পুলিশকে ‘জ্বালাতে’ একি করলেন এই নারী!
jugantor
পুলিশকে ‘জ্বালাতে’ একি করলেন এই নারী!

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৯ আগস্ট ২০২২, ২২:৫১:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

পুলিশকে ‘জ্বালাতে’ একি করলেন এই নারী!

পুলিশের জরুরি পরিষেবায় ফোন করে করতেন এক নারী। যেই ফোনটি ধরুন না কেন, শুরু করতেন লাগাতার গালিগালাজ। একবার দুইবার নয়, ১২ হাজার ৫১২ বার ফোন করেছেন তিনি। আর প্রতিবারই করেছেন গালিগালাজ।

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় এই ঘটনা ঘটেছে বলে ফক্সনিউজ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

কার্লা জেফারসন নামে ওই নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে আনা হয়েছে ফৌজদারি অভিযোগ।

পুলিশ জানিয়েছে, পিনেলাস কাউন্টির বাসিন্দা কার্লা জেফারসন প্রায় দিনই ৯১১ এ ফোন করতেন। কর্মকর্তা ফোন ধরলেই তাদের অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করতেন। গত আট মাসে কার্লা ১২ হাজার ৫১২ বার ফোন করেছেন। আর গালাগালিও করেছেন।

সেন্ট পিটার্সবার্গ পুলিশের মুখপাত্র ইয়োলান্ডা ফার্নান্ডেজ ফক্স নিউজবে বলেন, এটা এমন বিষয় নয় যে, ফোন করে পুলিশকে দু’দিন গালাগাল দিলাম। ওই নারী সব সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছেন।

ফার্নান্ডেজ বলেন, ২৪ ঘণ্টায় ৫১২ বার ফোন করেছিলেন ওই নারী। প্রথমে তার সঙ্গে খুব ভদ্র ভাবেই কথা বলতেন পুলিশ সদস্যরা। কিন্তু ধীরে ধীরে তার উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয় পুলিশ।


পুলিশকে ‘জ্বালাতে’ একি করলেন এই নারী!

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ আগস্ট ২০২২, ১০:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পুলিশকে ‘জ্বালাতে’ একি করলেন এই নারী!
প্রতীকী ছবি

পুলিশের জরুরি পরিষেবায় ফোন করে করতেন এক নারী। যেই ফোনটি ধরুন না কেন, শুরু করতেন  লাগাতার গালিগালাজ। একবার দুইবার নয়, ১২ হাজার ৫১২ বার ফোন করেছেন তিনি। আর প্রতিবারই করেছেন গালিগালাজ।  

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় এই ঘটনা ঘটেছে বলে ফক্সনিউজ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে। 

কার্লা জেফারসন নামে ওই নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে আনা হয়েছে ফৌজদারি অভিযোগ। 

পুলিশ জানিয়েছে, পিনেলাস কাউন্টির বাসিন্দা কার্লা জেফারসন প্রায় দিনই ৯১১ এ ফোন করতেন। কর্মকর্তা ফোন ধরলেই তাদের অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করতেন। গত আট মাসে কার্লা ১২ হাজার ৫১২ বার ফোন করেছেন। আর গালাগালিও করেছেন।

সেন্ট পিটার্সবার্গ পুলিশের মুখপাত্র ইয়োলান্ডা ফার্নান্ডেজ ফক্স নিউজবে বলেন, এটা এমন বিষয় নয় যে, ফোন করে পুলিশকে দু’দিন গালাগাল দিলাম। ওই নারী সব সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছেন।

ফার্নান্ডেজ বলেন, ২৪ ঘণ্টায় ৫১২ বার ফোন করেছিলেন ওই নারী। প্রথমে তার সঙ্গে খুব ভদ্র ভাবেই কথা বলতেন পুলিশ সদস্যরা। কিন্তু ধীরে ধীরে তার উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয় পুলিশ। 


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন