চীনের সঙ্গে সম্পর্ক: দোষী সাব্যস্ত নাসার গবেষক ঝেংডং চেং
jugantor
চীনের সঙ্গে সম্পর্ক: দোষী সাব্যস্ত নাসার গবেষক ঝেংডং চেং

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৭:৩৭:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নাসার গবেষক এবং টেক্সাস এএন্ডএম ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ফেডারেল অনুদানের অর্থ গ্রহণ করার সময় চীনা সরকারের নির্মিত একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে তার সম্পর্ক গোপন করার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার হিউস্টন ফেডারেল আদালতে শুনানির সময় নাসার বিধি লঙ্ঘন এবং সরকারি নথি জাল করা – এই দুই অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন ঝেংডং চেং।

ঝেংডং চেংয়ের বিরুদ্ধে যে সরকারি নথি জাল করার অভিযোগ আনা হয়েছে তা ছিল চায়না ইনিশিয়েটিভ নামে একটি কর্মসূচির অংশ। প্রথমে ট্রাম্প প্রশাসনের অধীনে ওই কর্মসূচি শুরু হয়েছিল। কিন্তু চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বিচার বিভাগের অভিযোগের পরে ওই কর্মসূচি বাতিল করা হয়।

এদিকে, এই স্বতন্ত্র বিচারের কারণে বিচার বিভাগকে মুখোমুখি হতে হয় উচ্চ-পর্যায়ের বাধা। যার ফলে গত বছরে একাডেমিক গবেষকদের বিরুদ্ধে একাধিক ফৌজদারি মামলা খারিজ করা হয়েছে। বিচার বিভাগ বলেছে, তারা এই ধরনের বিচারের জন্য একটি বড় ধরনের বাধা আরোপের পরিকল্পনা করেছে।

২০২০ সালের আগস্টে যখন তাকে গ্রেফতার করা হয় তখন চেংয়ের বিরুদ্ধে জালিয়াতি, ষড়যন্ত্র এবং মিথ্যা বিবৃতির অভিযোগ আনা হয়েছিল। কিন্তু ফেডারেল প্রসিকিউটরদের সঙ্গে একটি চুক্তির অংশ হিসেবে তিনি নতুন অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন।

মার্কিন জেলা বিচারক অ্যান্ড্রু হ্যানেন চেংকে প্রায় ১৩ মাস সাজা দিয়েছেন। ওই সাজা গ্রেফতারের আগে বিচার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার আগেই ভোগ করেছেন তিনি। এছাড়া চেং ৮৬ হাজার ৮৭৬ মার্কিন ডলার পুনরুদ্ধার এবং ২০ হাজার মার্কিন ডলার জরিমানা দিতেও সম্মত হন তিনি। সূত্র: এপি

চীনের সঙ্গে সম্পর্ক: দোষী সাব্যস্ত নাসার গবেষক ঝেংডং চেং

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৫:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নাসার গবেষক এবং টেক্সাস এএন্ডএম ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ফেডারেল অনুদানের অর্থ গ্রহণ করার সময় চীনা সরকারের নির্মিত একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে তার সম্পর্ক গোপন করার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার হিউস্টন ফেডারেল আদালতে শুনানির সময় নাসার বিধি লঙ্ঘন এবং সরকারি নথি জাল করা – এই দুই অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন ঝেংডং চেং।

ঝেংডং চেংয়ের বিরুদ্ধে যে সরকারি নথি জাল করার অভিযোগ আনা হয়েছে তা ছিল চায়না ইনিশিয়েটিভ নামে একটি কর্মসূচির অংশ। প্রথমে ট্রাম্প প্রশাসনের অধীনে ওই কর্মসূচি শুরু হয়েছিল। কিন্তু চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বিচার বিভাগের অভিযোগের পরে ওই কর্মসূচি বাতিল করা হয়। 

এদিকে, এই স্বতন্ত্র বিচারের কারণে  বিচার বিভাগকে মুখোমুখি হতে হয় উচ্চ-পর্যায়ের বাধা। যার ফলে গত বছরে একাডেমিক গবেষকদের বিরুদ্ধে একাধিক ফৌজদারি মামলা খারিজ করা হয়েছে। বিচার বিভাগ বলেছে, তারা এই ধরনের বিচারের জন্য একটি বড় ধরনের বাধা আরোপের পরিকল্পনা করেছে।

২০২০ সালের আগস্টে যখন তাকে গ্রেফতার করা হয় তখন চেংয়ের বিরুদ্ধে জালিয়াতি, ষড়যন্ত্র এবং মিথ্যা বিবৃতির অভিযোগ আনা হয়েছিল। কিন্তু ফেডারেল প্রসিকিউটরদের সঙ্গে একটি চুক্তির অংশ হিসেবে তিনি নতুন অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন।

মার্কিন জেলা বিচারক অ্যান্ড্রু হ্যানেন চেংকে প্রায় ১৩ মাস সাজা দিয়েছেন। ওই সাজা গ্রেফতারের আগে বিচার প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার আগেই ভোগ করেছেন তিনি।  এছাড়া চেং ৮৬ হাজার ৮৭৬ মার্কিন ডলার পুনরুদ্ধার এবং ২০ হাজার মার্কিন ডলার জরিমানা দিতেও সম্মত হন তিনি। সূত্র: এপি
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর