ইউক্রেনকে আধুনিক অস্ত্র সরবরাহ নিয়ে ‘দ্বিধায়’ পশ্চিমা বিশ্ব!
jugantor
ইউক্রেনকে আধুনিক অস্ত্র সরবরাহ নিয়ে ‘দ্বিধায়’ পশ্চিমা বিশ্ব!

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২১:৩৫:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ইউক্রেনকে আধুনিক অস্ত্র সরবরাহ নিয়ে ‘দ্বিধায়’ পশ্চিমা বিশ্ব!

ইউক্রেনকে আধুনিক অস্ত্র দেওয়া নিয়ে পশ্চিমা বিশ্ব দ্বিধায় রয়েছে বলে মার্কিন সংবাদমাধ্যম পলিটিকো এক প্রতিবেদনে দাবি করেছে।

পলিটিকোর সূত্র অনুযায়ী, পশ্চিমা অস্ত্র সরবরাহে বেশ কিছু প্রযুক্তিগত সমস্যা দেখা দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

মার্কিন কর্মকর্তা, ইউক্রেনীয় উপদেষ্টা ও কংগ্রেসের সহযোগীদের বরাত দিয়ে পলিটিকো জানিয়েছে, কিয়েভ জরুরিভাবে রাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন আক্রমণ চালানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি এম-১ আব্রামস এবং জার্মান-নির্মিত লেপার্ড ট্যাংক চায়।

কিন্তু উভয় দেশের কর্মকর্তারা প্রশিক্ষণ এবং লজিস্টিক সমস্যার কারণে ওই সব অস্ত্র সরবরাহের ক্ষেত্রে সবুজ সংকেত দিতে নারাজ।

এ ব্যাপারে ইউএস আর্মি ইউরোপের সাবেক কমান্ডার অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল বেন হজেস পলিটিকোকে বলেন, এগুলো তো আর ভাড়ার গাড়ি নয়, এর সঙ্গে অনেক কিছু জড়িত রয়েছে। ট্যাংক সরবরাহের পাশাপাশি শতশত অতিরিক্ত জিনিসও’ প্রয়োজন।

পলিটিকো উল্লেখ করেছে যে, এম-১ ট্যাংক ইউক্রেনীয় বাহিনী যে সোভিয়েত যুগের অস্ত্র ব্যবহার করেছে তার থেকে সম্পূর্ণ আলাদা।

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মার্কিন কর্মকর্তা পলিটিকোকে বলেছেন, ইউক্রেনে কেবল ট্যাংকই নয়, তাদের রক্ষণাবেক্ষণের জন্য যন্ত্রাংশও পাঠানো কঠিন হবে।

ইউক্রেনকে আধুনিক অস্ত্র সরবরাহ নিয়ে ‘দ্বিধায়’ পশ্চিমা বিশ্ব!

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইউক্রেনকে আধুনিক অস্ত্র সরবরাহ নিয়ে ‘দ্বিধায়’ পশ্চিমা বিশ্ব!
প্রতীকী ছবি

ইউক্রেনকে আধুনিক অস্ত্র দেওয়া নিয়ে পশ্চিমা বিশ্ব দ্বিধায় রয়েছে বলে মার্কিন সংবাদমাধ্যম পলিটিকো এক প্রতিবেদনে দাবি করেছে।

পলিটিকোর সূত্র অনুযায়ী, পশ্চিমা অস্ত্র সরবরাহে বেশ কিছু প্রযুক্তিগত সমস্যা দেখা দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

মার্কিন কর্মকর্তা, ইউক্রেনীয় উপদেষ্টা ও  কংগ্রেসের সহযোগীদের বরাত দিয়ে পলিটিকো জানিয়েছে, কিয়েভ জরুরিভাবে রাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন আক্রমণ চালানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি এম-১ আব্রামস এবং জার্মান-নির্মিত লেপার্ড ট্যাংক চায়।

কিন্তু উভয় দেশের কর্মকর্তারা প্রশিক্ষণ এবং লজিস্টিক সমস্যার কারণে ওই সব অস্ত্র সরবরাহের ক্ষেত্রে সবুজ সংকেত দিতে নারাজ। 

এ ব্যাপারে ইউএস আর্মি ইউরোপের সাবেক কমান্ডার অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল বেন হজেস পলিটিকোকে বলেন, এগুলো তো আর ভাড়ার গাড়ি নয়, এর সঙ্গে অনেক কিছু জড়িত রয়েছে। ট্যাংক সরবরাহের পাশাপাশি শতশত অতিরিক্ত জিনিসও’ প্রয়োজন।

পলিটিকো উল্লেখ করেছে যে, এম-১ ট্যাংক ইউক্রেনীয় বাহিনী যে সোভিয়েত যুগের অস্ত্র ব্যবহার করেছে তার থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। 

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মার্কিন কর্মকর্তা পলিটিকোকে বলেছেন, ইউক্রেনে কেবল ট্যাংকই নয়, তাদের রক্ষণাবেক্ষণের জন্য যন্ত্রাংশও পাঠানো কঠিন হবে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা