিয়ার প্লান্ট নিয়ে উদ্বেগের কথা জানিয়েছে জাতিসংঘ ও ইউক্রেন। 

কয়েকদিন ধরে নিউক্লিয়ার প্লান্টটিতে একাধিকবার গোলাবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এর দায় একে অপরের ওপর চাপিয়েছে রাশিয়া-ইউক্রেন। 

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা